• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • Business Idea: চাকরি ছাড়তে চান? নামমাত্র পুঁজিতে 'এই' ব্যবসায় নির্ঝঞ্ঝাটে আয় করুন লক্ষ লক্ষ টাকা!

Business Idea: চাকরি ছাড়তে চান? নামমাত্র পুঁজিতে 'এই' ব্যবসায় নির্ঝঞ্ঝাটে আয় করুন লক্ষ লক্ষ টাকা!

কম বিনোয়োগে বিশাল লাভ

কম বিনোয়োগে বিশাল লাভ

Business Idea: এই ব্যবসা শুরু করতে খুব বেশি বিনিয়োগের প্রয়োজন নেই, এটি বাড়ির রান্নাঘর থেকেই শুরু করা যায়।

  • Share this:

#কলকাতা: জীবনের একটা সময়ে এসে প্রতিটি মানুষ একটা বিষয়ে সঠিক সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর চেষ্টা করে। ব্যবসা না চাকরি? এক অদ্ভুত দোলাচল। এক দিকে নিরাপত্তা ও পরাধীনতা; অন্য দিকে আবার রয়েছে ভয়, আশঙ্কা ও স্বাধীনতার অনাবিল আনন্দ। তবে অল্প পুঁজিতেও জমিয়ে সাফল্য আনা যায়, যদি সেটি পরিকল্পনামাফিক করা হয়। আজ আমরা সেরকমই একটা ব্যবসা (Business Idea) সম্পর্কে জানব- ৫০০ টাকারও কম বিনিয়োগে কী ভাবে বাড়িতে বসে চাটনির ব্যবসা শুরু করা যায়। প্রথমেই বলি এই ব্যবসা শুরু করতে খুব বেশি বিনিয়োগের প্রয়োজন নেই, এটি বাড়ির রান্নাঘর থেকেই শুরু করা যায়।

আরও পড়ুন: কৃষকদের জন্য সুখবর! এবার বিনা গ্যারেন্টিতে পেয়ে যাবেন ১.৩০ লক্ষ টাকার সুবিধা

আজ এমনই এক সফল চাটনি (Chutney) ব্যবসায়ীর সাফল্যের কাহিনি  (Business Idea) আপনাদের সামনে তুলে ধরব। অনিন্দিতা সেঙ্গার (Anindita Sanger), যিনি ছোটবেলা থেকেই রান্নার প্রতি অনুরাগী ছিলেন, বিভিন্ন খাবার নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষাও করেছিলেন, গত বছর তিনি নিজের ছোট্ট স্টার্ট আপ শুরু করেছিলেন- 'চাটনি চাচি' (Chutney Chachi) নাম দিয়ে। মুম্বইয়ে তাঁর বাড়ি থেকেই এই ব্যবসা (Business Idea) শুরু করেন তিনি। মানুষকে বিভিন্ন জৈব সবজি থেকে তৈরি চাটনি খাওয়ান। মানুষের ভিতর এই বিষয়টি নিয়ে পরিষ্কার ধারণা না থাকায় অনেকেই যা ভাবতেই পারে না সেটাই করেছেন অনিন্দিতা। এমনকী লকডাউনের সময়ও অনিন্দিতা কখনও ভাবেননি যে তাঁর ব্যবসা বন্ধ করা উচিত। বরং, এই সময়টাকে ভীষণ ভাবে কাজে লাগিয়েছেন তিনি।

কী ভাবে নিজের বাড়ি থেকে নিজের ব্যবসা শুরু করা যায়, দেখে নেওয়া যাক অনিন্দিতার পরামর্শ মতো!

১. কী ভাবে ব্যবসা শুরু করা যায়, কত বিনিয়োগ করা উচিত?

প্রথমে পরিষ্কার ধারণা রাখা উচিত যে চাটনি, আচার বা অন্য কিছুর মতো কী তৈরি করতে চাই আমরা। একটি পণ্য দিয়ে শুরু করতে হবে এবং তার উপরেই পুরোপুরি ফোকাস করতে হবে। এই ব্যবসা করতে কী কী প্রয়োজন হবে তার একটি তালিকা তৈরি করতে হবে যাতে কোনও কিছুই আটকে না যায়। সবজি, মশলা বা এমনকী প্যাকেজিংয়ের জন্য জারগুলি কোথায় কিনতে পাওয়া যায় খোঁজ করতে হবে। প্রাথমিকভাবে, এই ব্যবসাটি শুরু করা যায় ন্যূনতম ৫০০ টাকার কম অর্থ দিয়ে। কারণ চাটনি তৈরির জন্য মৌলিক জিনিস প্রয়োজন। এছাড়াও, অর্ডার অনুযায়ী বিনিয়োগ করা উচিত।

২. ব্যবসার জন্য কোনও সার্টিফিকেশন প্রয়োজন? কী ভাবে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে?

যখনই আপনি একটি খাদ্য ব্যবসা শুরু করা হয়, একটি FSSAI সার্টিফিকেট প্রয়োজন। অনলাইনে আবেদন করা যায় অথবা মুম্বইয়ের লিগ্যাল ডক্সের মতো একটি এজেন্সির মাধ্যমে এটি সম্পন্ন করা যায়। এটি খুবই সহজ প্রক্রিয়া এবং আমরা নিজে আবেদন করতে পারি। এফএসএসএআই -এর পাশাপাশি, তৈরি দ্রব্যের পুষ্টির মূল্যের শংসাপত্র পাওয়াও দরকার। যদিও শুধুমাত্র FSSAI কাজ করে, কিন্তু কোনও দোকানে নিজের তৈরি জিনিস রাখতে চাইলে দোকানদাররা প্রায়ই এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করে। এর জন্য মুম্বইয়ের এগ্রোবায়োমিক্স ল্যাবের মতো অনেক সংস্থা সাহায্য করতে পারে।

৩. চাটনি তৈরির জন্য কি আলাদা কোনও পাত্র বা মেশিনের প্রয়োজন?

চাটনি তৈরির জন্য কোনও বড় মেশিন ইত্যাদি লাগবে না। যা দরকার তা হ'ল একটি মিক্সার, যা প্রতিটি বাড়িতেই পাওয়া যায়। তা ছাড়া ছুরি, প্লেট ইত্যাদি। এছাড়া শিলনোড়াও ব্যবহার করা যায়। এটি চাটনির স্বাদ বাড়ায় এবং পুষ্টি বজায় রাখে।

৪. প্যাকেজিং কী ভাবে করতে হবে?

আমরা যেহেতু পণ্যটিকে সম্পূর্ণ গৃহনির্মিত এবং স্বাদের পাশাপাশি পুষ্টিকর বলছি সেক্ষেত্রে আমাদের প্যাকেজিংয়ে এটির প্রতিফলন করা উচিত। চাটনির স্বাদ এবং পুষ্টি নিখুঁত রাখে এমন ক্যান ব্যবহার করতে হবে, যেমন কাচের জার। নিজের ব্র্যান্ডের নাম দিয়ে জারটি ভালো লেবেল করতে হবে যাতে অন্যরা পণ্য দেখতে পারে এবং তা দেখে আকৃষ্ট হয়।

আরও পড়ুন:সারা বছর সবজি চাষ করতে চান ? লাভজনকভাবে, কম খরচে, কীভাবে করবেন ? জেনে নিন

৫. কী ভাবে তৈরি পণ্যের মূল্য নির্ধারণ করতে হবে?

মূল্য নির্ধারণ একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। পণ্য তৈরিতে ব্যবহৃত জিনিসের মূল্যকে পণ্য তৈরিতে ব্যবহৃত পরিমাণের সঙ্গে ভাগ করতে হবে। পণ্যের খরচ উঠে আসবে, এর পর এতে প্যাকেজিংয়ের খরচ যোগ করতে হবে। এছাড়াও, পরিশ্রমের সামান্য মূল্য হিসাব করতে হবে। এই হিসাবের মধ্যে, মুনাফার মার্জিন রাখা উচিত, কিন্তু এই মার্জিনটি এত বেশি হওয়া উচিত নয় যা সাধারণের সাধ্যের বাইরে। তবে একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে যে গ্রাহক যদি দাম সম্পর্কে প্রশ্ন করেন, তাহলে তাঁকে বুঝিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা থাকা চাই যে পণ্যের এত মূল্য কেন?

৬. কী ভাবে মার্কেটিং করতে হবে?

সব চেয়ে ভালো মার্কেটিংয়ের উপায় হল 'মুখের কথা' অর্থাৎ মানুষের মাধ্যমে যখন আপনার পণ্যের কথা একে অপরের কাছে পৌঁছায়। এছাড়াও, সোশ্যাল মিডিয়াকে ভালো ভাবে ব্যবহার করতে হবে। ফেসবুক (Facebook) এবং ইনস্টাগ্রামে (Instagram) পণ্যের পেজ তৈরি করতে হবে এবং পণ্যগুলি সম্পর্কে মানুষকে জানাতে হবে।

৭. ব্যবসার জন্য কিছু টিপস:

যে ব্যবসাই করা হোক না কেন, সব সময় কিছু বিষয় মাথায় রাখা উচিত। সর্বদা গ্রাহকের জায়গায় নিজেকে ভাবতে হবে এবং তার পরে পণ্যগুলি তৈরি করতে হবে। যদি বড় হওয়ার ইচ্ছা থাকে, গ্রাহকদের বিশ্বাস অর্জন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এজন্য কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে, যেমন-‌ যখন খাবারের ব্যবসার কথা ভাবা হচ্ছে, সব সময় পণ্যগুলি আগে পরিবারের জন্য তৈরি করতে হবে। ‌যদি মনে হয় যে কোনও সবজি খারাপ হয়ে গিয়েছে বা খারাপ হতে চলেছে, তাহলে এটি পণ্যে যোগ করা যাবে না। কারণ একবার মানুষের কাছে পৌঁছে গেলে তা সুনাম নষ্ট করতে পারে। ‌সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন জায়গায় চাটনি তৈরি করতে হবে। যদি দাবি করা হয় যে চাটনি জৈব সবজি থেকে তৈরি হচ্ছে, তাহলে সব সময় জৈব সবজি-ই ব্যবহার করুনকরতে হবে। ‌সময়মতো অর্ডার ডেলিভারি করার চেষ্টা করতে হবে। যে কোনও জরুরি অবস্থায়, গ্রাহকদের সঙ্গে কথা বলা উচিত, তাঁদের নিজের সমস্যা জানাতে হবে এবং ক্ষতিপূরণ দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে। গ্রাহকদের কাছ থেকে প্রতিক্রিয়া নিতে হবে, যা ব্যবসায় এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে।

অনিন্দিতা এও জানান যে চাটনির স্বাদও নির্ভর করে আমরা কী ব্যবহার করছি তার উপর। যেমন কখনও কখনও টম্যাটোর স্বাদ ভিন্ন, কখনওবা অন্য কোনও সবজির স্বাদ বদলায়, তার ফলে প্রতিবার চাটনির স্বাদও বদলায়। কিন্তু যে স্বাদটি প্রথমবার তৈরি করা হয়েছিল সেটা বজায় রাখার চেষ্টা করতে হবে। ব্যবসার শুরুতে সাফল্য বা ক্ষতির কথা না ভেবে, শুধু ব্যবসার কথা ভাবতে হবে। আসলে ব্যবসা করবো বা ব্যবসায়ী হব এরকমটা তো আমরা সকলেই ভাবি, কিন্তু আমাদের কাজের মাধ্যমেও আমরা অনেক মানুষকে অনুপ্রাণিত করতে পারি যা তাঁদের নিজেদের পরিচয় তৈরি করতে সাহায্য করবে।

Published by:Sanjukta Sarkar
First published: