Home /News /business /
Budget 2022|| ব্রিফকেস থেকে বহি-খাতা হয়ে ট্যাবলেট, এক নজরে বাজেট বিবর্তনের রঙিন যাত্রাপথ...

Budget 2022|| ব্রিফকেস থেকে বহি-খাতা হয়ে ট্যাবলেট, এক নজরে বাজেট বিবর্তনের রঙিন যাত্রাপথ...

Briefcase To Bahi Khata To Tablet A Journey Of Budget Presentation: নির্মলা সীতারমণ পাল্টে দিলেন ব্রিফকেসের ধারা। বদলে আনলেন বহি-খাতা।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সেই কবে চার্লস ডারউইন বলেছিলেন, ‘সারভাইভাল অফ দ্য ফিটেস্ট’। অর্থাৎ যোগ্যতমের উদ্বর্তন। এক কথায় এটাই যেন ভারতের বাজেট বিবর্তনের প্রাণ কথা। ব্রিফকেস থেকে বহি খাতা, সেখান থেকে লাল শালু মোড়া ট্যাবলেট। সেই শালু আবার সিদ্ধি বিনায়ক এবং মহালক্ষ্মী মন্দিরে নিয়ে গিয়ে পুজো দিয়ে এসেছিলেন খোদ অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। এ যেন ডিজিটাল ইন্ডিয়ার সঙ্গে আধ্যাত্মিকতার মেলবন্ধন। রসিকজনেরা বলতেই পারেন, সাধু, সাধু!

আগে বাজেট নথি আসতো ব্রিফকেসে বন্দি হয়ে। কালো, লাল বা কালচে খয়েরি রঙের চামড়ার ব্যাগ হাতে করে সংসদে ঢুকতেন অর্থমন্ত্রীরা। সেই ব্রিটিশ আমল থেকে এই পরম্পরা চালু হয়েছিল। ১৮৬০ সালের ৭ এপ্রিল ঔপনিবেশিক ভারতে প্রথম বাজেট পেশ করেছিলেন তৎকালীন অর্থমন্ত্রী জেমস উইলসন। তাঁর হাতে ছিল গ্ল্যাডস্টোন বক্স। ব্রিটিশ অর্থমন্ত্রীও পার্লামেন্টে এই ব্যাগ নিয়েই বাজেট পেশ করতে যেতেন। সেই ধারাই চুঁইয়ে এসেছিল ভারতে।

এর পর ১৯৪৭ সালের ২৬ নভেম্বর স্বাধীন ভারতের প্রথম কেন্দ্রীয় বাজেট পেশ করেছিলেন অর্থমন্ত্রী আর.কে. শনমুখম চেট্টি৷ তাঁর হাতে ছিল চামড়ার পোর্টফোলিও ব্যাগ। এরপর ইন্দিরা গান্ধির আমল থেকে মোদি আমলের অরুণ জেটলি পর্যন্ত অক্ষুণ্ণ ছিল সেই ধারা। চামড়ার ব্রিফকেস নিয়েই সংসদে ঢুকতেন অর্থমন্ত্রীরা। প্রতি বছর তার রঙ পাল্টে যেত শুধু। সংসদে প্রবেশের আগে ব্রিফকেসটা তুলে ধরতেন অর্থমন্ত্রীরা। ফোটোগ্রাফাররা তার ছবি তুলতেন। পরের দিন সংবাদপত্রে প্রকাশ পেত সেই ব্রিফকেসের ছবি। এটাই ছিল দস্তুর।

আরও পড়ুন: ২৪ কোটির বেশি EPF অ্যাকাউন্ট হোল্ডাররা পেয়েছেন টাকা, চেক করে নিন আপনার অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স

২০১৯ সালে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে দ্বিতীয় বার ক্ষমতায় এল মোদি সরকার। নতুন অর্থমন্ত্রী হলেন নির্মলা সীতারমণ। তিনি পাল্টে দিলেন ব্রিফকেসের ধারা। বদলে আনলেন বহি-খাতা। সেটা কী? লাল শালুতে মোড়া বাজেটের নথি। তাঁর উপর অশোক স্তম্ভ। ভারতে হিসাব রাখা হয় যে খাতায়, তাকেই বলা হয় বহি-খাতা। নতুন বছরে সেই খাতার উপরে স্বস্তিকা আঁকা হয়। ১ টাকার কয়েনে লাল সিঁদুর মাখিয়ে দেওয়া হয় অশোক স্তম্ভের ছাপ। সেই ঐতিহ্যকেই যেন সরকারি সীলমোহর দিলেন নির্মলা। লাল শালুতে মুড়ে আনলেন বাজেটের নথি। বললেন, এটাই এ দেশের বহি-খাতা।
আরও পড়ুন: বাজেট ২০২২-এ কোভিড-১৯ সাপোর্ট ফিরিয়ে নিলেও ভারতের কোনও সমস্যা হবে না?
কেন এমন করেছিলেন নির্মলা? তাঁর সোজাসাপটা জবাব, “ব্রিটিশ আমলের অভ্যাস থেকে বেরিয়ে আসার এটাই সেরা সময়। আমাদের নিজেদের কিছু করতে হবে।” সঙ্গে তাঁর টিপ্পনি, “এটা বয়ে আনাও আমার পক্ষে সহজ।” আরও একটা চমক দেন নির্মলা। ‘হালুয়া সেরিমনি’র সময়, কড়াইয়ের ওপর বাঁধা লাল ফিতে কাটার পরিবর্তে সেটিকে গুটিয়ে নেন অর্থমন্ত্রী। কেন? ফিতে কেটে ফেলা শুভ নয় বলে মত অর্থ মন্ত্রকের। ২০২০ সালেও বাজেট পেশ হয় বহি-খাতা দেখেই।
২০২১ সাল করোনার বছর। সে বার তাই বহি-খাতাও অতীত। ডিজিটাল ইন্ডিয়া এবং নিউ নর্মালের সঙ্গে সাযুজ্য রেখে সে বার লোকসভায় ট্যাবলেট থেকে বাজেট পেশ করেন নির্মলা। সেই ট্যাবলেট আসে লাল কাপড়ে মুড়ে। তার উপর অশোক স্তম্ভ। সেটাও ইতিহাস। কারণ, স্বাধীনতার পর থেকে সে বারই প্রথম বার ‘পেপারলেস’ বাজেট পেশ করেন নির্মলা। এ বার ১ ফেব্রুয়ারি বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী। ফের কি দেখা যাবে নতুন কোনও চমক? এখন তারই অপেক্ষা...
Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Budget, Budget 2022

পরবর্তী খবর