Budget 2021: এই তিন বিষয়ে জোর দিলেই ঘুরে দাঁড়াবে দেশের অর্থনীতি, বলছেন বিশেষজ্ঞরা

Budget 2021: এই তিন বিষয়ে জোর দিলেই ঘুরে দাঁড়াবে দেশের অর্থনীতি, বলছেন বিশেষজ্ঞরা

দেশের অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ কি দেবে আসন্ন বাজেট?

দেশের অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ কি দেবে আসন্ন বাজেট?

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কোনও সন্দেহই করা চলে না যে করোনাভাইরাসের প্রকোপে মানুষের জীবনের মতো সমান ভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে সারা বিশ্বের অর্থনীতি। তৃতীয় বিশ্বের দেশ হিসেবে ভারতের অর্থনৈতিক অবস্থা কোনও কালেই তেমন সুবিধের ছিল না। গত বছরে তা আরও বেশি করে বিপর্যয়ের মুখে এসে দাঁড়িয়েছে। এই রকম পরিস্থিতিতে যখন জানা গেল যে ১ ফেব্রুয়ারি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman) ২০২১-২০২২ অর্থবর্ষের বাজেট পেশ করতে চলেছেন, সঙ্গত কারণেই বাড়ল কৌতূহল। দেশের অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ কি দেবে আসন্ন বাজেট?

সীতারমন অবশ্য এর আগে তাঁর এক বিবৃতিতে বলেছিলেন যে দেশের উন্নয়নের স্বার্থে কয়েকটি অভূতপূর্ব দিক নিয়ে দেখা দিতে চলেছে বাজেট। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে তিন R, অর্থাৎ Relief, Recovery আর Reform-এর উপরে ভর দিয়েই ঘুরে দাঁড়াতে পারে দেশের অর্থনীতি।

Relief

শিল্পক্ষেত্রে দেশের অবস্থা ধীরে ধীরে ভালো হচ্ছে ঠিকই। কিন্তু ক্ষুদ্রতর, ক্ষুদ্র এবং মাঝারি শিল্পক্ষেত্র এখনও ধুঁকছে। এক্ষেত্রে ইমার্জেন্সি ক্রেডিট লাইন স্কিম অন্তত আরও এক বছর চালানো উচিৎ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। যা এই শিল্পক্ষেত্রকে Relief বা স্বস্তি দেবে। একই ভাবে একটু সময় দিতে হবে পর্যটন শিল্পকে, তার রক্ষণাবেক্ষণ করতে হবে। এছাড়া নজর দিতে হবে শহরজীবনের কর্মক্ষেত্রে। শহরে কর্মসংস্থান বাড়াতে নতুন নতুন হাউজিং প্রোজেক্টে জোর দেওয়া যেতে পারে বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

Recovery

এক্ষেত্রে মূলত দু'টি দিকের Recovery বা আরোগ্যে নজর দিতে বলছেন বিশেষজ্ঞরা। একটি হল ব্যাঙ্কিং সিস্টেম। এই ক্ষেত্রের বেহাল অবস্থা ঠিক করতে ব্যাড ব্যাঙ্ক সিস্টেম চালু করা হতে পারে, এরকম কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে খবরে। অন্য দিকে বিশেষজ্ঞরা ভ্যাকসিনেশন সিস্টেমের উপরেও জোর দিতে বলছেন। সরকার যদি এই খাতে বিনিয়োগ করে, তা হলে দ্রুত জনজীবন আগের অবস্থায় ফিরবে, সঙ্গে ফিরবে অর্থনীতিও।

Reform

GDP-র পতনের বিষয়টি গত বছর থেকেই ভাবিয়ে তুলেছে দেশকে। তাকে কাঙ্ক্ষিত উচ্চতায় নিয়ে আসার জন্য প্রাইভেটাইজেশনের উপরে জোর নেওয়া উচিত বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। পাশাপাশ, কয়েকটি দিকে করের হার না বাড়ানোই ঠিক হবে বলে জানাচ্ছেন তাঁরা। এর আগে কোভিড ট্যাক্স নিয়ে যে গুজব উঠেছিল, সেটা গুজবের পর্যায়েই রাখার পরামর্শ দিচ্ছেন তাঁরা।

Published by:Ananya Chakraborty
First published:

লেটেস্ট খবর