• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • বাজেট ২০২১: কোভিড সেস আসন্ন বাজেটে আনতে পারে সরকার, কারণ জেনে নিন!

বাজেট ২০২১: কোভিড সেস আসন্ন বাজেটে আনতে পারে সরকার, কারণ জেনে নিন!

প্রথমে ইউএএন নম্বর এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে ইপিএফ অ্যাকাউন্টে লগ ইন করতে হবে৷ এর পর অনলাইন সার্ভিসে গিয়ে Claim (Form 31, 19 & 10C) অপশনটি সিলেক্ট করুন৷

প্রথমে ইউএএন নম্বর এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে ইপিএফ অ্যাকাউন্টে লগ ইন করতে হবে৷ এর পর অনলাইন সার্ভিসে গিয়ে Claim (Form 31, 19 & 10C) অপশনটি সিলেক্ট করুন৷

বিশেষ করে উচ্চ আয়ের লোকজনের উপরেই এ ধরনের সেস বসান হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু কেন এই কোভিড সেস? আসুন জেনে নেওয়া যাক বিশদে!

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: বাজেট নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। ১ ফেব্রুয়ারি পেশ হচ্ছে কেন্দ্রীয় বাজেট। এক্ষেত্রে কোভিড-১৯ সেস বসানো নিয়েও নানা আলাপ-আলোচনা শুরু হয়েছে। সব ঠিক থাকলে আসন্ন বাজেটেই কোভিড-১৯ সেস বসানোর কথা ঘোষণা করতে পারে সরকার। সূত্রে খবর, করোনার মোকাবিলায় সরকারের খরচ বেড়ে গিয়েছে। আর এই অতিরিক্ত খরচ তুলতেই কোভিড-১৯ সেস বসানোর কথা চিন্তাভাবনা করছে সরকার। এ নিয়ে অর্থমন্ত্রকের আধিকারিকদের মধ্যেও আলোচনা হয়েছে। বিশেষ করে উচ্চ আয়ের লোকজনের উপরেই এ ধরনের সেস বসান হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু কেন এই কোভিড সেস? আসুন জেনে নেওয়া যাক বিশদে!

এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন Professional Times-এর কর্ণধার আদিত্য এম আগরওয়াল (Aditya M Agarwal) ও মহেশ কে আগরওয়াল (Mahesh K Agarwal)। তাঁদের কথায়, একটা কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে ২০২১-২২ অর্থবর্ষের বাজেট পেশ হতে চলেছে। তাই এবারের বাজেট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একদিকে রেভিনিউ কালেকশনের ক্ষেত্রে লড়ছে সরকার। অন্য দিকে, দেশের MSME সেক্টর থেকে শুরু করে অর্থনৈতিক ভাবে বিধ্বস্ত একাধিক ব্যবসায়িক সেক্টরকে সাহায্য করার বাড়তি চাপ রয়েছে। প্রচুর জায়গায় মানুষজন চাকরি হারিয়েছেন, বেতন কমেছে। তাই কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রটি চাঙ্গা করাও একটি বড় বিষয়। এর মাঝেই কোভিড ১৯ ভ্যাকসিনেশনের কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। ভ্যাকসিন-সহ অতিমারী সঙ্কট মোকাবিলায় নানা ধরনের ত্রাণের কাজেও প্রচুর টাকা খরচ হয়েছে। যা ক্রমেই সরকারের উপরে চাপ বাড়াচ্ছে। আর এই সব কারণের জেরেই আসন্ন বাজেটে কোভিড সেস ঘোষণার সম্ভাবনা প্রবল। সূত্রে খবর, উচ্চ আয়করের আওতায় আসেন এমন করদাতাদের উপরেই এই কোভিড সেস বসানো হতে পারে। এ ছাড়া কিছু পরোক্ষ বা ইনডিরেক্ট সেসও বসানো হতে পারে। নির্দিষ্ট একটি টার্নওভার থাকলে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলিকেও এই সেস দিতে হবে।

একই বক্তব্য স্পষ্ট হয়ে উঠেছে কনসাল্টিং ফার্ম AKM Global-এর ট্যাক্স পার্টনার অমিত মাহেশ্বরীর (Amit Maheshwari) কথায়। তিনি জানিয়েছেন, করোনা মোকাবিলার ব্যয়ভার বহন করতে ২০২১-এর বাজেটে কোভিড সেস বসাতে পারে কেন্দ্র। কারণ নানা ধরনের কোভিড প্রোগ্রাম, কর্মসূচী, কোভিড ১৯ কিটস, হেল্থ ইনফ্রাস্ট্রাকচার, ভ্যাকসিনেশন প্রোগ্রাম-সহ একাধিক ক্ষেত্রে প্রচুর টাকা খরচ হয়ে গিয়েছে। দেশের জনসংখ্যা অনেকটাই বেশি। তাই বরাদ্দ অর্থ ও ব্যয়ের পরিমাণও পাহাড়প্রমাণ। আর এই ঘাটতি পূরণ করতে সেস বসানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিষয়টি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে সংবিধানের ২৭০ ধারার প্রসঙ্গ তুলে এনেছেন তিনি।

কয়েকটি প্রতিবেদন সূত্রে জানা গিয়েছে, টিকাকরণে প্রাথমিক ভাবে খরচের পরিমাণ ৬০ হাজার কোটি থেকে ৬৫ হাজার কোটি টাকা। এক্ষেত্রে সেস বাবদ যে অর্থ আদায় হবে, তার সমস্তটাই কেন্দ্র নিজের কাছে রাখবে। রাজ্যের সঙ্গে এটি ভাগ করা হবে না। এই সূত্র ধরে পেট্রোল, ডিজেলের উপরেও কর চাপানো হতে পারে।

Published by:Pooja Basu
First published: