পেঁয়াজ-ডাল-আলুর পরে জোর ধাক্কার পথে মধ্যবিত্তের হেঁশেল ! তুমুল হারে বাড়বে চিনির দামও !

পেঁয়াজ-ডাল-আলুর পরে জোর ধাক্কার পথে মধ্যবিত্তের হেঁশেল ! তুমুল হারে বাড়বে চিনির দামও !
ফাইল ছবি ৷

জিনিসপত্রের দাম বাড়াতে চাপে মধ্যবিত্ত

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: পেঁয়াজ ও ডালের পরে সাধারণ মানুষের মাথায় হাত পড়তে চলেছে ৷ কেননা তুমুল গতিতে বাড়তে চলেছে জিসিপত্রের দাম ৷ ক্রমাগত জিনিসপত্রের দাম বাড়তে রীতিমত নাজেহাল হয়েছে মধ্যবিত্ত ৷ সরকারি উদ্যোগে কিছু কিছু ক্ষেত্রে কম দামে পেঁয়াজ বিক্রি করা হলেও ৷ সার্বিক ভাবে মধ্যবিত্তের ধরা ছোঁয়ার বাইরে পেঁয়াজের দাম ৷ এরই মাঝে বড় অস্বস্তি মধ্যবিত্তের বাড়তে চলেচে চিনির দামও ৷

কেন্দ্রীয় উপভোক্তা বিষয়ক দফতরের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে ৮.৫ লক্ষ মেট্রিক কোলা বাজারে বিক্রি করা হবে ৷ তবে বিগত সময়ের থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত চিনির উৎপাদনে বড়সড় পতন এসেছে ৷ ৩৫ শতাংশ উৎপাদন কমে ৪৮.৮ লক্ষ টনে দাঁড়িয়েছে চিনির উৎপাদন ৷ মহারাষ্ট্র ও কর্নাটকে চিনির উৎপাদন কম হওয়াতেই এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে ৷ সেপ্টেম্বরে চিনির উৎপাদন ছিল ৭০.৫ লক্ষ টন ৷ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত ৪০৬ টিবেসরকারি মিলে চিনির আখ পেষন করা হয়েছে ৷ তার আগের মাস গুলিতে সেখানে ৪৭৩ মিলে চিনি পেষাই করা হয়েছিল ৷

সূত্রের খবর মহারাষ্ট্র ও কর্নাটকে চিনির উৎপাদন গত বছরগুলির থেকে অনেকটাই কমেছে ৷ একই সঙ্গে আখ পেষাইয়ের পরিমাণ গুজরাত ১.৫২ লক্ষ টন, বিহারে ১.৩৫ লক্ষ টন, পঞ্জাবে ৭৫ হাজার, তামিলনাড়ুতে ৭৩ হাজার, হরিয়ানাতে ৬৫ হাজার টন, মধ্যপ্রদেশে ৩৫ হাজার টন, তেলঙ্গানা ও অন্ধ্রপ্রদেশে ৩০ হাজার টন চিনির উৎপাদন হয়েছে ৷ ৷ ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে তিনির উৎপাদন ২১.৫ শতাংশ থেকে কমে ২.৬ কোটি টন হতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে ৷

First published: 12:41:13 PM Dec 20, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर