Home /News /birbhum /
Birbhum: ব্রাহ্মণ পুত্রের ভিক্ষে বাবা মা হলেন সংখ্যালঘু দম্পতি!

Birbhum: ব্রাহ্মণ পুত্রের ভিক্ষে বাবা মা হলেন সংখ্যালঘু দম্পতি!

title=

জাত নিয়ে নানান জায়গায় নানান আলোচনা-সমালোচনা লক্ষ্য করা যায়। পাশাপাশি এই জাত নিয়ে নানান অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটে।

  • Share this:

    বীরভূম : জাত নিয়ে নানান জায়গায় নানান আলোচনা-সমালোচনা লক্ষ্য করা যায়। পাশাপাশি এই জাত নিয়ে নানান অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটে। তবে এই সকল ঘটনার মধ্যে সম্প্রতি বেশকিছু ঘটনা ঘটে চলেছে যেগুলি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উদাহরণ হিসেবে আলাদা করে জায়গা করে নেয়। ঠিক সেই রকমই একটি ঘটনা ঘটল বীরভূমের রামপুরহাটে। বীরভূমের রামপুরহাটের অভিজিৎ মজুমদার নামে এক ব্যক্তি তার ছেলের উপনয়নে এমন জাত জালিয়াত জুয়া খেলার ইতি টানলেন। তার ছেলের উপনয়নে মুখ দেখলেন সংখ্যালঘু দম্পতি অর্থাৎ এই মুখ দেখার পর তার ছেলের ভিক্ষে বাবা ও মা হলেন সংখ্যালঘু দম্পতি। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই উপনয়ন অনুষ্ঠান হয়ে দাঁড়িয়েছিল মিলন উৎসব। অভিজিৎ মজুমদার রামপুরহাট পৌরসভার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের সারদাপল্লির বাসিন্দা। তিনি এক সময় বিমা সংস্থার এজেন্ট ছিলেন। তার বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য জীবনের সম্পর্কের অবনতি হয়। এরই মধ্যে তাদের সংসারে জন্ম নেয় পুত্র সন্তান। পাঁচ বছরের শিশুপুত্রকে নিয়ে পরপুরুষের সঙ্গে ঘর বাঁধেন স্ত্রী। সে সময় দিশাহীন হয়ে পড়েন অভিজিৎ। মানসিক অবসাদে ভুগতে থাকেন।

    সেই অবস্থায় কোন আত্মীয়কে পাশে পাননি অভিজিৎ। পেয়েছিলেন রামপুরহাট পুরসভার ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা আব্দুর রেকিবকে। সেই তাঁকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে এনেছিলেন। পরে স্ত্রীর সঙ্গে আইনি বিবাহবিচ্ছেদ হয় এবং সন্তানকে ফিরে পান। সন্তানকে ফিরে পাওয়ার পিছনে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন বন্ধু সুলভ আব্দুর রেকিব। তাই রবিবার রেকিব ও তাঁর স্ত্রী ওয়াহিদা রহমান মুখ দেখলেন অভিজিতের একমাত্র ছেলে অর্ণব মজুমদারের।

    আরও পড়ুনঃ পুলিশ বলে কী জামাই নন! থানাতেই জামাই আদর কর্মীদের

    হিন্দু শাস্ত্রমতে এদিন তারাপীঠ মন্দিরে ব্রাহ্মণ পুত্রের ভিক্ষা বাবা ও মা হলেন সংখ্যালঘু ধর্মাবলম্বী ওই দম্পতি। অভিজিৎ এই বিষয়ে জানিয়েছেন, “আমি বিপদের সময় নিজের আত্মীয়কে পাশে পাইনি। সে সময় ঈশ্বরের দূত হিসাবে পাশে পেয়েছিলাম আব্দুর রেকিবের পরিবারকে। তাই সন্তানের নতুন মা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি তাদেরকেই। আমি মনে করি মানুষের কোনও জাত হয় না। আমি ধর্ম দেখি না। তাই আমি বৌদিকে ভাবি দেবতা।\"

    আরও পড়ুনঃ কানেও শুনতে পায় না, মুখেও ফোটে না শব্দ, তবুও অদম্য জেদে মাধ্যমিক পাস যমজ বোনের

    আব্দুর রেকিব জানান, “আমার ছিল এক ছেলে। এখন থেকে আমার দুই ছেলে হল। আমি নতুন করে বাবা হলাম। হিন্দু শাস্ত্র মতেই ছেলের মুখ দেখলাম। জাতের নামে বজ্জাতি করে কিছু মানুষ। কিন্তু আসল হচ্ছে মানুষ”।

    Madhab Das
    First published:

    Tags: Birbhum, Rampurhat

    পরবর্তী খবর