Home /News /birbhum /
Birbhum news : ক্যানসার ও দুর্নীতিকে হারিয়ে যোগ দিয়েছেন চাকরিতে, একগাল হাসি সোমার মুখে

Birbhum news : ক্যানসার ও দুর্নীতিকে হারিয়ে যোগ দিয়েছেন চাকরিতে, একগাল হাসি সোমার মুখে

সোমা

সোমা দাস

২০১৬ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল বের হয় ২০১৮ সালে। এই ফলাফল বের হওয়ার পর যোগ্যদের তালিকায় নাম ওঠে বীরভূমের নলহাটির আশ্রমপাড়ার সোমা দাসের।

  • Share this:

    #বীরভূম: ২০১৬ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল বের হয় ২০১৮ সালে। এই ফলাফল বের হওয়ার পর যোগ্যদের তালিকায় নাম ওঠে বীরভূমের নলহাটির আশ্রমপাড়ার সোমা দাসের। তবে যোগ্যদের তালিকায় তার নাম থাকলেও চাকরি জোটেনি তার। এর পরেই অন্যান্য চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে আন্দোলনে নামেন সোমা। দীর্ঘ আন্দোলনের পর গত শনিবার আদালতের নির্দেশে চাকরিতে যোগ দেন তিনি।

    আরও পড়ুন Kolkata News: ভিন্ন পেশায় থেকেও 'অঙ্গীকার'- বদ্ধ জন সেবায়, চিনে নিন এই গুণী মানুষদের

    সোমা দাস আন্দোলনরত চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে আলাদা ভাবে নজর কাড়েন৷ দু-দুবার ক্যান্সার আক্রান্ত হয়েও আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত থাকার কারণে। অবশেষে তার এই শারীরিক পরিস্থিতি এবং যোগ্যতার দিকটি নজর রেখে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় অবিলম্বে তাকে চাকরিতে নিয়োগের নির্দেশ দেন। আদালতের সেই নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে গত শনিবার তিনি নলহাটির মধুরা উচ্চ বিদ্যালয়ে বাংলা শিক্ষিকা হিসেবে নিযুক্ত হন।

    শনিবার স্কুলে গিয়ে শিক্ষিকা হিসাবে যোগ দেওয়ার পর সোমবার তিনি আসেন সিউড়ির বীরভূম জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক অফিসে। দীর্ঘ লড়াই এবং যন্ত্রণা সহ্য করার পর চাকরিতে যোগ দিতে পেরে স্বাভাবিকভাবেই একগাল হাসি লক্ষ্য করা যায় তার মুখে। তবে তার এখনো আক্ষেপ, যদি প্রত্যেক চাকরিপ্রার্থীরা একসঙ্গে যোগ দিতে পারতেন তাহলে এই হাসি, আনন্দ অনেকগুণ বেড়ে যেত। এর পরিপ্রেক্ষিতে তিনি আরও জানান, সময় পরিস্থিতির কারণে হয়তো আমি আমার যোগ্য অধিকার ফিরে পেয়েছি, কিন্তু এখনো যারা ওই আন্দোলনের মঞ্চে বসে রয়েছেন তাদের সকলের যোগ্য অধিকার না ফিরে পাওয়া পর্যন্ত সাফল্যের আনন্দ আমরা পাবো না।

    আরও পড়ুন Flyover in bad shape: উদ্বোধনের মাত্র চার দিনের মধ্যেই উঠে যাচ্ছে কামারকুন্ডু উড়ালপুলের রাস্তার পিচ

    এর পাশাপাশি সোমা এই প্রশ্নও ছুঁড়ে দেন, 'হাইকোর্ট এবং রাজ্য সরকারের তৎপরতায় যদি আমার নিয়োগ হতে পারে, তাহলে অন্যদের কেন নিয়োগ হবে না এই প্রশ্নও জাগছে।' তার কথা অনুযায়ী বাকিদেরও অতি দ্রুত নিয়োগ করা হোক, তাদেরও বঞ্চনা থেকে রক্ষা করে যোগ্য অধিকার দেওয়া হোক যাতে করে তারাও তার মত হাসিমুখে স্কুলে এবং ডিআই অফিসে আসতে পারেন।

    শনিবার নলহাটির মধুরা উচ্চ বিদ্যালয়ে চাকরিতে যোগদানের পর সোমবার সোমা দাস সিউড়িতে আসেন মূলত জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শক অফিসে তার নিয়োগের কাগজপত্র জমা দিতে। স্কুলে নিয়োগের কাগজপত্র খতিয়ে দেখার পর এই অফিসে কাগজ পত্র দেওয়া হয় এবং অ্যাপ্রুভালের আবেদন করা হয়। এই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যালয় পরিদর্শক তাকে দ্রুত অ্যাপ্রুভাল দেবেন বলে জানিয়েছেন বলেই জানা যায় সোমা দাসের মুখ থেকে। পাশাপাশি তাকে সেই অ্যাপ্রুভাল নিতে সুদূর নলহাটি থেকে সিউড়ি আসার প্রয়োজন নেই বলেও জানিয়েছেন বলে সোমার দাবি।

    Published by:Pooja Basu
    First published:

    Tags: Birbhum, South bengal news

    পরবর্তী খবর