Home /News /bankura /
Bankura: ঘুড়ি উৎসব তছনছ হয়ে গেল কালবৈশাখীর দাপটে

Bankura: ঘুড়ি উৎসব তছনছ হয়ে গেল কালবৈশাখীর দাপটে

আজ বৃহস্পতিবার দশহরা। এককথায় বাঁকুড়ার ঘুড়ি উৎসব। কোভিড অতিমারির দাপটে গত দুবছর ভাটা পড়ে ছিল বাঁকুড়ার দশহরে ঘুড়ি ওড়ানোর উৎসবে।

  • Share this:

    বাঁকুড়া : আজ বৃহস্পতিবার দশহরা। এককথায় বাঁকুড়ার ঘুড়ি উৎসব। কোভিড অতিমারির দাপটে গত দুবছর ভাটা পড়ে ছিল বাঁকুড়ার দশহরে ঘুড়ি ওড়ানোর উৎসবে। এবার পরিস্থিতি অনুকূল থাকায় ঘুড়ি কিনতে পড়ুয়াদের ভিড় ঘুড়ি পাড়ায়। টানা দুবছর পর শহরের রাসতলার ঘুড়ি পট্টির ঘুড়ি বিক্রেতাদের মুখে ফুটলো চওড়া হাসি। সকাল থেকেই ঘুড়ির দোকানমুখি ক্ষুদে থেকে কিশোর এমনকি যুবারাও। নিজের পছন্দের ঘুড়ি,লাটাই আর সুতো কিনতে ব্যস্ত সকলে। এবার প্লাস্টিকের ঘুড়ির চল বেশী। কারণ জলে বা ঘামে এই ঘুড়ি ছেঁড়ার তেমন আশঙ্কা নেই। তেমনি বৃষ্টির মধ্যেও এই ঘুড়ি ওড়ানো যায় অনায়াসে। তার ওপর নজর কাড়া থ্রি ডি ডিজিটাল প্রিন্ট এ ছোটা ভীম থেকে টম এন্ড জেরি বা অন্যন্য কার্টুনের ছবি ছাপা রয়েছে এই প্লাসটিক ঘুড়িতে। প্লাসটিক ঘুড়ির দাম ২ টাকা থেকে শুরু করে ২০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে। এর পাশাপাশি চিরাচরিত রঙ্গিন কাগজের ঘুড়িও আছে। আর আছে হাতে বানানো শহরের রামপুরের জাম্বো ঘুড়ি।

    এই জাম্বো ঘুড়ির দাম অবশ্য বেশি শুরুই ২০ টাকা থেকে। এর পর আকার অনুযায়ী বাড়বে দাম। বাঁকুড়া শহরে দশহরার দিন ঘুড়ি ওড়ানোর রেওয়াজ চলে আসছে যুগ, যুগ, ধরে। কলকাতায় বিশ্বকর্মা পুজোয়, আবার দুই মেদিনীপুরে পৌষ সংক্রান্তির দিন ঘুড়ি ওড়ানো হয়। তেমনি বাঁকুড়া জেলা জুড়ে ঘুড়ি ওড়ে দশহরার দিন। কথিত আছে এদিন ঘুড়ি ওড়ালে সাপের বিষও আকাশে উড়ে যায়। ফলে সাপের দংশনেও বিষ মুক্তি ঘটার কামনায় এই জেলায় মনসা পুজো ও ঘুড়ি ওড়ানোর প্রচলণ হয়।

    আরও পড়ুনঃ নার্সের শ্লীলতাহানীর চেষ্টায় ধৃত যুবকের ১৪দিনের জেল হেফাজত 

    নুতন প্রজন্মের যুবকরা মোবাইল গেম ছেড়ে আজকের দিন ঘুড়ি কাটাকাটির খেলায় মেতে উঠবে। সবাই চায় অন্যের ঘুড়ি কেটে ভো কাট্টা বলে চীৎকার করে নিজের জয়ের জানান দিতে৷ আর সেজন্যই ঘুড়ির লড়াইয়ে নামার আগে প্রস্তুতির ব্যস্ততাও নজরে পড়ল শহরের রাসতলার ঘুড়ি পট্টিতে। সকাল থেকে গরমকে উপেক্ষা করে ভর দুপুরেও ঘুড়ি ওড়িয়েছে টিন এজাররা।

    আরও পড়ুনঃ মাধ্যমিকে কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের সম্বর্ধনা দিল বাঁকুড়া জেলা পুলিশ

    একটু ভাত ঘুম দিয়ে ভেবেছিল বিকেলে মাতবে ঘুড়ি উৎসবে। কিন্তু কাল বৈশাখীর দাপটে তাদের সেই ইচ্ছে লন্ডভন্ড হয়ে গেল। কারণ বিকেল হতেই শহরে নামল কাল বৈশাখীর সাথে বজ্রপাতসহ বৃষ্টির তাণ্ডব। শহরজুড়ে গ্রীষ্মের তীব্র তাপদাহ থেকে কিছুটা স্বস্তি মিললেও বেদনার ছায়া শিশু মহলে। সকাল থেকে ঘুড়ি উড়ানোর সমস্ত প্ল্যান যেন বিকেলের কালবৈশাখী তছনছ করে দিলো।

    JOYJIBAN GOSWAMI
    First published:

    Tags: Bankura, Kalbaishakhi

    পরবর্তী খবর