CA পরীক্ষায় পাশ করে অটোচালক বাবার স্বপ্নপূরণ করল মেয়ে

চাটার্ড অ্যাকাউন্টের ফাইনাল পরীক্ষায় পাশ করেছেন ২৫ বছরের স্টেফি পেরেইরা ৷

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jan 27, 2017 03:22 PM IST
CA পরীক্ষায় পাশ করে অটোচালক বাবার স্বপ্নপূরণ করল মেয়ে
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jan 27, 2017 03:22 PM IST

#মুম্বই: সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে CA Final পরীক্ষার ফলাফাল ৷ প্রকাশিত হওয়া ফলাফাল পূর্ব মুম্বইয়ের ঘাটকোপরের পেরেইরা পরিবারে খুশির হাওয়া নিয়ে এসেছে ৷ চাটার্ড অ্যাকাউন্টের ফাইনাল পরীক্ষায় পাশ করেছেন ২৫ বছরের স্টেফি পেরেইরা ৷ গত দু’বছর ধরে CA পাশ করার চেষ্টা করছিলেন স্টেফি ৷ বাবা পেশায় অটো চালক ৷ টানাপোড়েনর সংসারে মেয়ে স্টেফিকে নিয়ে একরাশ স্বপ্ন দেখেছিলেন বাবা ফ্রান্সিস ৷ অভাব-অনটনের সংসারে মেয়ে স্টেফি ছিল বাবা মায়ের একমাত্র আশার আলো ৷ দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে সেই স্বপ্ন পূরণ হল ৷ চাটার্ড অ্যাকাউন্টের ফাইনাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে স্টেফি ৷

ঘাটকোপরের রামনিরঞ্জন ঝুনঝুলওয়ালা কলেজ থেকে বাণিজ্যে নিয়ে স্নাতক পাশ করে স্টেফি ৷ ছোট থেকেই মেধাবী ছাত্রী ছিলেন স্টেফি ৷ CA পরীক্ষা দেওয়ার জন্য বাবা তাকে বরাবরই উৎসাহ দিয়ে এসেছেন ৷ মা মীনা স্থানীয় একটি সোসাইটিতে পরিচারিকার কাজ করেন ৷ বাবা-মা ও বড় দিদির সঙ্গে ঘাটকোপরের লক্ষী নগরে একটি ছোট্ট ভাড়ার ফ্ল্যাটে থাকেন স্টেফির পরিবার ৷ প্রথম চেষ্টায় তিনি পরীক্ষায় পাশ করবেন ভেবেছিলেন ৷ কিন্তু প্রথম রাউন্ডে পাশ করলেও পরের রাউন্ডে মাত্র কয়েক পয়েন্টের জন্য আটকে যায় স্টেফি ৷ তবে হার মানেনি স্টেফি ৷ আরও উঠেপড়ে লাগেন স্বপ্নপূরণের জন্য ৷ অবশেষে ১৭ জানুয়ারি সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে ৷

স্টেফি জানান, ‘বাবা মায়ের এই স্বপ্ন পূরণ করতে পেরে আমি খুব খুশি ৷ আমার বাবা মা অত্যন্ত কঠিন লড়াইয়ের মধ্যে দিয়ে আমাদের বড় করেছে ৷ তবে সব সময় আমাদের উৎসাহ দিয়ে এসেছেন ৷ খেয়াল রেখেছেন যাতে আমাদের কোনও অসুবিধা না হয় ৷ আমার এই সাফল্য তাদের জন্য ৷’

ফ্রান্সিস মেয়ের সাফল্যে জানিয়েছেন, ‘আমি ক্লাস টেন অবধি পড়তে পেরেছি ৷ কিন্তু আমার মেয়েরা যাতে জীবনে সফল হয়, এবং তাদের পড়াশোনার ক্ষেত্রে   কোনও অসুবিধা না হয় সেই চেষ্টায় করে এসেছি ৷

মেয়ের সাফল্যের কথা জানতে পেরে আপ্লুত মা মীনা ৷ তিনি জানিয়েছেন, ‘এটা স্টেফির বাবার স্বপ্ন ছিল ৷ স্টেফিও দিনরাত পরিশ্রম করেছে এই স্বপ্নপূরণ করার জন্য ৷  দিনে ১৩ ঘণ্টা করে পড়ত। থানেতে একটি লাইব্রেরিতে গিয়ে পড়ত স্টেফি ৷’ তিনি আরও জানান, স্টেফি নিজের ট্যাক্স কনসালটেন্সি শুরু করেছেন। সেটাই এখন বাড়ানোর পরিকল্পনা করছেন তিন।

First published: 03:22:31 PM Jan 27, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर