Home /News /astrology /
Numerology: বাবার জন্য বয়ে আনে সৌভাগ্যের ডালি! দেবী লক্ষ্মীর আশীর্বাদ নিয়েই জন্মায় এই সব তারিখের জাতিকারা

Numerology: বাবার জন্য বয়ে আনে সৌভাগ্যের ডালি! দেবী লক্ষ্মীর আশীর্বাদ নিয়েই জন্মায় এই সব তারিখের জাতিকারা

বাবার জন্য বয়ে আনে সৌভাগ্যের ডালি! দেবী লক্ষ্মীর আশীর্বাদ নিয়েই জন্মায় এই সব তারিখের জাতিকারা

বাবার জন্য বয়ে আনে সৌভাগ্যের ডালি! দেবী লক্ষ্মীর আশীর্বাদ নিয়েই জন্মায় এই সব তারিখের জাতিকারা

ভাগ্য গণনার বিভিন্ন দিক রয়েছে। যেমন - অনেকে জ্যোতিষীদের কাছে গিয়ে হাত দেখান কিংবা জন্মের তারিখ ও সময় দিয়ে ভাগ্য গণনা করান। এ-ছাড়া ভাগ্য নির্ণয়ের আরও একটি দিক রয়েছে সেটা হল সংখ্যাতত্ত্ব (Numerology)।

  • Share this:

    কলকাতা: নিজের ভবিষ্যৎ দেখতে কিংবা জানতে কে না চায়। আসলে লেখাপড়া কেমন হবে, অথবা কেরিয়ারে কতটা সাফল্য আসবে এমনকী বিয়ের যোগ কেমন, সেই বিষয়টাও জানতে চান অনেকে। আর তার জন্য বহু মানুষ ভাগ্য গণনা করিয়ে থাকেন। তবে ভাগ্য গণনার বিভিন্ন দিক রয়েছে। যেমন - অনেকে জ্যোতিষীদের কাছে গিয়ে হাত দেখান কিংবা জন্মের তারিখ ও সময় দিয়ে ভাগ্য গণনা করান। এ-ছাড়া ভাগ্য নির্ণয়ের আরও একটি দিক রয়েছে সেটা হল সংখ্যাতত্ত্ব (Numerology)। অনেকে এই সংখ্যাতত্ত্বের উপরেও বিশ্বাস রাখেন।

    মূলাঙ্কের গণনা:

    সংখ্যাতত্ত্বের ক্ষেত্রে প্রথমেই নিজের সংখ্যা বা মূলাঙ্ক বেছে নিতে হয়। আর এর প্রক্রিয়াটা ভারি সহজ এবং মজারও বটে। সংখ্যাতত্ত্বের হিসেবে সব সময় ১ থেকে ৯ পর্যন্ত সংখ্যার কথা বলা হয়। অর্থাৎ কোনও জাতক-জাতিকাকে নিজের জন্মের তারিখ অনুযায়ী ১ থেকে ৯ পর্যন্ত সংখ্যার হিসেব কষতে হয়। বিষয়টা আরও সহজ ভাবেই বলা যাক। অনেকের জন্মের তারিখ ১ থেকে ৯ পর্যন্ত সংখ্যা হতেই পারে। কিন্তু যাঁরা ১০, ২১, ৩১ তারিখে জন্মান, তাঁদের ক্ষেত্রে হিসেবটা ঠিক কী রকম হতে পারে। ধরে নেওয়া যাক, কারওর জন্মের তারিখ ১৩। এ-ক্ষেত্রে ১ + ৩ করলে তার ফল হবে ৪। অর্থাৎ সেই ব্যক্তির জন্ম তারিখ অনুযায়ী মূলাঙ্ক ৪। আবার একই ভাবে কারও জন্মের তারিখ ২৭ হলে সে-ক্ষেত্রে ২ + ৭ করা হবে। আর এ-ক্ষেত্রে যেহেতু সেই যোগফল ৯ হচ্ছে, তা-হলে সেই ব্যক্তির জন্ম তারিখ অনুযায়ী মূলাঙ্ক ৯। এ-ভাবে জন্মতারিখ হিসেবে করে সহজেই নিজেদের মূলাঙ্ক নির্ণয় করা সম্ভব।

    আরও পড়ুন-দূর হবে জীবনপথের প্রতিবন্ধকতা, রাহুর দোষ কাটাতে এই গ্রহরত্নের জুড়ি মেলা ভার

    কোন কোন তারিখে জন্মানো জাতিকারা ৩ মূলাঙ্কের অধিকারিণী?

    আবার সংখ্যাতত্ত্ব গণনা করে সংখ্যা বিশারদরা বলছেন যে, ৩ মূলাঙ্কে জন্মানো কন্যা সন্তান বাবার জন্য সৌভাগ্য বয়ে আনে। কারণ এই মূলাঙ্কের জাতিকারা প্রসন্ন ভাগ্যের অধিকারী হয়ে থাকেন। তাই প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক, ৩ মূলাঙ্কের জাতিকা কারা? যাঁরা ৩, ১২, ২১ এবং ৩০ তারিখে জন্মেছেন, তাঁরাই হন ৩ মূলাঙ্কের জাতিকা।

    আসলে এঁরা সাধারণত মা লক্ষ্মীর আশীর্বাদধন্যা হয়ে থাকেন। ফলে জন্মের পর থেকেই এঁরা সৌভাগ্য বয়ে আনেন। এই মূলাঙ্কের জাতিকার জন্মের পরেই ঘরে এবং পরিবারে শুভ শক্তি প্রবেশ করে। দেবী লক্ষ্মীর আশীর্বাদে এঁদের জীবন সুখ, সমৃদ্ধি এবং আনন্দে ভরপুর থাকে। জীবনে কোনও কিছুর অভাব থাকে না। তবে হাত খুলে খরচ করার কারণে এঁরা সে-ভাবে সঞ্চয় করতে পারেন না।

    আরও পড়ুন- পান্না ধারণে ভাগ্য খোলে! তবে কাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য, পরার নিয়মই বা কী?

    এ তো গেল সুখ-সমৃদ্ধির কথা! এর পাশাপাশি ৩ মূলাঙ্কের জাতিকাদের নানা গুণ থাকে। যেমন- এঁরা সাধারণত পরিশ্রমী, বুদ্ধিমতী এবং দয়ার অধিকারিণী হয়ে থাকেন। আর নিজেদের লক্ষ্যে পৌঁছতে এঁরা কঠোর পরিশ্রম করে থাকেন। ফলে যে কাজ করবেন বলে এঁরা ঠিক করেন, সেই কাজ তাঁরা সুন্দর ভাবে সম্পন্ন করতে পারেন এবং সেই কাজের সাফল্যও তাঁদের কাছে আসে। এমনকী কেরিয়ারেও সাফল্যের শীর্ষেই থাকেন এই মূলাঙ্কের জাতিকারা। আবার পেশাগত জীবন এবং ব্যক্তি জীবনে ভারসাম্যও সুন্দর ভাবে বজায় রাখতে পারেন এঁরা। আবার যেহেতু এই মূলাঙ্কের জাতিকাদের নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা দুর্দান্ত, তাই কর্মক্ষেত্রে টিম লিডার হিসেবেও সফল হন এঁরা।

    এখানেই শেষ নয়, ৩ মূলাঙ্কের জাতিকারা অন্যদের সাহায্য করতেও সব সময় এগিয়ে যান। অন্য কারওর দুঃখে কেঁদে ওঠে এঁদের মন। নিজেরা স্বাধীনতা এবং স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গে বিলাসব্যসনে জীবন কাটাতে পছন্দ করেন। আর সব থেকে বড় বিষয় হল, কখনও কোনও বিষয়ে মাথা নোয়ান না এই মূলাঙ্কের জাতিকারা।

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published:

    Tags: Numerology

    পরবর্তী খবর