Zodiac Couples: কোন রাশির জাতক-জাতিকার সঙ্গে সম্পর্কে জীবন হবে মধুর? জন্মদিন মিলিয়ে দেখে নিন

Zodiac Couples that are Made in Heaven: জন্মদিন মিলিয়ে দেখে নেওয়া যাক কোন রাশির জাতক-জাতিকারা কাদের সঙ্গী হওয়ার পক্ষে একেবারে উপযুক্ত!

Zodiac Couples that are Made in Heaven: জন্মদিন মিলিয়ে দেখে নেওয়া যাক কোন রাশির জাতক-জাতিকারা কাদের সঙ্গী হওয়ার পক্ষে একেবারে উপযুক্ত!

  • Share this:

    Zodiac Couples that are Made in Heaven: বিয়ের আগে কোষ্ঠী মেলানোর রেওয়াজ কিন্তু খামোখা তৈরি হয়নি। জ্যোতিষশাস্ত্র আদতে ভর করে রয়েছে জন্মলগ্নে রাশি, গ্রহ, নক্ষত্রের প্রভাবের উপরে। এই বিষয়গুলি অনুসরণ করে গাণিতিক পথে নির্ধারণ করা হয় সম্ভাব্য যোটক। এই ব্যাপারে বেশ বড় ভূমিকা পালন করে রাশিচক্র। কেন না রাশি অনুসারে একেকজনের স্বভাব একেকরকম হয়। আর তার ভিত্তিতে বলে দেওয়া যায় যে কোন রাশির জাতক-জাতিকার সঙ্গে সম্পর্কে জীবন হবে মধুর!

    জন্মদিন মিলিয়ে দেখে নেওয়া যাক কোন রাশির জাতক-জাতিকারা কাদের সঙ্গী হওয়ার পক্ষে একেবারে উপযুক্ত!

    মেষ (Aries): মার্চ ২১ থেকে এপ্রিল ১৯। মেষ রাশির জাতক-জাতিকাদের স্বভাবে রয়েছে দুর্দান্ত প্রাণশক্তি। এঁরা রাশিচক্রের ফায়ার সাইনের অন্তর্গত। ফলে এঁদের সঙ্গে পাল্লা দিতে পারেন অপর দুই ফায়ার সাইন সিংহ এবং ধনু রাশির জাতক-জাতিকারা। হাওয়া যেমন আগুনকে বাড়িয়ে তোলে, ঠিক তেমন করেই এয়ার সাইন মিথুন এবং কুম্ভের সঙ্গে মেষ রাশির জাতক-জাতিকাদের সম্পর্ক সুখের হয়, এঁদের বাকপটুতায় এই রাশির জাতক-জাতিকার অহংবোধ তৃপ্ত হয়।

    বৃষ (Taurus): এপ্রিল ২০ থেকে মে ২০। আর্থ সাইনের অন্তর্গত বৃষ রাশির জাতক-জাতিকারা বাস্তববাদী, দায়িত্বপালনে দৃঢ় এবং ভালোবাসায় নিশ্চল হন। ফলে এঁদের সঙ্গে অন্য আর্থ সাইনের মিলন সুখের হয়। আবার জল যেমন মাটিকে পুষ্ট করে, তেমন করেই ওয়াটার সাইনের অন্তর্গত কর্কট এবং মীন রাশির জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে এঁদের সম্পর্ক পোক্ত হয়।

    মিথুন (Gemini): মে ২১ থেকে জুন ২০। মিথুন রাশির জাতক-জাতিকারা খুবই মিশুকে, বহির্মুখী স্বভাবের হয়ে থাকেন। এঁরা সব সময়ে হইচই করতে পছন্দ করেন। ঠিক এমন স্বভাব তুলা এবং কুম্ভ রাশিরও, ফলে এই দুই রাশির জাতক-জাতিকার সঙ্গে মিথুনের সম্পর্ক সুখের হয়। তবে মিথুনের ক্ষেত্রে একেবারে বিপরীত স্বভাবের মানুষই রোজযোটক, ফলে ধনু রাশির জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে এঁদের সম্প্রক সর্বাপেক্ষা ফলপ্রদ হয়।

    কর্কট (Cancer): জুন ২১ থেকে জুলাই ২২। কর্কট রাশির জাতক-জাতিকারা তাঁদের সংবেদনশীল স্বভাবের জন্য প্রসিদ্ধ, সম্পর্কে বিশ্বাস এঁদের আদর্শের ভিত্তি। এই দিক থেকে সমমনস্ক তুলা এবং মীন রাশির জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে এঁরা ভালো থাকেন। যদিও কর্কট রাশির মূল্যবোধের সঙ্গে পাল্লা দেওয়ার জন্য মকর রাশির জাতক-জাতিকাদের চেয়ে উপযুক্ত কেউ হন না।

    সিংহ (Leo): জুলাই ২৩ থেকে অগস্ট ২২। সিংহ রাশির জাতক-জাতিকারা স্বভাবে উগ্র, সব সময়ে এঁরা মনোযোগ পেতে ভালোবাসেন। আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্বের জন্য এঁদের পক্ষে সকল রাশির জাতক-জাতিকার সম্পর্কই মধুর হয়। তবে আর্থ সাইনের অন্তর্গত ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে সম্পর্ক স্থায়ী হয়। আবার কুম্ভ রাশির জাতক-জাতিকারা স্বভাবে বিপরীত হলেও দয়ালু স্বভাবের জন্য তাঁরা সিংহ রাশির জাতক-জাতিকার মনোযোগ কেড়ে নেন। বলা হয়, এক্ষেত্রে সম্পর্কে সিংহ রাজা হলে কুম্ভ থাকে রানির জায়গায়।

    কন্যা (Virgo): অগস্ট ২৩ থেকে সেপ্টেম্বর ২২। কন্যা রাশির জাতক-জাতিকারা পারফেকশনিস্ট, এঁরা সব সময়েই অন্যদের কাজের খুঁত ধরে ফেলেন। তাই এঁদের সঙ্গে সম্পর্কে টিঁকে থাকতে পারেন কেবল নম্র, বাস্তববাদী, সর্বংসহা আর্থ সাইনের ব্যক্তিরা। অবশ্য, ওয়াটার সাইনের ব্যক্তিদের সঙ্গেও এঁদের সম্পর্ক মধুর হয়, জল যে পাত্র অনুসারে রূপ বদলায়!

    তুলা (Libra): সেপ্টেম্বর ২৩ থেকে অক্টোবর ২২। তুলা রাশির জাতক-জাতিকাদের সামাজিক বোধ খুব তীব্র, এঁরা মিশুকে স্বভাবের হয়ে থাকেন। তাছাড়া এঁদের স্বভাবের অন্যতম বৈশিষ্ট্য শান্তিপ্রিয়তা। বলা হয়, ফায়ার এবং এয়ার সাইনের ব্যক্তিদের সঙ্গে এঁদের সম্পর্কের ভিত শক্ত হয়, সচরাচর এই মেলবন্ধন ভাঙতে দেখা যায় না।

    বৃশ্চিক (Scorpio): অক্টোবর ২৩ থেকে নভেম্বর ২১। বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকারা যেমন ব্যক্তিস্বাতন্ত্র্যে বিশ্বাসী, তেমনই আবেগপ্রবণ বলে এঁরা ভালোবাসেন প্রাণ খুলে। এই আবেগপ্রবণতা তাঁদের স্বভাবে আগুনের মতো জ্বলে বলেই ফায়ার সাইনের সঙ্গে এঁদের মিলন রমণীয় হয়। তেমনই আবার জীবনে স্থিতিশীলতা এনে দেওয়ার জন্য আর্থ সাইন, বিশেষ করে বৃষ রাশির জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে এঁদের সম্পর্কও পোক্ত হয়।

    ধনু (Sagittarius): নভেম্বর ২২ থেকে ডিসেম্বর ২১। ধনু রাশির জাতক-জাতিকারা স্বভাবে বহির্মুখী এবং অভিযানপ্রিয় হয়ে থাকেন, এঁরা জীবনের নিস্তরঙ্গ মুহূর্ত একেবারে বরদাস্ত করতে পারেন না। এই দিক থেকে সিংহ এবং মেষ রাশি এঁদের উৎসাহের আগুনে যেন ঘি ঢালেন! তবে সম্পর্কের রসায়নের আসল জাদু তখনই দেখা যায়, যখন ধনু এবং মিথনরা পরস্পরকে খুঁজে পান, সমমনস্ক বলে এঁরা পরস্পরকে সারা জীবন অফুরন্ত সমর্থন জোগাতে পারেন।

    মকর (Capricorn): ডিসেম্বর ২২ থেকে জানুয়ারি ১৯। মকর রাশির জাতক-জাতিকারা আর্থ সাইনের অন্তর্গত, ফলে এঁরা জীবনের স্থিতিশীলতায় বিশ্বাসী, সুন্দর জীবনযাপনের ল্যে এঁদের প্রতিটি পদক্ষেপ হয়। ফলে আর্থ সাইন বৃষ এবং কন্যার সঙ্গে এঁদের দাম্পত্য সমমনস্ক হওয়ার জন্য সুখের হয়। তবে উভয়েই জীবনের মূল্যবোধ এবং আদর্শে বিশ্বাসী বলে মকর রাশির জাতক-জাতিকার সঙ্গে কর্কট রাশির জাতক-জাতিকার সম্পর্ক সব চেয়ে সুখের হয়।

    কুম্ভ (Aquarius): জানুয়ারি ২০ থেকে ফেব্রুয়ারি ১৮। কুম্ভ রাশির জাতক-জাতিকারা এঁদের মানবিক মূল্যবোধ এবং সমাজের প্রতি দায়িত্বশীলতার জন্য বিখ্যাত। বলা হয়, এঁদের চিন্তাভাবনার সঙ্গে পাল্লা দিতে পারেন বলে মিথুন এবং তুলা রাশির জাতক-জাতিকারা এঁদের পক্ষে জুটি হিসেবে যথাযথ। তবে সিংহ রাশির জাতক-জাতিকার সঙ্গে কুম্ভ রাশির জাতক-জাতিকারা সব চেয়ে স্বচ্ছন্দ বোধ করেন।

    মীন (Pisces): ফেব্রুয়ারি ১৯ থেকে মার্চ ২০। ওয়াটার সাইনের অন্তর্গত মীন রাশির জাতক-জাতিকারা স্বভাবে ইনট্যুইটিভ, আবার জীবনকে বেঁধে রাখতে চান বাস্তবের জমিতে যুক্তিবোধের দ্বারা, ভালোবাসার দিক থেকে এঁরা খুবই আবেগপ্রবণ হয়ে থাকেন। বলা হয়, কর্কট এবং ধনু রাশির জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে এঁদের সম্পর্ক সুখের হয়। তবে সর্বাধিক মধুর সম্পর্ক এঁদের হয় একমাত্র কন্যা রাশির জাতক-জাতিকার সঙ্গে, উভয় ক্ষেত্রেই মত বিনিময়ের পথ অত্যন্ত জোরালো হয় বলে।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: