সপ্তমী, অষ্টমী ও নবমীতে ছেলেদের সাজ হবে কেমন ? জানাচ্ছেন ডিজাইনার অভিষেক দত্ত

সপ্তমী, অষ্টমী ও নবমীতে ছেলেদের সাজ হবে কেমন ? জানাচ্ছেন ডিজাইনার অভিষেক দত্ত
ছবি: নিউজ এইটিন ৷

পুজোর আর জাস্ট কয়েকটাদিন বাকি ৷ শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি তুঙ্গে ৷ কেনাকাটা তো অনেক আগে থেকেই শুরু হয়েছে ৷ কিন্তু কী বলছে পুজোর ফ্যাশন ? এবারের পুজোতে ছেলেদের কেমন পোশাক হওয়া উচিত সে সম্পর্কে খোঁজ-খবর দিলেন ফ্যাশন ডিজাইনার অভিষেক দত্ত ৷

  • Share this:

#কলকাতা: পুজোর চারটেদিন বছরের অন্য সময়গুলো থেকে বিলকুল আলাদা ৷ এই দিনগুলোতে একটু কেতাদুরস্ত সাজে নিজেকে সাজিয়ে না তুললে কী চলে? মোটেই না ৷ পুজোর কয়েকটাদিন স্টাইল আর কেতায় তো থাকতেই হবে ৷ নিজেকে এক্কেবারে আলাদা ভাবে সাজিয়ে না তুলতে তো পুরো পুজোটাই মাটি ৷ তবে ভরা শরতের গরম কিন্তু একফোঁটাও কমেনি ৷ বরং গরমের তেজ অনেকটাই বেশি ৷ মাঝে মধ্যেই বৃষ্টি নামলেও গরম বাবাজির কিন্তু নট নড়ন চড়ন ৷ পুজোর সময় অঞ্জলি দিয়ে আবার বন্ধুদের সঙ্গে রেস্তোরাঁয় উদরপূর্তি করতে ঢু দেওয়া ৷ সবটাই তো করতে হবে ৷ তাঁর জন্য এনার্জি যেমনটা চাই তেমনই চাই আরামদায়ক পোশাক ৷

সপ্তমীর সাজ

সপ্তমী মানে হল পুজোটা সবে শুরু হয়েছে ৷ বন্ধু-বান্ধব কিংবা প্রেমিকার হাত ধরে প্যান্ডেল হপিংয়ের দিন ৷ অথবা সন্ধেবেলায় খাওয়া দাওয়া সেরে রাত জেগে ঠাকুর দেখার প্ল্যানও রয়েছে ৷ পুরো ব্যাপারটা মজার হলেও বড্ড হ্যাপা ৷ তাই সপ্তমীর সাজটা একটু ক্যাজুয়াল রাখাই ভাল ৷ তবে ক্যাজুয়াল মানেই যে টি-শার্ট বা জিনস তা নয় ৷ এখন ওয়েস্টার্ন পোশাকের ধরনটাও অনেকটা বদলে গিয়েছে ৷ গত কয়েক বছর ধরেই সামার জ্যাকেটটা ইন ৷ এর সঙ্গে মিলিয়ে জোধপুরী প্যান্ট পরা যেতে পারে ৷ এর সঙ্গে বিভিন্ন স্টাইলের জ্যাকেট চলতে পারে ৷ তা স্লিভলেস বা উইথ স্লিভ হতেই পারে ৷

F19

তবে হ্যাঁ এবার আলাদা বলতে প্রিন্ট প্রচণ্ডভাবে ফ্যাশন ইন ৷ এতদিন ফ্লোরাল প্রিন্ট ছেলেদের পোশাকের ট্রেন্ডে ছিলই ৷ এবার থেকে দেখা যাচ্ছে অ্যানিমেল প্রিন্টের পোশাক ৷ অর্থাৎ পোশাকে বিভিন্ন জীব-জন্তুর প্রিন্ট থাকছে ৷ বার্ড প্রিন্টটাও ফ্যাশন ইন ৷ ইয়াং জেনারেশন পুজোর সময় প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে ঘুরে বেড়ায় এমনটা কিন্তু নয় ৷ পার্টিটাও চলে পুরোদস্তুর ৷ তাই এমন কিছু পোশাক পরা উচিত যাতে পুজোয় ঘোরার পাশাপাশি পার্টিতেও যাওয়া যায় ৷

অষ্টমীর সাজ

অষ্টমীর দিন ট্রাডিশনাল লুক রাখাটাই হল বেস্ট ৷ সকালে অঞ্জলির পর বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা, আর দুপুরে বন্ধুদের সঙ্গে ভোগ খাওয়া ৷ এ সব তো করতে হবে নাকি! পুজোর চারটেদিনের মধ্যে অষ্টমীটা হল বাঙালির কাছে একটু বেশিই স্পেশ্যাল ৷ কিন্তু হ্যাঁ, ট্রাডিশনাল বলতে এক্কেবারে পুরনো ধাঁচের পোশাক নয় ৷ পোশাকের একটু নতুনত্বের ছোঁয়া থাকাটা জরুরি ৷ সেই কারণে কুর্তায় একটু ড্রিপড স্টাইল কিংবা অ্যাসিমেট্রি হলে দারুণ লাগবে ৷ ধুতির বদলে ধোতি প্যান্ট, জোহেব প্যান্ট, হ্য়ারম প্যান্ট পরা যেতে পারে ৷ পাঞ্জাবির বোতামগুলো এক্কেবারে সোজাসুজি না হয়ে একটু সাইডে থাকতে পারে ৷

নবমীর সাজ

নবমী মানেই পুজো প্রায় শেষের পথে ৷ মনের কোণায় একটু দুঃখ, পুজোর সময় চুটিয়ে মজা করার এটাই শেষদিন ৷ আবার একটা বছর অপেক্ষা করতে হবে ৷ তাই এদিনের সাজটা একটু সিম্পল কিন্তু চোখ টানে এমন হওয়া উচিত ৷ যা পরলে আপনার সামনের মানুষটা অনেকদিন পর্যন্ত এর রেশটা মনে রাখতে পারে ৷ ড্রিপড কুর্তা পরুন ৷ তাঁর উপরে একটু জমকালো কাজ করা নেহরু জ্যাকেট পরতে পারেন ৷ আবার নেহরু জ্যাকেটের বদলে বন্ধগলাও হতে পারে ৷ ওপেন জ্যাকেটও হতে পারে ৷ মোদ্দা কথা একটু ভেঙেচুরে সাজটা নিজের মতো করে সুন্দর করে সাজতে হবে ৷

রংমিলান্তি

এ বছর লাল, নীল বা ঝকঝকে রং এক্কেবারে আউট অফ ফ্যাশন ৷ তার জায়গায় কিছু প্যাস্টেল রং, যা ওতোটা জমকালো নয়, চোখকে আরাম দেয়-এমন রং বেছে নেওয়া উচিত ৷ যে রংগুলো এবারের পুজোকে ইন কোরাল পিঙ্ক ৷ টিল্ট ব্লু ৷ মাস্টার্ড ৷

ফেভারিট ফ্যাব্রিক

লিনেন ৷ সুতি ৷ লাইক্রা ৷

মডেল: সত্যব্রত মণ্ডল ৷ মেকআপ: কৌশিক দাস ৷

First published: October 2, 2018, 4:44 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर