এবার মেল অথবা এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিটেও চড়া যাবে রাজধানী-শতাব্দী-দুরন্ততে

কোনও গিমিক নয়, এমনটাই জানাচ্ছে ভারতীয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ৷

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Mar 22, 2017 01:19 PM IST
এবার মেল অথবা এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিটেও চড়া যাবে রাজধানী-শতাব্দী-দুরন্ততে
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Mar 22, 2017 01:19 PM IST

#নয়াদিল্লি: কোনও গিমিক নয়, এমনটাই জানাচ্ছে ভারতীয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ৷ রেলওয়ের নয়া স্কিম অনুযায়ী, মেল অথবা এক্সপ্রেসের টিকিট কেটেও জুটতে পারে রাজধানী বা শতাব্দীর মতো ট্রেনে সফরের সুযোগ ৷ লাগবে না কোনও অতিরিক্ত টাকা ৷ পয়লা এপ্রিল থেকে চালু হতে এই নয়া নিয়ম ৷

বিস্তারিতভাবে বলতে গেলে রেলওয়ে টিকিট বুকিংয়ের ক্ষেত্রে যাত্রীদের সুবিধার জন্য ‘বিকল্প’ নামে এক নয়া স্কিম চালু করতে চলেছে ভারতীয় রেলওয়ে ৷ মেল বা এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট নির্ধারিত দিনে যাত্রার আগেও কনফার্ম না হলে, ওয়েটিং লিস্টে থাকা যাত্রীরা গন্তব্যে পৌঁছনোর জন্য বিকল্প ট্রেন হিসেবে রাজধানী, দুরন্ত ও শতাব্দীতে সফর করতে পারেন ৷

একইসঙ্গে এই ‘বিকল্প’ প্রকল্পের বিশেষত্ব হল, এর জন্য যাত্রীদের কোনও অতিরিক্ত টাকা গুণাগার দিতে হবে না ৷ মেল বা এক্সপ্রেস ট্রেনের নির্দিষ্ট টিকিটের মূল্য খরচ করেই যাত্রা করতে পারেন ৷

‘বিকল্প’ প্রকল্পের মাধ্যমে মেল বা এক্সপ্রেস ট্রেনের ওয়েটিং লিস্টে থাকা যাত্রীদের মেজর রুটে রাজধানী, দুরন্ত ও শতাব্দীর মতো প্রথম সারির ট্রেনগুলিতে খালি থাকা সিট বা বার্থগুলি দেওয়া হবে ৷

আসলে প্রতি বছর বিভিন্ন কারণে টিকিট বাতিলের জন্য রেলের বহু টাকা ক্ষতি হয় ৷ রেল জানিয়েছে, প্রতিবছর যাত্রীদের টিকিট ক্যানসেলেশন চার্জ হিসেবে প্রায় সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকা ফেরত দিতে হয় রেলকে ৷ যেখানে সিট খালি না থাকার কারণে যাত্রীদের যাত্রা ব্যাহত হয়, সেখানে বহু প্রথম সারির ট্রেনে বহু খালি আসন থেকে যায় ৷ এই প্রকল্পের মাধ্যমে ওয়েটিং লিস্টে যাত্রীদেরও যেমন আসন দেওয়া যাবে, তেমনি টিকিট বাতিলের হারও কমবে ৷

খরচ ও ক্ষতি দুই কমাতে এবং যাত্রীদের সুবিধার্থেই এই ‘বিকল্প’ প্রকল্প চালু করছে রেল ৷ পয়লা এপ্রিল থেকেই এই সুবিধা পাবেন যাত্রীরা ৷ অনলাইন বুকিং ছাড়াও কাউন্টার থেকে টিকিট কাটলেও মিলবে এই সুবিধা ৷ এর ফলে রেলের লাভ আরও বাড়বে বলেই আশা করছেন কর্মকর্তারা ৷

First published: 01:19:12 PM Mar 22, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर