স্বামীর পরকীয়ার প্রতিবাদ ! স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার চক্রান্ত স্বামীর, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা গৃহবধূর

ঘরের দরজা বন্ধ করে স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে পুড়িয়ে মেরে ফেলার চেষ্টায় অভিযুক্ত স্বামী

News18 Bangla
Updated:Nov 08, 2018 08:55 AM IST
স্বামীর পরকীয়ার প্রতিবাদ ! স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার চক্রান্ত স্বামীর, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা গৃহবধূর
News18 Bangla
Updated:Nov 08, 2018 08:55 AM IST

#বনগাঁ: দীপাবলির আলো ম্লান, মায়ের পায়ে মাথা ঠুকে মানত একটাই মেয়েকে ফিরিয়ে দাও মঙ্গলবার সারা দেশ যখন দীপাবলির আলোর রোশনাইয়ে আনন্দে মাতোয়ারা ৷ ঠিক তখনই আধপোড়া মেয়েকে সুস্থ করে ফেরাতে মায়ের কাছে মাথা ঠুকে চলেছেন সত্তোর উর্ধ্ব বৃদ্ধ বাবা-মা ৷ ঘরের বিছানায় পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে মেয়ে ৷ বনগাঁ থানার শক্তি গড় এলাকার বাসিন্দা বছর আশির কেনারাম দাস ও তাঁর স্ত্রী রাণু দাস ৷

বছর কুড়ি আগে কল্যাণী থানার গয়েশ পুর এলাকায় বিশ্বনাথ নামে এক যুবকের সঙ্গে ছোট মেয়ে মীনার বিয়ে দিয়েছিলেন কেনারামবাবু ৷ বিয়ের পর থেকেই স্ত্রীর ওপর অত্যাচার করতেন স্বামী ৷ দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই করে নীরবে দিনের পর দিন স্বামীর অত্যাচার সহ্য করেছে মীনা ৷ বৃদ্ধ বাবা মা যাতে কষ্ট না পাই সেই জন্য কখনও বাপের বাড়ির কাউকে স্বামীর অত্যাচার জানতে দেয়নি ৷ স্বামীর পরকীয়ায় প্রতিবাদ করেছিলেন গৃহবধূ ৷ এই তাঁর অপরাধ ৷

সেই অপরাধে গত ২২ অক্টোবর রাতে ঘরের দরজা বন্ধ করে স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে পুড়িয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করে অভিযুক্ত স্বামী ৷ জ্বলন্ত শরীরে মীনার চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে ঘরের দরজা ভেঙে তাঁকে উদ্ধার করে কল্যাণী হাসপাতালে নিয়ে যায় ৷ ঘটনার খবর পেয়ে মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে ছুটে গিয়েছিল বৃদ্ধ বাবা কেন রাম ও মা রাণুদেবী ৷

হাসপাতালে কিছুদিন রাখার পর মেয়ে মীনাকে নিয়ে বাপের বাড়িতে চলে আসেন বৃদ্ধ বাবা মা ৷ বর্তমানে বাপের বাড়িতে আধপোড়া শরীর নিয়ে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন গৃহবধূ ৷ বাড়ির মন্দিরে মায়ের পায়ে মাথা ঠুকে মানত করেছেন মা রাণুদেবী ৷ মেয়ে সুস্থ হলে তবেই দীপাবলির প্রদীপ জ্বলবে ৷ আবার আলোর রোশনাইয়ে ফুটে উঠবে গোটা বাড়ি ৷

First published: 08:03:53 AM Nov 08, 2018
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर