ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকেই কি যৌনাঙ্গে অস্ত্রের কোপ, বিধাননগরে বৃদ্ধ খুনে নয়া তথ্য

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Dec 15, 2017 08:52 AM IST
ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকেই কি যৌনাঙ্গে অস্ত্রের কোপ, বিধাননগরে বৃদ্ধ খুনে নয়া তথ্য
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Dec 15, 2017 08:52 AM IST

#কলকাতা: বিধাননগরে বৃদ্ধ খুনে নয়া তথ্য ৷ খুনের মোটিভ জানতে জিজ্ঞাসাবাদ ৷ ছেলে ও বড় মেয়ে, জামাইকে জিজ্ঞাসাবাদ ৷ জেরা করা হচ্ছে নিহতের স্ত্রীকেও ৷ নিরাপত্তারক্ষীদেরও জেরা করা হবে ৷

জিজ্ঞাসাবাদ বিধাননগর উত্তর থানায় ৷ ঘটনাস্থল থেকে উধাও বৃদ্ধের মোবাইল ৷ খোয়া গিয়েছে সোনার বালা, আংটি ৷ নিহতের বাড়িতে ফ্রিজ খোলা ছিল ৷ বাড়িতে মিলেছে ২-৩টি মদের গ্লাস ৷ গ্যাস জ্বলছিল, বাথরুমে গিজার চালু ছিল ৷ রাতে বাড়িতে ২-৩ জন ছিল বলে অনুমান পুলিশের ৷

সল্টলেকে খুন অবসরপ্রাপ্ত ইনজিনিয়র। শরীরে গভীর ক্ষত। যৌনাঙ্গে ধারাল অস্ত্রের কোপ। সম্পত্তির লোভেই অভিজিৎ নাগ চৌধুরীকে খুন করা হয় বলে পুলিশের অনুমান। সন্দেহ পরিচারিকা ও ভাড়াটিয়ার দিকে। উঠে আসছে বিবাহ বহির্ভুত সম্পর্কের প্রসঙ্গও। পরিবারের বাকি সদস্যদের দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ।

দিনে দুপুরে সল্টলেকে খুন অবসরপ্রাপ্ত ইনজিনিয়র। বিডি ব্লকের এই বাড়িতেই থাকতেন অভিজিৎ নাগ চৌধুরী। বৃহস্পতিবার বিকেলে সিড়িতে পড়ে থাকতে দেখা যায় নিথর দেহ। তাঁর হাতের শিরা কাটা ছিল। যৌনাঙ্গে ধারালো অস্ত্রের কোপ। বাড়ির মালিককে এই অবস্থায় দেখে পরিবারের বাকি সদস্যদের ও পুলিশে খবর দেন এক ভাড়াটিয়া।

বিধাননগর উত্তর থানার পুলিশ গিয়ে দেহ উদ্ধার করে। কর্মসূত্রে বিভিন্ন বিমান সংস্থার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন অভিজিৎবাবু। বাড়ির একাংশ একটি সংস্থাকে বিক্রি করে দেন তিনি। এছাড়াও দুই ভাড়াটিয়া আছেন। এক মেয়ের বিয়ে হয়ে গেলেও আরেক মেয়ে ও ছেলেকে নিয়ে শ্যামপুকুরে থাকতেন নিহতের স্ত্রী। এখানেই সন্দেহের ডানা বেঁধেছে। পুলিশের অনুমান

খুনের সম্ভাব্য কারণ

- সম্পত্তির লোভেই খুন করা হতে পারে

- (অভিযোগ) অভিজিৎবাবুর নারী আসক্তির কারণেই একসঙ্গে থাকতেন না স্ত্রী, সন্তান

- মাত্রাতিরিক্ত মদপান করতেন (তিনি)

- প্রতিবেশীদের সঙ্গেও সুম্পর্ক ছিল না

- (তবে এক) ভাড়াটিয়ার সঙ্গে সুসম্পর্ক ছিল অভিজিৎ নাগ চৌধুরীর

- রান্নার জন্য লোক রাখা ছিল

ঘটনাস্থলে যান বিধাননগর কমিশনারেটের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা। উদ্ধার ছুড়ি, মদের বোতল। মিলেছে জুতোর ছাপ। নিহতের স্ত্রী, ছেলে-মেয়ে এবং জামাই ছাড়াও ম্যরাথন জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় রান্নার লোককে। কিন্তু পুলিশে খবর দিলেও, বেপাত্তা সঞ্জয় নামে এক ভাড়াটিয়া। ফলে তাঁকে ঘিরেও সন্দেহ বাড়ছে পুলিশের।

First published: 08:52:34 AM Dec 15, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर