২জি মামলার রায় ঘোষণার পর কংগ্রেসের নিশানায় বিজেপি

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Dec 22, 2017 09:26 AM IST
২জি মামলার রায় ঘোষণার পর কংগ্রেসের নিশানায় বিজেপি
Both DMK leaders A Raja and Kanimozhi have been acquitted in the 2G case. (Network18 Creatives)
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Dec 22, 2017 09:26 AM IST

#নয়াদিল্লি: টুজি মামলার রায় প্রকাশ্যে আসতেই শুরু রাজনৈতিক চাপানউতোর। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের মন্তব্য, ভিত্তিহীন অভিযোগে ইউপিএ সরকারকে কাঠগড়ায় তোলা হয়েছিল। এই রায়ে সেটাই প্রমাণিত হল। কংগ্রেসের দাবি, তৎকালীন সিএজি বিনোদ রাইয়ের সমস্ত অভিযোগই মিথ্যে প্রমাণিত হয়েছে। দেশবাসীর কাছে তাঁর ক্ষমা চাওয়া উচিত। বিজেপির পাল্টা, কংগ্রেস দেখাতে চাইছে আদালত তাদের নীতিকে সততার সার্টিফিকেট দিয়েছে।

টুজি,কমনওয়েলথ,কয়লার ব্লক বন্টনে দুর্নীতির অভিযোগে দ্বিতীয় ইউপিএ সরকারের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে লাগাতার প্রচার। ২০১৪ লোকসভা ভোটেও এসব কেলেঙ্কারিকেই পাখির চোখ করেছিলে বিজেপি। ফলও পেয়েছিল হাতেনাতে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমকে ব্যক্তিগতভাবে নিশানা করে আদালতে টেনে আনার মরিয়া চেষ্টাও করা হয়েছিল। টুজি রায় বেরনোর পর স্বাভাবিকভাবেই মুখ খুলেছেন তারা। চিদম্বরমের দাবি, সরকারের উচ্চস্তর যে দুর্নীতিতে যুক্ত ছিল না সেটাই প্রমাণ হয়েছে। মনমোহনের প্রতিক্রিয়া, অভিযোগের যে কোনও ভিত্তি ছিল না তা রায়ে প্রমাণ হয়েছে।

রায়ের পর অস্বস্তিতে বিজেপি। দু'হাজার বারো সালে সুপ্রিমকোর্টের রায়কে হাতিয়ার করেই সাফাই দিতে হচ্ছে তাদের। কংগ্রেসকে অরুণ জেটলির খোঁচা, আদালতের রায়কে যেন সততার সার্টিফিকেট বলে মনে না করে কংগ্রেস।

গত নভেম্বরে চেন্নাইতে গিয়ে ডিএমকে প্রধান করুণানিধির সঙ্গে দেখা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিনের রায়ের পর সেই প্রসঙ্গ ফের সামনে এসে পড়েছে। বিজেপি জমানাতে ডিএমকে নেতানেত্রীদের আদালতের ক্লিনচিট কী কোনও অন্য সমীকরণের ইঙ্গিত দিচ্ছে? তবে ডিএমকের কার্যনির্বাহী সভাপতি এম কে স্তালিন পরিস্কার করে দিয়েছেন ইউপিএতেই আছেন তারা।

ডিএমকের পাশেই রয়েছে কংগ্রেস। এই বার্তা পৌঁছে গিয়েছে কানিমোঝিদের কাছেও। রায়ের পর ডিএমকে নেত্রীকে ফোন করেন মনমোহন সিং, রাহুল গান্ধী। পরে দিল্লিতে তাঁর বাড়িতে গিয়ে দেখা করেন গুলাম নবি আজাদ, আনন্দ শর্মা।

First published: 09:26:18 AM Dec 22, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर