বনেদিয়ানা ও বাবুয়ানির মিশেল মেমারির বিষয়ী বাড়ির পুজো

বাণিজ্য বসতে লক্ষ্মী। মেমারির বিষয়ী পরিবারে লক্ষ্মীর নিত্য যাতায়াত। জমিদার ব্রজগোপাল বিষয়ীর দুর্গাদালানে দুশো বছরের প্রাচীন দুর্গাপুজো।

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Sep 23, 2017 02:02 PM IST
বনেদিয়ানা ও বাবুয়ানির মিশেল মেমারির বিষয়ী বাড়ির পুজো
Representational Image
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Sep 23, 2017 02:02 PM IST

#মেমারি: বাণিজ্য বসতে লক্ষ্মী। মেমারির বিষয়ী পরিবারে লক্ষ্মীর নিত্য যাতায়াত। জমিদার ব্রজগোপাল বিষয়ীর দুর্গাদালানে দুশো বছরের প্রাচীন দুর্গাপুজো। এ পুজোয় ক্ষয়িষ্ণু জমিদারবাড়ির ছবি নেই। আছে ঐতিহ্য। বনেদিয়ানা। প্রাচীন রীতিনীতির সঙ্গে আড়ম্বরের মিশেলে জমজমাট বিষয়ীদের দুগ্গাদালান।

আজ থেকে প্রায় দুশো বছর আগের ঘটনা। জমিদার ব্রজগোপাল বিষয়ী মুর্শিদাবাদ থেকে চলে আসেন বর্ধমানে। পেশায় বস্ত্র ব্যবসায়ী বিষয়ীরা ঠাকুরদালানে শুরু করেন দুর্গাপুজো । মেমারিতে এসে ব্যবসা শুরু করেন তাঁরা । ধীরে ধীরে বাড়ে ব্যবসা। দ্রুত লক্ষ্মীলাভ হয় । বাড়ে দুর্গাপুজোর আড়ম্বর।

সেদিনের জাঁকজমক, আড়ম্বর কিছুটা কমেছে ঠিকই। তবে বনেদিয়ানায় ঘাটতি পড়েনি। আজও ছবির মত সাজানো রঙীন দুর্গাদালান। একচালার সুন্দর প্রতিমা নজর টানে।

উলু, শঙ্খধ্বনির মধ্যে দিয়ে তিন-তিনবার ঘট আসে বিষয়ীদের ঠাকুরদালানে। অষ্টমীতে বলিদানের সময়ে একশো আটটি প্রদীপে অর্ঘ্যদান হয়। সধবাদের ধুনো পোড়ানো থেকে বিসর্জনের সিঁদুরখেলা। একটা সময়ে মহিলারা পুরুষদের তুলনায় কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও, এখন পুজোর দায়িত্বে থাকেন পরিবারের মহিলা সদস্যরা।

মেমারি জুড়ে ছড়িয়ে বিষয়ীদের শরিকরা। পুজো হয় তাঁদের বাড়িতেও। এছাড়াও পুজো হয় বেশ কয়েকটি বনেদি বাড়িতেও। আগে কার পুজোর দম বেশি তাই নিয়ে রীতিমত প্রতিযোগিতা চলত। এখন সে চল নেই। তার বদলে নবমীর দিন আজও বাজনা বাজিয়ে, ঢাকের তালে শোভাযাত্রা করে সপরিবারে বিষয়ীরা অন্য বনেদি বাড়ির নিমন্ত্রণ রক্ষা করতে যান। বনেদিয়ানার সঙ্গে বাবুয়ানির মিশেলে আজও উজ্জ্বল মেমারির বিষয়ীবাড়ির পুজো।

First published: 01:59:56 PM Sep 23, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर