জনসংখ্যা বাড়ার সঙ্গেই টান পড়ছে ভূগর্ভস্থ জলের ভাণ্ডারে, আশঙ্কায় বিজ্ঞানীরা !

Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Aug 19, 2017 07:31 PM IST
জনসংখ্যা বাড়ার সঙ্গেই টান পড়ছে ভূগর্ভস্থ জলের ভাণ্ডারে, আশঙ্কায় বিজ্ঞানীরা !
Photo : AFP
Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Aug 19, 2017 07:31 PM IST

#কলকাতা: প্রতিবছর ২২ মার্চ বিশ্ব জল দিবস পালন করা হয়। কিন্তু জলের অপচয় নিয়ে সচেতনতা কিছুই তেমন নেই। জনসংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মাটির নীচের জলের ভাণ্ডারেও টান পড়ে। কোনও পরিকল্পনা ছাড়াই গ্যালন গ্যালন জল তুলে নেওয়ায় আশঙ্কিত বিশেষজ্ঞরা। মাটির নীচের জলভাণ্ডার যত ক্ষয়িষ্ণু হবে, তত বাড়বে দূষণ। ভবিষ্যতে এমন একটা দিন আসতে পারে, যখন তৃষ্ণা মেটানোর জল জোটানোও দুষ্কর হয়ে পড়বে। হুঁশিয়ারিও দিয়ে রেখেছেন তাঁরা।

জলের অভাব

সারা পৃথিবীতে ৬৬.৩ কোটি মানুষ নিরাপদ পানীয় জলের অভাবে ভোগেন

এত সংখ্যক মানুষের বাড়ির কাছাকাছি পানীয় জলের কোনও ব্যবস্থা নেই ৷

পানীয়যোগ্য জল

পৃথিবীর মোট জলের ৯৭ শতাংশ হল সমুদ্রের নোনা জল ৷ এই ৯৭ শতাংশই পানের অযোগ্য ৷ বাকি ৩ শতাংশের মধ্যে ২ শতাংশ বরফ হয়ে হিমবাহ বা অন্য জায়গায় জমে রয়েছে ৷ পৃথিবীতে মানুষের ব্যবহারের জন্য রয়েছে মাত্র ১ শতাংশ জল ৷

বিয়ার তৈরিতে জলের অপচয়

বিশাল পরিমাণ জলের অপচয় হয় বিয়ার কারখানায় ৷ এক পিন্ট বিয়ার তৈরি করতে ২০ গ্যালন জল লাগে ৷

জলের অপচয়

একটি সাধারণ নল দিয়ে মিনিটে ২ গ্যালন করে জল বের হয় ৷দাঁত ব্রাশ করার সময়ে কলের মুখ বন্ধ করে রাখলেই দিনে চার গ্যালন করে জল বাঁচানো সম্ভব ৷ বিভিন্ন পাবলিক টয়লেটে দিনে গড়ে ২০০ গ্যালন করে জল নষ্ট হয় ৷

দূষিত জল

বিশ্বে ১৮০ কোটি মানুষ দূষিত জল পান করেন ৷ সারা পৃথিবীতে ২৫০ কোটি মানুষ উন্নত শৌচাগারের সুবিধা পান না ৷ প্রবল জলকষ্টই এর অন্যতম কারণ ৷

জলে বিষ

পশ্চিমবঙ্গের ভূগর্ভস্থ জলে আর্সেনিক ও ফ্লোরাইডের দূষণ ছড়াচ্ছে ৷ ভূগর্ভের জলস্তর যত নামবে, তত বাড়বে এই দুই দূষণ ৷

নামছে জলস্তর

ফি বছর রাজ্যের ১৭৪টি ব্লকে ২০ সেন্টিমিটার করে জলস্তর নেমে যাচ্ছে ৷ পশ্চিমবঙ্গের ৩৮টি জেলায় ভূগর্ভস্থ জলস্তর আধা-সঙ্কটাপন্ন ৷

নোংরা জল ও মৃত্যু

প্রতিবছর নোংরা জল ব্যবহার করে ও শৌচাগারের অভাবে সারা বিশ্বে ৮ লক্ষ ৪২ হাজার মানুষ মারা যান ৷ সারা বিশ্বে বিশুদ্ধ জল ও শৌচাগার থাকলে মোট রোগ ৯.১ শতাংশ হারে কমত ৷ বছরে মৃত্যুর হার ৬.৩ শতাংশ হারে কমত ৷

First published: 07:31:36 PM Aug 19, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर