পার্ক তৈরির সময় মাটি খুঁড়তে বেরোল দুটি মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ !

Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Oct 28, 2017 04:15 PM IST
পার্ক তৈরির সময় মাটি খুঁড়তে বেরোল দুটি মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ !
Photo: News18 Bangla
Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Oct 28, 2017 04:15 PM IST

#গলসি: পার্কের জন্য মাটি খুঁড়তে গিয়ে উদ্ধার হয়েছে দুটি প্রাচীন মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ। গলসির জুজুটি গ্রামের সেই মন্দির ঘিরেই স্থানীয়দের উৎসাহ তুঙ্গে। কীভাবে মাটিতে চাপা পড়ল দুটি মন্দির ? মন্দিরের প্রতিষ্ঠাতাই বা কে ? এমন অনেক প্রশ্নই ঘুরছে মানুষের মনে।

দামোদরের পাড়ে গলসির জুজুটি। গ্রামে পার্ক তৈরির সিদ্ধান্ত নেয় ভূরি পঞ্চায়েত। পার্কের জন্য মাটি খুঁড়তে গিয়ে বেরিয়ে এল দুটি মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ। কীভাবে মাটির তলায় চাপা পড়ে গেল দুটি মন্দির ? ইতিহাসবিদের বিশ্লেষণে উঠে এল বহু অজানা তথ্য।

মাটির তলায় মন্দির -

-- অতীতে বর্ধমান শহরের ভূমিতল দামোদরের জলস্তরের তুলনায় নীচু ছিল

-- বহুবার বন্যার কবলে পড়ে বর্ধমানের এই এলাকা

-- বন্যা থেকে বাঁচার জন্য প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় দামোদরের পাশে বাঁধ দেওয়া হয়

-- দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ওই বাঁধ আরও উঁচু করা হয়

-- জুজুটি গ্রামের পাশ দিয়ে বাঁকা নদী পর্যন্ত খাল কাটা হয়

-- খাল কাটার মাটি মন্দিরের গায়ে ফেলা হয়

-- ধীরে ধীরে এই এলাকা থেকে জনবসতিও সরে যায়

-- সম্ভবত খালের মাটিতে চাপা পড়ে দুটি মন্দির

বাংলার আটচালা আদলে মন্দির দুটি সম্ভবত মহাদেবের । দামোদরের পাড়ে আরও মন্দির আছে বলেই মনে করা হচ্ছে। স্থানীয় মানুষের উদ্যোগে অষ্টাদশ শতকে মন্দিরগুলির নির্মাণ করা হয়। বর্ধমানের রাজারাও নাকি আসতেন এই মন্দিরগুলিতে পুজো দিতে।

মন্দির দু'টির সময়কাল নিয়ে নিশ্চিত হতে সেখানে খননকাজ চালানোর ভাবনা চিন্তা করছে পুরাতত্ব বিভাগ। ভারতীয় পুরাতত্ত্ব বিভাগের প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল ঘুরে যায়। স্থানীয় মানুষের আশা, এই মন্দিরগুলির দৌলতে জুজুটি গ্রাম ভবিষ্যতে পর্যটনকেন্দ্র হয়ে উঠতে পারে।

vlcsnap-2017-10-28-16h13m05s187

First published: 04:15:20 PM Oct 28, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर