তিন তালাক নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দিকে তাকিয়ে দেশবাসী

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:May 11, 2017 04:01 PM IST
তিন তালাক নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দিকে তাকিয়ে দেশবাসী
Photo : AFP
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:May 11, 2017 04:01 PM IST

#নয়াদিল্লি: তিন তালাকের বৈধতা নিয়ে আজ শুনানি সুপ্রিম কোর্টের সাংবিধানিক বেঞ্চে। ইসলাম ধর্মের সঙ্গে এর কোনও মৌলিক সম্পর্ক আছে কিনা তা খতিয়ে দেখবে শীর্ষ আদালত। একইসঙ্গে তিন তালাকের ব্যবহার কোনও নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকারের মধ্যে আদৌ পড়ে কিনা তা নিয়েও রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট।

নিকাহ হালালের মতো প্রথা মুসলিম সম্প্রদায়ের মহিলাদের অধিকার, সম্মান ও আত্মমর্যাদা খর্ব করছে কিনা তাও খতিয়ে দেখবে ওই বেঞ্চ। তবে তিন তালাক ছাড়া বহুগামিতা বিষয় নিয়ে শুনানি চলবে না বলে স্পষ্ট করেছে শীর্ষ আদালত।

সংবিধানের ২৫-এর ক ধারা মানলে তিন তালাকের ব্যবহার মুসলিম নারীর অধিকার, সম্মান এবং আত্মমর্যাদার উপর আঘাত। এই বিষয়টি সামনে রেখেই তিন তালাক নিয়ে আলাদা আলাদা ভাবে শীর্ষ আদালতে পাঁচটি রিট পিটিশন দাখিল হয়। তিন তালাক অসাংবিধানিক বলে ইতিমধ্যেই শীর্ষ আদালতকে জানিয়েছে কেন্দ্রের আইনজীবী।

সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ এ নিয়েই ঐতিহাসিক রায় দিতে চলেছে। আগামী পাঁচ দিনের মধ্যে তিন তালাকের বৈধতা নিয়ে মতামত জানিয়ে দেবে সুপ্রিম কোর্ট। নজিরবিহীন ভাবে পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চে রয়েছেন প্রধান বিচারপতি ছাড়া আরও চার জন বিচারপতি। পাঁচ বিচারপতিরই আলাদা আলাদা বিশ্বাস এবং ধর্মমতের প্রতিনিধিত্ব করছেন।

মুসলিম শরিয়ত আইনের ‘তিন তালাক’ বিধি ও ইউনিফর্ম সিভিল কোড নিয়ে দ্বন্দ্ব ও বিতর্ক বহু পুরনো ৷ শরিয়ত কানুন বিশেষজ্ঞদের মতে, শরিয়ত আইনের তালাক বিধি একটি সামাজিক ব্যবস্থা, যাকে সংবিধান ও আইন বৈধতা দিয়েছে ৷ কিন্তু এতে মুসলিম মহিলাদের প্রতি অবিচার করা হচ্ছে বলে বহুদিন ধরেই এমন দাবি উঠছে ৷

মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পর ও দলীয় স্তরে বিজেপি এই প্রথা নিষিদ্ধ করার জন্য সওয়াল করেন ৷ এই প্রচেষ্টায় মুসলিমদের ধর্মীয় স্বার্থে আঘাত করা হচ্ছে বলে প্রতিবাদ জানায় মুসলিম সমাজ ৷ একইসঙ্গে এই প্রথা নিষিদ্ধ করা হলে জোর করে রাজনীতির নামে শরিয়তের আইন বদলানো হলে তার পরিণাম ভালো হবে না বলে হুঁশিয়ারিও দেয় মুসলিম ল বোর্ড ৷

সম্প্রতি ভুবনেশ্বরেও মোদি মুসলিম মহিলাদের সমর্থনে তিন তালাক প্রথার অবসানের কথা বলেছিলেন মোদি ৷ কোনও বিভেদ বিভাজন না রেখে সকলে যেন ন্যায়বিচার পায় সেটাই মূল লক্ষ্য হওয়ার বার্তা দিয়েছিলেন তিনি ৷ মুসমিল মহিলাদের উপর যেন কোনও অত্যাচার না হয়, তাদেরও ন্যায়বিচার দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি ৷

First published: 11:22:55 AM May 11, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर