অভিনব কায়দায় সোনা পাচার ! দমদম বিমানবন্দরে ধৃত ইঞ্জিনিয়ার

Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Nov 14, 2017 08:34 PM IST
অভিনব কায়দায় সোনা পাচার ! দমদম বিমানবন্দরে ধৃত ইঞ্জিনিয়ার
কলকাতা বিমানবন্দরে সোনা পাচারের অভিযোগে ধৃত ব্যক্তি
Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Nov 14, 2017 08:34 PM IST

#কলকাতা: অভিনব কায়দায় সোনা পাচার করতে গিয়ে দমদম বিমানবন্দরে ধৃত বহুজাতিক সংস্থার এক ইঞ্জিনিয়ার। সোনার তৈরি ড্রিল মেশিন নিয়ে দুবাই থেকে কলকাতা পৌঁছন ওই যুবক। ওজন দেখে সন্দেহ হয় শুল্ক দফতরের কর্তাদের। জিজ্ঞাসাবাদেই ফাঁস হয় আসল তথ্য। ওই ইঞ্জিনিয়ারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সোনা পাচার করতে নতুন ছক। কিন্তু, শেষরক্ষা হল না। মঙ্গলবার সকালে দুবাই থেকে দমদম বিমানবন্দরে নামে ইকে ৫৭০ নামে একটি বিমান। সোনা পাচারের অভিযোগে গ্রেফতার করা হল সেই বিমানের এক যাত্রীকে।ধৃতের নাম রতন সিং ৷  তিনি একটি বহুজাতিক সংস্থার ইঞ্জিনিয়ার বলে জানিয়েছে পুলিশ ৷

রতন সিংয়ের লাগেজ গ্রিন চ্যানেল পেরনোর সময় সন্দেহ হয় শুল্ক দফতরের কর্মীদের। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন তাঁরা। রতনের ট্রলি ব্যাগের ভিতরেই ছিল একটি ড্রিল মেশিন। জানা যায়, ড্রিল মেশিনের মোটরটিই খাঁটি সোনার।

রতনের ব্যাগ থেকে তিন কেজি সোনা উদ্ধার হয়েছে। যার বাজারমূল্য প্রায় এক কোটি টাকা। অভিনব কায়দা হলেও, শেষপর্যন্ত শুল্ক দফতরের চোখে ধুলো দিতে পারেনি ওই পাচারকারী। ভেস্তে গিয়েছে সোনা পাচারের ছক।

এদিন সকাল ৭ টা ২০ মিনিট নাগাদ দুবাই থেকে কলকাতায় পৌঁছয় ওই ব্যক্তি ৷ পাসপোর্ট দেখে দেখা যায় অভিযুক্ত ব্যক্তি শনিবার দুবাই গিয়েছিল ৷ মাত্র এক-দেড়দিনের ব্যবধানেই কলকাতায় ফিরে আসে ৷ এত কম দিনের জন্য কেন সে দুবাই গিয়েছিল ৷ তাতেই গোয়েন্দাদের প্রাথমিক সন্দেহ হয় ৷ পরে জেরা করলে অভিযুক্ত ব্যক্তি জানায়, সে নাকি চাকরি খোঁজার জন্য দুবাই গিয়েছিল ৷ হাতে থাকা প্যাকেজের ওজোন ৭.৬ কেজি ছিল ৷ ব্যাগ তল্লাশির পর দেখা যায় সেটির ওজোন ৯.৬ কেজি ওজোন ৷ এতে সন্দেহ আরও বাড়ায় ব্যাগে থাকা জিনিসপত্র তল্লাশি করে সেগুলি কারখানায় নিয়ে গিয়ে পরীক্ষা করার পর সোনার অস্তিত্ব ধরা পড়ে ৷

vlcsnap-2017-11-14-18h38m41s193

First published: 07:22:53 PM Nov 14, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर