তিলোত্তমা ‘কলকাতা’ ছাড়াও রয়েছে আরও এক কলিকাতার অস্তিত্ব, জানেন কোথায় ?

Jul 13, 2017 05:10 PM IST | Updated on: Jul 13, 2017 05:17 PM IST

#কলকাতা: কলিকাতা আছে কলিকাতাতেই। রবি ঠাকুর যতই রাতের স্বপ্নে হাওড়া ব্রিজ, হ্যারিসন স্ট্রিট, ট্রাম, মনুমেন্টে ঘেরা কলিকাতাকে দেখুন না কেন। তাঁর চেনা কলিকাতার বাইরেও যে আরও এক কলিকাতা আছে । তার খবর কি জানতেন বিশ্বকবি? গড়ের মাঠ। কালিঘাট। ধর্মতলা। বউবাজার । এসব কিছু আছে সেই কলিকাতাতেও। জানেন কি কোথায় সেই অন্য কলিকাতা ?

‘একদিন রাতে আমি স্বপ্ন দেখিনু

‘চেয়ে দেখো’ ‘চেয়ে দেখো’ বলে যেন বিনু

চেয়ে দেখি, ঠোকাঠুকি বরগা কড়িতে

কলিকাতা চলিয়াছে নড়িতে নড়িতে’

সেই কবে লিখেছিলেন রবি ঠাকুর। সদা ব্যস্ত সেই কলিকাতা, থুরি, কলকাতার খুব কাছেই আছে আরও এক কলিকাতা। সেও চলে নড়িতে নড়িতে। তবে দুলকি চালে। কিছুটা অলসভাবে।

হাওড়ায় দামোদর নদের তীরে আমতা থানার রসপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের একটা আপাত নিরীহ গ্রাম। নাম তার কলিকাতা। নাম মাহাত্মেই সে ব্যতিক্রমী । পাঁচশো বছরের পুরনো এই কলিকাতার নামের পিছনের ইতিহাসটাও বেশ মজার। চুন ও শামুকখুরি ছিল এ গ্রামের রুজি রোজগার। লোকশ্রুতি, লর্ড ক্লাইভ নাকি এখানে এসে গ্রামের নাম জিজ্ঞাসা করেছিলেন । ইংরেজি বুঝতে না পেরে গ্রামের সরল মানুষগুলো বলে ফেলেছিলেন , কলি-চুন। সাহেবরা ধরেই নিয়েছিলেন কলি-কাতা । কারণ কলি মানে চুন। কাতা মানে শামুক খুড়ি । সেই থেকেই কলিকাতা।

দামোদরের তীরে একসময়ের জমজমাট বাণিজ্যনগরী । আজ অবশিষ্ট কিছুই নেই। শুধু নাম টুকু ছাড়া। নাই বা থাকুক কসমোপলিটন স্টেটাস। এ গ্রামেও আছে ধর্মতলা, কালীঘাট, গড়ের মাঠ। বউ বাজার। আছে মণ্ডলপাড়া, চুনরিপাড়া, পূব দেয়াশী পাড়া। নিজেদের কলিকাতাবাসী বলতে ভারী গর্ব বাসিন্দাদের।

গ্রামেই ছিল নীলকুঠি। চলত নীল চাষ। যাওয়া আসা ছিল সাহেবসুবোদের। দাদাঠাকুর শরৎচন্দ্র পণ্ডিত বলেছিলেন, কলকাতা যে কেবল ভুলে ভরা । আমতার এই কলিকাতা ভুলে ভরা কিনা জানা নেই। তবে অহঙ্কার নেই। বিশ্বকবির কথায়,

‘লক্ষ লক্ষ লোক বলে থামো থামো

কোথা হতে কোথা যাবে এ কী পাগলামো

কলিকাতা শোনে না কো চলার খেয়ালে

নৃত্যের নেশা তার স্তম্ভে দেওয়ালে’

না.....এ নেশায় আজও মজেনি এক চিলতে এই কলিকাতা।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES