রায়গঞ্জে আদিবাসীদের বিক্ষোভে ভাঙচুর করা হয় দোকানপাট, প্রতিবাদে আজ পথে ব্যবসায়ীরা

Jul 15, 2017 11:43 AM IST | Updated on: Jul 15, 2017 03:56 PM IST

#রায়গঞ্জ: দোকান ভাঙচুরের প্রতিবাদে বনধের ডাক ব্যবসায়ীদের। সেই বনধকে কেন্দ্র করে শনিবার ফের উত্তপ্ত রায়গঞ্জ। সকাল থেকে দফায় দফায় বিক্ষোভ। রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ ব্যবসায়ীদের। অবরোধ তুলতে গেলে পুলিশের সঙ্গে বচসা। পুলিশ সুপারকে ঘিরে বিক্ষোভ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নামানো হয় কমব্যাট ফোর্স।

চার আদিবাসী মহিলাকে ধর্ষণে অভিযোগ। প্রতিবাদে তির,ধনুক,হাঁসুয়া, বল্লম হাতে আদিবাসীদের মিছিল ঘিরে শুক্রবার রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় রায়গঞ্জ। দোকানপাট-বাস স্ট্যান্ডে অবাধে ভাঙচুর চালায় বিক্ষোভকারীরা।

রায়গঞ্জে আদিবাসীদের বিক্ষোভে ভাঙচুর করা হয় দোকানপাট, প্রতিবাদে আজ পথে ব্যবসায়ীরা

এর প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের বনধের ডাক দেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। শনিবার সেই বনধকে কেন্দ্র করে ফের অশান্ত হয় ওঠে রায়গঞ্জ।

বনধকে ঘিরে সকাল থেকেই থমথমে ছিল রায়গঞ্জ শহর। রাস্তায় নামেনি কোনও সরকারি বাস। খোলেনি দোকানপাট। একাধিক জায়গায় টায়ার জ্বালিয়ে, বাঁশ দিয়ে আটকে বিক্ষোভ দেখান ব্যবসায়ীরা।

সকাল ১০টা। অবরোধ তুলতে আসে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। নামানো হয় কমব্যাট ফোর্স। অবরোধ তুলতে গেলে পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান ব্যবসায়ীরা। দুই পক্ষের মধ্যে বচসা বেধে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লাঠিচার্জ করে পুলিশ।

বেলা ১২টা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলতে যান উত্তর দিনাজপুরের পুলিশ সুপার। তাঁকে ঘিরেও বিক্ষোভ দেখান ব্যবসায়ীরা। ভাঙচুরের ঘটনায় সঠিক ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন তিনি।

নিজেদের অবস্থানে অনড় থেকে এদিন ফের পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ এনেছে ব্যবসায়ী সংগঠন।

বেলা বাড়ার সঙ্গে কিছুটা ঠাণ্ডা হয় পরিস্থিতি। যদিও নতুন করে গন্ডগোলের আশঙ্কায় রায়গঞ্জের বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES