ডাইনি সন্দেহে আদিবাসী মহিলাকে মারধর, গ্রাম থেকে তাড়ানোর হুমকি

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 23, 2017 07:05 PM IST
ডাইনি সন্দেহে আদিবাসী মহিলাকে মারধর, গ্রাম থেকে তাড়ানোর হুমকি
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 23, 2017 07:05 PM IST

#দুর্গাপুর: কাঁকসার মুনেরকোঁদা গ্রামে কয়েকদিন আগে দু’জনের মৃত্যু হয় । আর এতেই চরম বিপদে পড়েছে এক আদিবাসী পরিবার । গ্রামবাসীর সন্দেহ, ওই পরিরবারের এক মহিলা ডাইনি । তাঁর কারণেই দু'জনের মৃত্যু হয়েছে ।

এই সন্দেহে ওই পরিবারের উপর কয়েকদিন ধরে অত্যাচার চলছে বলে অভিযোগ । সোমবার ওই মহিলা সহ তাঁর পরিবারের সকলকে মারধর করে গ্রামবাসীরা । অভিযোগ তাদের বাড়িতে চড়াও হয় গ্রামের অন্যান্যরা । এই পরিবারকে গ্রাম থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার হুমকিও দেওয়া হয় ।

গ্রামবাসীর অভিযোগ, সম্প্রতি গ্রামে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে । আর মৃত্যুর কারণ এই আদিবাসী মহিলা । তাদের ধারণা, আদিবাসী মহিলা রাতের অন্ধকারে এলাকায় ঘুরে বেড়ান, এক এক জনের নাম করে ঝাড়ফুঁক করেন । পরে সেই ব্যক্তি বা মহিলার মৃত্যু হয় । তাই গ্রামের বাসিন্দারা সিদ্ধান্ত নেন, ডাইনির হাত থেকে গ্রামকে বাঁচাতে বের করে দিতে হবে ওই পরিবারকে । অভিযোগ এরপরই শুরু হয় অত্যাচার । দু’মাস ধরে একঘরে করে রাখা হয়েছিল আদিবাসী পরিবারটিকে । তাদের পুকুরে স্নান করতে দেওয়া হত না । এমনকী মাঠে কাজও করতে দেওয়া হত না বলে অভিযোগ । গত তিনদিন ধরে বেড়েছিল অত্যাচারের মাত্রা । সোমবার দুপুরে তা চরমে পৌঁছয় । আদিবাসী পরিবারের অভিযোগ, গতকাল দুপুর তিনটে নাগাদ গ্রামবাসীরা তাদের বাড়িতে ইট, পাটকেল ছুঁড়তে শুরু করে । রান্নাঘের গিয়ে ফেলে দেওয়া হয় রান্না করা ভাত । ইটের আঘাতে আহত হয় আদিবাসী মহিলার আড়াই বছরের নাতিও ।

পরিস্থিতি ক্রমে আরও খারাপ হচ্ছে দেখে প্রতিবেশী এক মহিলা গোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান অর্পিতা ঢালিকে বিষয়টি জানান । তিনি গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করলে উন্মত্ত গ্রামবাসী তাঁর দিকেও তেড়ে আসে, এবং তাকে সেখান থেকে চলে যাওয়ার জন্য বলে । অবশেষে কাঁকসা থানায় খবর দেন অর্পিতাদেবী । পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে । উদ্ধার করে আক্রান্ত আদিবাসী মহিলাকে এবং তাঁর আহত নাতিকে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায় ।

পুলিশ এবং পঞ্চায়েত প্রধানের উপস্থিতিতে গ্রামের মোড়লদের নিয়ে একটি বৈঠক ডাকার সিদ্ধান্ত হয় । বৈঠকে থাকবে আক্রান্ত আদিবাসী পরিবারও । কাঁকসা থানা সূত্রে জানা গিয়েছে এখন গ্রামের পরিবেশ শান্ত । তবে ফের যাতে সমস্যার সৃষ্টি না হয় তার জন্য কড়া নজর রাখা হচ্ছে ।

First published: 07:05:08 PM May 23, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर