সোনারপুরে ছাত্রীকে ধর্ষণ করে খুনের ঘটনায় ধৃতের পুলিশি হেফাজত

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 07, 2017 07:08 PM IST
সোনারপুরে ছাত্রীকে ধর্ষণ করে খুনের ঘটনায় ধৃতের পুলিশি হেফাজত
Representative image.
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 07, 2017 07:08 PM IST

#সোনারপুর: সোনারপুরে ধর্ষণ করে ছাত্রী খুনের ঘটনায় ধৃত অমিত রায়ের পুলিশ হেফাজত। মঙ্গলবার বারুইপুর আদালতে তোলা হলে তাকে ১০ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। এদিন ধৃতের বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় স্থানীয়রা। এলাকায় বসানো হয়েছে পুলিশ পিকেট। অমিত ছাড়া আর কেউ ঘটনায় জড়িত কি না তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সোমবার সোনারপুরের লেনিননগরে বাড়ির ভিতর উদ্ধার হয় মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর রক্তাক্ত দেহ। ছাত্রীকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী। তদন্তে নেমে ছাত্রীর প্রেমিকসহ ১১জনকে আটক করে পুলিশ। দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদের পর অমিত রায় নামে এলাকার এক যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। সূত্রের খবর,

- অমিতের গলায় আচড়ের দাগ দেখে সন্দেহ হয় পুলিশের

- জিজ্ঞেস করা হলে কোনও সদুত্তর দিতে পারেনি সে

- অমিতের মেডিক্যাল টেস্ট করা হয়

- দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদের পর ছাত্রীকে খুনের কথা স্বীকার করে সে

রাতেই তাকে গ্রেফতার করে সোনারপুর থানার পুলিশ। মঙ্গলবার বারুইপুর আদালতে তোলা হলে তাকে ১০ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। এদিকে অমিত রায় গ্রেফতার হতেই, ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন স্থানীয়রা। কালীবাজারে অমিত রায়ের বাড়িতে গিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, সারাদিন মত্ত অবস্থায় থাকত অমিত, পাড়ার মেয়েদেরও নানাভাবে বিরক্ত করত সে। এলাকার একটি ভাঙা স্কুল বাড়িতেই কার্যত ঠেক বানিয়ে ফেলেছিল অমিত।

পরে সোনারপুর থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকায় পুলিশ পিকেট বসানো হয়। যদিও ছাত্রী খুনের ঘটনায় অমিত ছাড়াও অন্য কেউ জড়িত কি না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্থানীয়রা। সেই দিকটিও খতিয়ে দেখছে সোনারপুর থানার পুলিশ।

First published: 07:08:05 PM Feb 07, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर