জেলাজুড়ে ফের রেশন কার্ড নিয়ে বড়সড় গোলমালের হদিশ

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:May 02, 2017 04:21 PM IST
জেলাজুড়ে ফের রেশন কার্ড নিয়ে বড়সড় গোলমালের হদিশ
Photo : AFP
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:May 02, 2017 04:21 PM IST

#বাঁকুড়া: জেলাজুড়ে ফের রেশন নিয়ে বড়সড় গোলমালের হদিশ ৷ তালিকা থেকে বাদ চলে গিয়েছে বহু গ্রাহকের নাম । রেশন না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন গ্রাহকরা ।

২০০৮ সালে বাঁকুড়া জেলাতেই প্রথম জ্বলে উঠেছিল রেশন আন্দোলনের আগুন । পরবর্তীকালে তা ছড়িয়ে পড়ে রাজ্যের অন্যত্রও । এবার সেই রেশন সরবরাহ নিয়েই বড়সড় গণ্ডগোলের হদিশ মিলল বাঁকুড়া জেলাতে ।

সম্প্রতি খাদ্য দফতরের প্রকাশিত অনলাইন গ্রাহক তালিকায় বাদ পড়েছে জেলার হাজার হাজার মানুষ । রেশন না পেয়ে শুরু হয়েছে বিক্ষোভও । গত কয়েক সপ্তাহ ধরে রেশন দ্রব্য না মেলায় মঙ্গলবার বাঁকুড়া ১ নম্বর ব্লকের খাদ্য সরবরাহ দফতরে মোলবনা গ্রামের গ্রাহকদের ক্ষোভ আছড়ে পড়ে । দীর্ঘক্ষণ ধরে তাঁরা বিক্ষোভ দেখান ওই দফতরে ।

বাঁকুড়া এক নম্বর ব্লকের মোলবনা গ্রামে রাজ্য খাদ্য সাথী যোজনায় রেশন গ্রাহকের সংখ্যা সব মিলিয়ে ৬৯৪ জনের কাছাকাছি । প্রায় সকলেরই ডিজিটাল রেশন কার্ড মেলায় এতদিন ধরে রেশন পেতে কোনও সমস্যা হয়নি । মাস খানেক আগে আচমকাই ওই গ্রামের রেশন ডিলার জানিয়ে দেন খাদ্য দফতরের সদ্য প্রকাশিত তালিকায় মাত্র ৩৬ জন গ্রাহকের নাম থাকায় বাকিরা আর রেশন পাবেন না । এরপরই রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ জমতে শুরু করে । এই ঘটনা শুধু মোলবনা গ্রামের ক্ষেত্রেই হয়েছে এমনটা নয় । রেশন ডিলার অ্যাসোসিয়েশনের দাবি খাদ্য দফতরের সদ্য প্রকাশিত অনলাইন গ্রাহক তালিকায় জেলার বহু রেশন দোকানেই আশ্চর্যজনক ভাবে কমে গিয়েছে গ্রাহকের সংখ্যা ।

তালিকায় গ্রাহক সংখ্যা কমে যাওয়ায় দোকান গুলিতে বরাদ্দের পরিমাণও কমেছে । ফলে ডিজিটাল রেশন কার্ড থাকা স্বত্বেও তালিকায় নাম না থাকায় ওই গ্রাহকদের রেশন দ্রব্য দেওয়া যাচ্ছে না । জেলা খাদ্য দফতরে এনিয়ে একাধিক অভিযোগ জমা পড়তেই নড়ে চড়ে বসেছে খাদ্য দফতর । ক্যামেরার সামনে খাদ্য দফতরের আধিকারিকরা মুখ খুলতে না চাইলেও জানা গিয়েছে বিষয়টি ইতিমধ্যেই লিখিত ভাবে রাজ্য স্তরে জানিয়েছে বাঁকুড়া জেলা প্রশাসন । তালিকায় বাদ পড়ে যাওয়া গ্রাহকরা সত্যি সত্যি বাদ পড়েছে নাকি অন্য কোনও ডিলারের তালিকায় চলে গিয়েছে সেই বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে  ।

First published: 04:21:32 PM May 02, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर