মনুয়াকে ঘিরে বিক্ষোভ আদালতে

May 27, 2017 01:43 PM IST | Updated on: May 27, 2017 05:26 PM IST

#বারাসত: মনুয়ার প্রতি এখনও বেঁচে অজিতের প্রেম। প্রেমে অন্ধ অজিত মনুয়ার উপর যেন কোনও আঁচই আসতে দেবে না। পুলিশ হেফাজত শেষে শনিবার বারাসত আদালতে পেশ করা হয় মনুয়া ও অজিতকে। দু’জনের ফাঁসির দাবিতে আদালত চত্বরে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়রা। সেই সময় প্রিজন ভ্যানের মধ্যেই  একেবারে সিনেমার কায়দায় নিজের জামা খুলে মনুয়ার মুখ ঢেকে দেয় অজিত। স্থানীয়দের বিক্ষোভের সময় আক্রান্ত হন অভিযুক্তদের আইনজীবী। মনুয়া ও অজিতের চোদ্দ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয় বারাসত আদালত।

মনুয়ার জন্য বোধহয় সবকিছুই করতে পারেন। মনুয়ার প্রেমে অন্ধ হয়ে তাঁর স্বামী অনুপমকে সরিয়ে দিতে একবারের জন্যও হাত কাঁপেনি অজিতের। প্রেমিকার আবদার রাখতে অনুপমের অন্তিম আর্তনাদ ফোনে শুনিয়েছিলেন মনুয়াকে। এবার প্রিজন ভ্যানে নিজের জামা খুলে মনুয়ার মুখ ঢাকতে ব্যস্ত প্রেমে অন্ধ অজিত।  মনুয়ার প্রতি প্রেম এতই গভীর যে, কী শাস্তি হবে না হবে, তা মাথায় নেই। মনুয়াকে সবার থেকে আড়াল করতে তিনি এখনও জান-প্রাণ লড়িয়ে দিচ্ছেন। বারাসত আদালত চত্বরে মনুয়া-অজিতের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়রা। সেই সময় প্রিজন ভ্যানের ভিতরে মুখ ঢাকা ছিল না মনুয়ার। তখনই মুখ ঢেকে দেন প্রেমিক অজিত।

মনুয়াকে ঘিরে বিক্ষোভ আদালতে

শনিবার বারাসত আদালতে সকাল থেকেই মনুয়া ও অজিতের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন স্থানীয়রা। আদালত চত্বরে মনুয়ার আইনজীবী সুশোভন মিত্রের উপরে হামলা করেন কয়েকজন মহিলা। আইনজীবীর দাবি, মনুয়াকে ফাঁসানো হচ্ছে।

যদিও অনুপম খুনে মনুয়ার জড়িত থাকার যোগ আরও জোরালো হচ্ছে অনুপমের এক আত্মীয়ের বয়ানে। তাঁর দাবি, মৃত্যুর দু’দিন কাটতে না কাটতেই মনুয়া অনুপমের ফ্ল্যাট বিক্রি করে দিতে চেয়েছিলেন।

শনিবার বারাসত আদালতে মনুয়া-অজিতকে পেশ করা হলে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। বিশেষজ্ঞদের জেলে গিয়ে দু’জনেরই ফিঙ্গার প্রিন্ট নেওয়ার অনুমতি দিয়েছে আদালত।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES