অন্ধকার হাসপাতালে টর্চ জ্বেলেই চলল রোগীর সেলাই! কিন্তু কেন?

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 21, 2017 08:06 PM IST
অন্ধকার হাসপাতালে টর্চ জ্বেলেই চলল রোগীর সেলাই! কিন্তু কেন?
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 21, 2017 08:06 PM IST

#হাওড়া: বেতন না মেলায় জেনারেটর চালাননি অপারেটর। টর্চের আলো জ্বেলেই চলল জরুরি বিভাগের চিকিৎসা। বিদ্যুৎবিভ্রাটের জেরে এরকমই বেহাল ছবি ধরা পড়ল চন্দননগর হাসপাতালে। চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় রোগী ও আত্মীয়দের। জেনারেটর পরিষেবা সংস্থার বিরুদ্ধে FIR দায়ের করছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সমস্যা অনেকদিন ধরেই ছিল। এবার তা চরম আকার নিল। বুধবার সকালে লোডশেডিং হয় চন্দননগর হাসপাতালে। কিন্তু জেনারেটর থাকা সত্ত্বেও অন্ধকারেই ঢুবে থাকে জরুরি বিভাগ, অপারেশন থিয়েটার। কারণ সেই জেনারেটর চালানোর কর্মীই এদিন আসেননি হাসপাতালে। চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়েন রোগী ও চিকি‍ৎসকরা। বাধ্য হয়ে এভাবেই টর্চের আলোয় চলে চিকিৎসা। জরুরি বিভাগের বাইরেই জখম ব্যক্তির মাথায় সেলাই হল টর্চ জ্বেলে।

প্রায় দু'ঘণ্টা অন্ধকারে ডুবে থাকে হাসপাতাল। গোটা ঘটনার জন্য জেনারেটর পরিষেবাকারী সংস্থাকেই কাঠগড়ায় তুলেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সুপারের অভিযোগ, ৫ মাস ধরে অপারেটরকে বেতন দেয়নি ওই সংস্থা। নিয়মিত দেখভালও করা হয় না জেনারেটরের।

জেনারেটর পরিষেবাকারী সংস্থার বিরুদ্ধে FIR করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দফতর। বাতিল হয়েছে চুক্তি।

সরকারি হাসপাতাল হলেও, অনেক ক্ষেত্রেই বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয় কর্তৃপক্ষ। চন্দননগর হাসপাতালের পরিষেবা নিয়ে তেমন অভিযোগ না উঠলেও, জেনারেটর পরিষেবাকারীর গাফিলতির জেরেই ভোগান্তি পোহাতে হল রোগীদের।

First published: 08:06:04 PM Jun 21, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर