বর্ধমানে প্রাথমিক শিক্ষক পদে চাকরিপ্রার্থীদের আন্দোলন অব্যাহত, অসুস্থ ১ আন্দোলনকারী

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 17, 2017 05:52 PM IST
বর্ধমানে প্রাথমিক শিক্ষক পদে চাকরিপ্রার্থীদের আন্দোলন অব্যাহত, অসুস্থ ১ আন্দোলনকারী
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 17, 2017 05:52 PM IST

#বর্ধমান: জেলায় জেলায় একই চিত্র ৷ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ-আন্দোলনে সামিল টেট উত্তীর্ণ চাকরিপ্রার্থীরা ৷ কোথাও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও ডাক না পাওয়ার অভিযোগ, কোথাও আবার মেলেনি নিয়োগপত্র ৷

গত তিনদিন ধরে নিয়োগপত্রের দাবীতে জেলা প্রাথমিক স্কুল সংসদের সামনে অবস্থান আন্দোলনে অনড় শিক্ষকপদে চাকরিপ্রার্থীরা ৷ লাগাতার ৭২ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে দিনভর-সারারাত আন্দোলন চালিয়ে এদিন অসুস্থ হয়ে পড়েন এক মহিলা চাকরিপ্রার্থী ৷ বর্ণালী চক্রবর্তী নামে ওই মহিলাকে নিকটবর্তী হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে ৷ কিন্তু তা সত্ত্বেও অবস্থান বিক্ষোভ তুলতে নারাজ প্রাথমিক শিক্ষক পদে চাকরিপ্রার্থীরা ৷

অভিযোগ, কাউন্সেলিং শেষ হওয়ার পরও দেওয়া হয়নি নিয়োগপত্র ৷ পরশু অ্যাপয়েন্ট লেটার সংগ্রহ করতে এসে চাকরিপ্রার্থীরা দেখেন পূর্ণ সময়ের নয়, প্যারাটিচার পদের জন্য নিয়োগ পত্র দেওয়া হচ্ছে তাদের ৷ এরপরই বর্ধমানের জেলা প্রাথমিক স্কুল সংসদের সামনে কাছারি রোড অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন চাকরিপ্রার্থীরা ৷

পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের তুলে দেওয়ার চেষ্টা করলেও তারা পিছু হটেননি ৷ জেলা প্রাথমিক স্কুল সংসদের সামনে নিয়োগপত্রের দাবিতে লাগাতার বিক্ষোভ চালানো সত্ত্বেও দেখা মেলেনি সংসদের কোনও আধিকারিকদের ৷ উল্টে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের হটাতে গেলে তাদের সঙ্গে গন্ডগোল বাধে ৷ বিক্ষোভ দিনভর ভিতরে আটকে ছিলেন জেলা প্রাথমিক স্কুল সংসদের কর্মীরা ৷

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার আশঙ্কায় বর্ধমানের মহকুমা শাসক এসে আন্দোলনকারীদের নিয়োগপত্র মেলার ব্যাপারে আশ্বস্ত করেন ৷ জানান, যারা নিয়োগপত্র পাননি তাদের নথি খতিয়ে দেখছে সংসদ ৷ কাজ শেষ হলে শীঘ্রই মিলবে নিয়োগপত্র ৷ কিন্তু তাতেও আশ্বস্ত নন চাকরিপ্রার্থীরা ৷ তাদের দাবি, নিয়োগপত্র হাতে পেলে তবেই তাঁরা অবস্থান প্রত্যাহার করবেন ৷

অন্যদিকে নিয়োগ নিয়ে জট কাটাতে বৈঠকে বসছে বিদ্যালয় সংসদ ৷ ২৭ ফেব্রুয়ারি ফের শংসাপত্র যাচাই করা হবে বলে, জানালেন স্কুল বোর্ডের চেয়ারম্যান ৷

First published: 05:52:29 PM Feb 17, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर