ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে মৃত্যু মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 27, 2017 04:00 PM IST
ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে মৃত্যু মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 27, 2017 04:00 PM IST

#মুর্শিদাবাদ: ফের মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলাকে গণপিটুনি। বাগুইআটির পর এবার মুর্শিদাবাদে। মুর্শিদাবাদের সেকেন্দ্রাগ্রামে ছেলেধরা সন্দেহে ট্র্যাক্টরে বেধে মহিলাকে গণপিটুনি দেওয়ার অভিযোগ গ্রামবাসীদের বিরুদ্ধে। পরে পুলিশ উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে তাঁকে ৷ সেখানেই মৃত্যু হয় কৃষ্ণশালি গ্রামের বাসিন্দা উত্তরা বিবির।

গণপিটুনিতে মৃত্যু মহিলার। ছেলেধরা সন্দেহে মুর্শিদাবাদের সেকেন্দ্রগামে এক মহিলাকে ট্রাক্টরে বেধে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ ৷ গ্রামবাসীদের বিরুদ্ধে বেধড়ক মারধর ছাড়াও তাঁর মাথার চুলও কেটে নেওয়া হয় বলেও অভিযোগ। জখম মহিলাকে জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই মৃত্যু হয় কৃষ্ণশাইল গ্রামের বাসিন্দা উত্তরা বিবির। তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন বলে দাবি করেছে উত্তরার পরিবারের ।

অভিযোগ, আজ সকালে সেকেন্দ্রা গ্রামে দিলীপ ঘোষের বাড়িতে ঢুকে তাঁর মেয়ের মাথায় তেল লাগিয়ে দেন উত্তরা। কয়েকদিন আগেই এই গ্রাম থেকে ষষ্ট শ্রেণির এক কিশোরী নিখোঁজ হয়ে যায় । তারপর থেকে ক্ষেপে ছিল গ্রামের লোক। দিলীপের স্ত্রীর চিৎকারে গ্রামবাসীরা এসে উত্তরা বিবিকে ধরে গ্রামের দুর্গামন্দিরের মাঠে নিয়ে যায়। তারপর ট্র্যাক্টরে বেধে শুরু হয় গণধোলাই। সেকেন্দ্রাগ্রামের পুলিশ এলে গ্রামবাসীদের বাধার মুখে পড়তে হয়। এরপর রঘুনাথগঞ্জ থেকে বিশাল পুলিশ বাহিনী এসে মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভরতি করে ৷

First published: 04:00:22 PM Jun 27, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर