হেলমেট না পরায় জরিমানা শাসকদলের সাংসদের

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 07, 2017 02:21 PM IST
হেলমেট না পরায় জরিমানা শাসকদলের সাংসদের
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 07, 2017 02:21 PM IST

#বাঁকুড়া: শত প্রচারেও ফিরছে না সচেতনতা ৷ হেলমেট না পরে আইন ভাঙলেন খোদ শাসকদলের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ ৷ ট্রাফিক আইন ভাঙায় তাঁকে জরিমানা করে পুলিশ ৷

সেভ ড্রাইভ সেফ লাইফ। পথ দুর্ঘটনার হার কমাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে রাজ্যজুড়ে এই স্লোগানেই প্রচার চালানো হচ্ছে ৷ তবু কে শোনে কার কথা ৷ হেলমেট ছাড়াই অব্যাহত বাইক চালানো ৷

নিয়ম জানা সত্ত্বেও এদিন সকালে হেলমেট না পরেই বাইক চালিয়ে বাড়ি থেকে বেরোন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ ৷ মাথায় হেলমেট না থাকায় আর পাঁচজন হেলমেট বিহীন সাধারন বাইক আরোহীর মতো ভৈরবস্থানের কাছে তাঁর পথ আটকায় ট্রাফিক পুলিশ । পুলিশের হাতে ধরা পড়ে এদিন অবশ্য নিজের প্রভাব খাটানোর কোনও চেষ্টা করেননি সাংসদ । উল্টে পুলিশকে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া কথা বলেন তিনি । ট্রাফিক পুলিশ তাঁকে মোটর ভেহিকেল আইনের ১২৯ এ ধারায় ১০০ টাকা জরিমানা করেন । সাংসদকে জরিমানার অঙ্ক স্থানীয় ব্যাঙ্কে জমা করার কথা বলেন ট্রাফিক আধিকারিকরা । এরপর অবশ্য আর বেশিক্ষন ওই এলাকায় দাঁড়াননি সাংসদ । অন্য একজনকে দিয়ে নিজের হেলমেট আনিয়ে তা মাথায় পরে ফের বাইক নিয়ে নিজের কাজে বেরিয়ে পড়েন তিনি । হেলমেট না পরার কারণ হিসাবে অবশ্য সাংসদের দাবি হেলমেট পরার অভ্যাস না থাকায় তাড়াহুড়োতে বাইক নিয়ে বেরোনোর সময় হেলমেট নিতে ভুলে গিয়েছিলেন । তবে এই ধরনের ভুল আর হবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি ।

ট্রাফিক আধিকারিকদের দাবি, কেউই আইনের উর্ধে নয় । তাই আর পাঁচজন হেলমেট বিহীন বাইক আরোহীর ক্ষেত্রে যে ধারায় জরিমানা করা হয় এদিন সাংসদকেও সেই একই ধারায় জরিমানা করা হয়েছে ।

তবে অভিযোগ, সৌমিত্র খাঁর সঙ্গে থাকা আরোহীরও হেলমেট ছিল না ৷ তা নিয়ে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ ৷

soumitra kha

ট্রাফিক পুলিশের নজরদারির পাশাপাশি রাজ্য প্রশাসনের প্রচার। তবুও হুঁশ ফিরছে না। বাড়ছে সিট বেল্ট বা হেলমেট না পড়ার প্রবণতা। সিনেমাতেও আকছাড় দেখা যাচ্ছে হেলমেট ছাড়াই রাস্তায় বাইক চালাচ্ছেন হিরো।দুর্ঘটনা এড়াতে সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ নিয়ে নানা কর্মসূচি নিয়েছে রাজ্য সরকার। জনপ্রতিনিধি থেকে অভিনেতা সেই কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে সচেতনতা বাড়ানোর কাজ শুরু করেছে। তারপরেও বাঁকুড়ার জনপ্রতিনিধির এই কাণ্ডে সচেতনতার অভাব যে রয়েছে, তাই প্রমাণিত হল আর এক বার।

সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে চলছে গতির খেলা। সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে দুর্ঘটনা। এমনকী হচ্ছে মৃত্যুও। ভারতে প্রতিদিন চারশো জনের মৃত্যু হয় সড়ক দুর্ঘটনায়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় হেলমেট না পড়া, বেপরোয়া গতি ও সিট বেল্ট না পড়ার কারণেই ঘটছে দুর্ঘটনা।

First published: 11:55:48 AM May 07, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर