পুরুলিয়ায় সুচবিদ্ধ শিশুর মৃত্যু, গ্রেফতার মা

Jul 22, 2017 11:50 AM IST | Updated on: Jul 22, 2017 11:50 AM IST

#কলকাতা: পুরুলিয়ায় সুচবিদ্ধ শিশুর মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার মা ৷ শনিবার মাকে গ্রেফতার করল পুরুলিয়া জেলা পুলিশ ৷ মেয়ের উপর নির্মম অত্যাচার চলে এসেছে দিনের পর দিন ৷ তবুও সব জেনেও মুখ খোলেনি মঙ্গলা গোস্বামী ৷ কর্তব্যেও একাধিক গাফিলতি রয়েছে ৷ সেকারণেই গ্রেফতার করা হল মঙ্গলাকে ৷ মঙ্গলাকে নিয়ে পুরুলিয়া রওনা হয়েছে জেলা পুলিশ ৷

শুক্রবার মৃত্যু হয় পুরুলিয়ার সুচবিদ্ধ শিশুটির ৷ মঙ্গলবার দু’ঘণ্টার অস্ত্রোপচার হয় শিশুটির ৷ শরীর থেকে বের করা হয় ৭টি সুচ ৷ দফায় দফায় আলোচনার পর অপারেশন করে সাত সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড। এরপর বৃহস্পতিবার তার অবস্থার অবনতি হয় ৷ শুক্রবার ভোররাতে মৃত্যু হয় শিশুটির ৷ SSKM-এ চিকিৎসাধীন ছিল শিশুটি ৷ সেপ্টিসেমিয়া ও মাল্টি অর্গ্যান ফেলিওরে হয়ে মৃত্যু হয় শিশুটির ৷ তার দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে ৷

পুরুলিয়ায় সুচবিদ্ধ শিশুর মৃত্যু, গ্রেফতার মা

সাড়ে তিন বছরের ছোট্ট শরীর। বিকৃতকাম বয়স্ক সেই শরীরেই গেঁথে দিয়েছে সাত সাতটি সুচ। বুকে-পিঠে-মেরুদণ্ডে এমনকী যৌনাঙ্গেও নানা আঘাতের চিহ্ন। এমন পরিস্থিতিতে পুরুলিয়ার শিশুকন্যাকে ভর্তি করা হয় এসএসকেএমে।

কিন্তু শেষপর্যন্ত তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি ৷ অস্ত্রোপচার সফল হলেও ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে শিশুকন্যাটিকে রাখা হয়েছিল ৷ গতকাল ভোর রাতে মৃত্যু হয় তার ৷

মেয়ের উপরে এরকম অত্যাচারের পরেও কেন মুখ খোলেননি মা ? জানা গিয়েছে, স্বামী পরিত্যক্তা ওই মহিলা পুরুলিয়ার মফস্বল থানার সতরো এলাকায় থাকত। বছর পঁয়ষট্টির বিপত্নীক সনাতন নদিয়াড়ায় গ্রামের বাড়িতে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে মহিলাকে নিয়ে থাকতে শুরু করে। অভিযুক্তকে বাঁচাতেই মহিলা প্রথমে নাম বলেননি বলে অভিযোগ। শিশুটি সনাতনকে পছন্দ না করায় চলত নির্যাতন। মারধর তো বটেই, সাড়ে তিন বছরের শিশু রেহাই পায়নি বৃদ্ধের বিকৃত লালসা থেকেও। যৌনাঙ্গে একাধিক ক্ষত থেকেই তা স্পষ্ট। এক্স-রে রিপোর্ট বলছে, শিশুর শরীরে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে সাতটি সুচও। পুরুলিয়া সদর হাসপাতালে বোর্ড গড়ে শুরু হয় শিশুর চিকিৎসা। অবস্থার অবনতি হওয়ায় পাঠানো হয় বাঁকুড়া মেডিক্যালে। সেখান থেকে কলকাতার এসএসকেএমে পাঠানো হয় তাকে।

নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য শিশুর উপর অত্যাচার হলেও কীভাবে চুপ ছিল মা ? কীভাবে এক বিকৃতকাম বৃদ্ধকে সঙ্গ দিয়ে যায় শিশুরই মা ? তার ভূমিকা নিয়েও তাই প্রশ্ন উঠছে।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES