গৃহবধূ কে পরিকল্পিত খুনের অভিযোগ উঠল সিভিক ভলেন্টিয়ারের বিরুদ্ধে

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Feb 12, 2017 02:45 PM IST
গৃহবধূ কে পরিকল্পিত খুনের অভিযোগ উঠল সিভিক ভলেন্টিয়ারের বিরুদ্ধে
Photo : AFP
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Feb 12, 2017 02:45 PM IST

#মেদিনীপুর: গৃহবধূ কে পরিকল্পিত খুনের অভিযোগ উঠলো সিভিক ভলেন্টিয়ারের বিরুদ্ধে।জাম্বনী থানার পরিহাটি গ্রামের ঘটনা।ঐ গ্রামের বাসিন্দা রাখাল দাস (২৬) জাম্বনী থানায় সিভিক ভলেন্টিয়ারে কর্মরত। ছয়মাস আগে গোয়ালতোড় থানার নেরাশোল গ্রামের বাসিন্দা শ্রাবনী দাস কে বিয়ে করেন।বিয়ের পর থেকে দেনা পাওনা নিয়ে স্বামী ও স্ত্রী এর মধ্যে অশান্তি লেগে থাকতো বলে জানা গেছে।গত ২৬ ডিসেম্বর রান্না করা নিয়ে স্বামী রাখাল দাসের সাথে বচসা হয় তারপর স্বামী মেয়ের পরিবারের লোককে ফোন করে বলে আপনার মেয়েকে নিয়ে যান।

সন্ধে নাগাদ বাড়ির মধ্যে শ্রাবণী গলায় দড়ি নিয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করে।বাড়ির লোকরা ছুটে এসে উদ্ধার করে ঝাড়গ্রাম সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে আসেন চিকিৎসকরা জানান ব্রেনে আঘাত হয়ছে। রেফার করা হয় মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে সেখান থেকে কটকে নিয়ে যায় মেয়ের পরিবার। ৩০ দিন কটকে থাকার পর খরচ না করতে পারাই ২ ফেব্রয়ারি ঝাড়গ্রাম সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ফিরিয়ে আনা হয়। শুক্রবার রাত্রে শ্রাবণী মারা যায় পরিবারে নেমে আসে শোকের ছায়া। মৃতের পরিবারের দাবি মতো মৃতদেহ টি ময়নাতদন্ত করে পুলিশ।শনিবার মৃত শ্রাবণী দাসের মা পুতুল দাস জাম্বনী থানায় লিখিত অভিযোগ করেন জামাই রাখাল দাস, ও রাখালের দাদা গোপাল দাস রাজ্য পুলিশের কনস্টেবলে কর্মরত বৌদি রিঙ্কু দাসের বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত সিভিক ভলেন্টিয়ার রাখাল দাস কে জেরা করছে জাম্বনী থানার পুলিশ। থটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। স্ত্রী কে খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত সিভিক ভলেন্টিয়ার কে শনিবার জাম্বনী থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করে রবিবার ঝাড়গ্রাম আদালতে বিচারক ৪ দিন পুলিশ হেফাজত নির্দেশ দেয়।

First published: 02:45:53 PM Feb 12, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर