উলুবেড়িয়ায় ব্যাঙ্ককর্মীর মৃত্যু কি আত্মহত্যাই? প্ররোচনার অভিযোগ দায়ের

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 12, 2017 08:40 AM IST
উলুবেড়িয়ায় ব্যাঙ্ককর্মীর মৃত্যু কি আত্মহত্যাই? প্ররোচনার অভিযোগ দায়ের
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 12, 2017 08:40 AM IST

#হাওড়া: উলুবেড়িয়ার ব্যাঙ্ককর্মীর মৃত্যু আত্মহত্যা বলে মেনে নিলেও প্রশ্ন উঠছে, কেন আত্মহত্যা করলেন রজত চৌধুরী। আত্মহত্যার পিছনে কী ভূমিকা ছিল ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের? এলাকার প্রভাবশালী ব্যবসায়ী সোমনাথ ঘোষেরই বা কতটা প্ররোচনা ছিল? ব্যাঙ্ককর্মীর রহস্যমৃত্যুতে উঠে আসছে নানা প্রশ্ন।

ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার উলুবেড়িয়া শাখা। এখানেই চুক্তিভিত্তিক গ্রুপ ডি পদে কাজ করতেন রজত চৌধুরী। মৃত্যুর আগে, শুক্রবারই শেষ ফেসবুক পোস্ট করেন। যা থেকে স্পষ্ট, কোনও ধরনের মানসিক চাপে ছিলেন এই ব্যাঙ্ককর্মী। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে,

রজতের বিরুদ্ধে অভিযোগ

- নোট বাতিলের সময় বাজারে পুরনো নোট বদল করেন রজত

- ব্যাঙ্কের মাধ্যমে বেআইনিভাবে পুরনো নোট বদল করেন

- ২৫ লক্ষ টাকার পুরনো নোট বদল করেন

যদিও ফেসবুকে তিনি অভিযোগ করেছিলেন, ব্যাঙ্কে বেআইনি লেনদেনের সব দায় তাঁর ওপর চাপানো হচ্ছে। যার পিছনে রয়েছেন উলুবেড়িয়ার প্রভাবশালী ব্যবসায়ী সোমনাথ ঘোষ ও তাঁর সহযোগী অমিত নায়েক। যদিও সেই অভিযোগ উড়িয়েছেন অভিযুক্ত ব্যবসায়ীর আত্মীয়।

যদিও ব্যবসায়ীর আত্মীয়ের দাবি ঘিরেই পাল্টা প্রশ্ন উঠছে।

- নোট বাতিলের সময়ে বাজারে নোটের আকাল

- সেইসময় কেন বিপুল পরিমাণে বৈধ নোট জমা দেওয়া হয়েছিল?

- অভিযুক্ত ব্যবসায়ী কি নিয়মিত ১০০-র নোট জমা দিতেন?

প্রশ্ন উঠছে ব্যাঙ্কের ভূমিকা নিয়েও।

- বৈধ নোট যদি মৃত ব্যাঙ্ককর্মী বদল করেন তাহলে কেন করলেন?

- তাহলে কি ব্যাঙ্কের ভিতরেই সক্রিয় কোনও দুর্নীতি চক্র?

- সব জেনেও কেন চুপ ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ?

- কেন শুধুমাত্র মুচলেকায় সই করেই ছেড়ে দেওয়া হল রজত চৌধুরীকে?

- কেন পুলিশে অভিযোগ জানানো হয়নি?

অস্থায়ী ব্যাঙ্ককর্মীর রহস্যমৃত্যুর তদন্তে নেমে এমনই নানা প্রশ্ন হাতড়াচ্ছেন তদন্তকারীরা।

মৃত্যুর আগে, শুক্রবার ফেসবুক পোস্টে রজত চৌধুরী লেখেন,   ‘কিছু মানুষ আমায় বাঁচতে দিল না। আমার মৃত্যুর জন্য দায়ী সোমনাথ ঘোষ ও অমিত নায়েক। ব্যাঙ্কে যত টাকা এক্সচেঞ্জ হয়েছে সব সোমনাথ ঘোষ এবং সহযোগীরা আমাকে দিয়ে জোর করে লিখিত নিয়ে আমার নামে পুলিশ কেস করে দিল । আমার সব বন্ধু ও আত্মীয় তোমরা আমাকে ক্ষমা করে দিও। আমি চলে যাচ্ছি। আমার মেয়ে স্ত্রী ও বাবা থাকলো। তোমরা ওদের একটু যত্ন করো। আমি চলে যাচ্ছি। বাড়ির সকলে তোমরা আমাকে ক্ষমা করে দিও ৷ ’

শনিবার উলুবেড়িয়ার ব্যবসায়ী সোমনাথ ঘোষ ও তাঁর সহযোগী অমিত নায়েকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করে রজত চৌধুরীর পরিবার। অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের মাঝেরহাটি শাখার ম্যানেজার চিন্ময় দত্ত এবং কোষাধক্ষ্য রাজু প্রামাণিকের বিরুদ্ধেও। তাঁদের অভিযোগ,

ব্যাঙ্ক জালিয়াতি ঢাকতেই খুন?

- নোট বাতিলের পর ওই ব্যাঙ্কের মাধ্যমে ৩৫ লক্ষ টাকা পাল্টান ব্যবসায়ী সোমনাথ ঘোষ

- নিয়ম ভেঙে ব্যবসায়ীর কালো টাকা সাদা করা হয়

- দুর্নীতির বিষয়টি নজরে আসতেই রজত চৌধুরীর ঘাড়ে দোষ চাপান ব্যাঙ্ক ম্যানেজার

- জোর করে তাঁকে দিয়ে মুচলেখায় সইও করানো হয়

মৃতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে, ৩০৬ ধারায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলা দায়ের করেছে উলুবেড়িয়া থানার পুলিশ। তদন্তে নেমে ব্যাঙ্ক ম্যানেজার চিন্ময় দত্ত এবং অন্যান্য কর্মীদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় পুলিশ। খোঁজ চলছে অভিযুক্ত ব্যবসায়ী সোমনাথ ঘোষ ও তাঁর সহযোগী অমিত নায়েকের।

First published: 08:40:28 AM Feb 12, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर