কাঁকিনাড়া স্টেশনে রেল অবরোধ, ব্যাহত শিয়ালদা মেনলাইনের ট্রেন চলাচল

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jan 11, 2017 03:39 PM IST
কাঁকিনাড়া স্টেশনে রেল অবরোধ, ব্যাহত শিয়ালদা মেনলাইনের ট্রেন চলাচল
Photo : AFP
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jan 11, 2017 03:39 PM IST

#কাঁকিনাড়া: ফের শিয়ালদহ মেন লাইনে ট্রেন অবরোধ ৷ সপ্তাহের মাঝখানে অফিস টাইম ট্রেন অবরোধের জেরে স্বভাবতই হয়রানির মুখে পড়তে হয়েছে যাত্রীদের ৷ মাঝপথেই আটকে পড়েছেন অফিস যাত্রী থেরে শুরু করে কলেজ পড়ুয়া ও স্কুল পড়ুয়ারা ৷

ব্যস্ত সময়ে রেল অবরোধের জেরে তীব্র ভোগান্তির শিকার হলেন শিয়ালদহ মেন লাইনে যাত্রীরা। বুধবার, সকাল সাড়ে নটা নাগাদ বকেয়া টাকা ও কারখানা খোলার দাবিতে কাঁকিনাড়ায় অবরোধ শুরু করেন নফরচাঁদ জুট মিলের শ্রমিকরা। সাড়ে তিন ঘণ্টা অবরোধের জেরে রেল পরিষেবা শিকেয় ওঠে। স্পেশাল ট্রেন চললেও, কমেনি যাত্রী হয়রানি।

অফিস টাইমে সময়ে যাত্রা থমকে গেল অবরোধে। গত ২১ মাস ধরে বন্ধ কাঁকিনাড়ার নফরচাঁদ জুট মিল। কারখানা খোলা ও বকেয়া পাওনার দাবিতে বুধবার সকাল সাড়ে নটা নাগাদ স্থানীয় ২৯ নম্বর রেলগেটে আচমকা অবরোধ শুরু করেন বন্ধ কারখানার শ্রমিকরা। শ্রমিকদের আত্মীয়-পরিজনরাও অবরোধে যোগ দেওয়ায় পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হয়ে ওঠে।

অবরোধের জেরে আপ ও ডাউনের একাধিক ট্রেন আটকে পড়ে। তীব্র ভোগান্তির শিকার হন নিত্যযাত্রীরা।

উপায় না দেখে শিয়ালদহ থেকে বারাকপুর পর্যন্ত স্পেশাল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয় রেল। বহু যাত্রীকেই কাঁকিনাড়া থেকে বাস বা অন্যান্য যানবাহন ধরে বারাকপুর পৌঁছতে হয়।

জানা গিয়েছে, বেশ কয়েকদিন ধরেই বন্ধ রয়েছে নফরচাঁদ জুটমিল ৷ ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছে বহু শ্রমিক ৷ এদিন জুটমিল খোলার আবেদন দাবিতে রেল অবরোধ শুরু করেন জুটমিলের শ্রমিকরা ৷

শ্রমিকরা জানিয়েছেন, প্রায় তিন বছর ধরে বন্ধ পড়ে রয়েছে জুটমিল ৷ বহু আবেদন করার পরও মেলেনি কোনও সাড়া ৷ তাই অবশেষে নিজেদের দাবি তুলে ধরতে অবরোধের পথ বেছে নিয়েছেন তারা ৷ দাবি মানা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন শ্রমিকরা ৷

অবরোধকারীদের সঙ্গে বারাকপুর, নৈহাটি ও কৃষ্ণনগর স্টেশনের কর্তাদের কথা বলার নির্দেশ দেয় রেল কর্তৃপক্ষ। ঘটনাস্থলে পৌঁছয় জগদ্দল থানাও। আগামী ১৫ জানুয়ারি কারখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলার আশ্বাস দেয় পুলিশ। অবশেষে, সাড়ে তিন ঘণ্টা পর, দুপুর একটা নাগাদ অবরোধ ওঠে।

অবরোধকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য রাজ্য সরকারকে জানানো হয়েছে বলে রেলসূত্রে খবর। অবরোধের জেরে বাতিল করতে হয় মোট ২০টি লোকাল ট্রেন।

কাঁকিনাড়ায় অবরোধের জের পড়ে শিয়ালদহ জংশনেও। সবমিলিয়ে, ব্যস্ত সময়ে জোর ধাক্কা খায় রেল পরিষেবা।

বাতিল একাধিক ট্রেন

- বাতিল হয় আপ-ডাউনের মোট ৬টি শিয়ালদহ-নৈহাটি লোকাল

- বাতিল হয় আপ ও ডাউনের মোট ৪টি শিয়ালদহ-কৃষ্ণনগর লোকাল

- এছাড়া, বাতিল হয়, শিয়ালদহ-শান্তিপুর, নৈহাটি-রানাঘাট, শিয়ালদহ-গেদে, শিয়ালদহ-কৃষ্ণনগর ও শিয়ালদহ-বর্ধমান লোকালও।

First published: 10:33:39 AM Jan 11, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर