নাম বিভ্রাটে রাতভর লকআপে কাটল নির্দোষ যুবকের

Mar 31, 2017 05:05 PM IST | Updated on: Mar 31, 2017 05:05 PM IST

#বাগনান: নাম বিভ্রাট একেই বলে। জালিয়াতি মামলায় এক নির্দোষকে বাড়ির সামনে থেকে তুলে নিয়ে গেল পুলিশ। পরে আদালতে তোলা হলে, ভুল চোখে পড়ে বিচারকের। ঠিকানা ও ছবি না মেলায় আদালত থেকেই সসম্মানে ছেড়ে দেওয়া হয় প্রসেনজিত রক্ষিতকে। কিন্তু পুলিশ এই অভিযোগ অস্বীকার করেন।

ঘটনা ২০০৫ সালের। প্রসেনজিত রক্ষিত নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে হওয়া জালিয়াতি মামলার খেসারত দিতে হল বাগনানের আর এক প্রসেনজিতকে। বুধবার দিন বাড়ির সামনে থেকেই ভলান্টিয়ার পুলিশ থানায় নিয়ে যায় নির্দোষ প্রসেনজিত রক্ষিতকে। পুলিশকে বারবার বোঝাতে চেয়েও ব্যার্থ হন প্রসেনজিত। তার আরও অভিযোগ, নামের মিল থাকলেও অন্যান্য পরিচয়ে মিল আছে কিনা তা একবারও যাচাই করার প্রয়োজন মনে করেনি পুলিশ।

নাম বিভ্রাটে রাতভর লকআপে কাটল নির্দোষ যুবকের

রাতভর থানার লকআপে রাখার পর বৃহস্পতিবার উলুবেড়িয়া আদালতে তোলা হয় প্রসেনজিতকে। আদলতেই বিচারকের নজরে আসে পুলিশের মারাত্মক ভুল। নামের মিল থাকলেও ঠিকানা বা বাবার নামে মিল ছিল না অভিযুক্তের সঙ্গে ধৃতের। পুলিশকে ভর্ৎসনা করার পরেই সসম্মানে মুক্তি দেওয়া হয় প্রসেনজিতকে। তদন্তকারী অফিসারের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশও দিয়েছে আদালত। কিন্তু পুলিশ নিজের ভুল মানতে চায়নি এরপরেও। পুলিশের দাবি, জামিনে ছাড়া পেয়েছেন প্রসেনজিত।

এই ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করতে চান প্রসেনজিত ও তার পরিবার। যদিও আসল অভিযুক্ত প্রসেনজিত রক্ষিতকে এখনও খুঁজে পায়নি পুলিশ। কিছুদিন আগেই এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে ভুয়ো অভিযোগ তৈরি করে তাকে গ্রেফতার করে উলুবেড়িয়া থানার পুলিশ। পরে জানাজানি হতে আদালতে ভর্ৎসিত হতে হয় পুলিশকে। বারংবার জেলা পুলিশের এই গাফলতিতে আতঙ্কে ভুগছেন এলাকাবাসীরাও।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES