গ্রাহকদের অজান্তেই লক্ষ লক্ষ টাকা জমা পড়ল অ্যাকাউন্টে আবার গায়েবও হল !

May 06, 2017 07:12 PM IST | Updated on: May 06, 2017 07:47 PM IST

#মেদিনীপুর: এ যেন একেবারে ভৌতিক কাণ্ড ! গ্রাহকদের অজান্তেই লক্ষ লক্ষ টাকা জমা পড়ল তাঁদের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে ৷ আবার তাঁদের অজান্তেই সেইসব জমা হওয়া টাকা ট্রান্সফার হয়ে গিয়েছে এক ব্যবসায়ীর অ্যাকাউন্টে !

একজন বা দু’জন নয়, প্রায় শতাধিকও বেশি গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে এই ভুতুড়ে লেনদেনের ঘটনা ঘটেছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের পুর্ব মেদিনীপুরের একটি শাখায়। ঘটনার কথা জানাজানি হওয়ার পর অভিযোগকারী গ্রাহকরা আজ দল বেঁধে হাজির হন স্টেট ব্যাঙ্কের মুগবেড়িয়া শাখায়। বিক্ষোভও দেখান তাঁরা। গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে চাপে পড়েছেন ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ।

গ্রাহকদের অজান্তেই লক্ষ লক্ষ টাকা জমা পড়ল অ্যাকাউন্টে আবার গায়েবও হল !

সবে ফেব্রুয়ারিতেই ব্যাঙ্কে অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন পূর্ব মেদিনীপুরের খানজাদা পুরের বাসিন্দারা। দু মাস কেটে গিয়েছে। পাস-বই মেলেনি। দু-তিন আগে পাস বই হাতে পান তাঁরা। তখনই নজরে আসে বিষয়টি। প্রত্যেকের অ্যাকাউন্টে জমা পড়ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। সেই টাকা আবার ট্রান্সফার হয়ে যাচ্ছে রাইস মিলের এক ব্যবসায়ীর অ্যাকাউন্টে। সবকিছুই ঘটেছে তাঁদের অজান্তে।

গ্রাহকদের অভিযোগ, অ্যাকাউন্ট খোলার সময়ে স্থানীয় রাইস মিলের প্রতিনিধি হিসেবে অচেনা এক যুবক তাঁদের সাহায্য করেন। কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনে রাইসমিল। বদলে কৃষকদের অ্যাকাউন্টে টাকা ফেলে সরকার। সেই মত গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট খুলতে সাহায্য করে সেই যুবক। সেখান থেকেই দুর্নীতির শুরু।

যদিও গ্রাহকদের দাবি, তাঁদের সঙ্গে রাইসমিলের কোনও ধান কেনাবেচা হয়নি। কখন টাকা এল, কখন গেল। বুঝতেই পারছেন না তাঁরা। রাইস মিল ব্যবসায়ীর সঙ্গে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের যোগসাজোশের অভিযোগ তুলছেন তাঁরা। বিষয়টি নিয়ে ব্যাঙ্ক ম্যানেজারকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান গ্রাহকরা।

অভিযুক্ত ব্যবসায়ীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে ব্যাঙ্কের ম্যানেজার জানিয়েছেন। যদিও গ্রাহকদের অজান্তে লক্ষ লক্ষ টাকার ভুতুড়ে লেনদেনের ঘটনাকে ঘিরে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে মুগবেড়িয়া এলাকায়। এই ধরনের ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির দাবিও তুলেছেন প্রত্যেকেই।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES