ফলতা শিশুপাচারকাণ্ড, ধৃত সাবিত্রী বৈদ্য ও শ্যামল বৈদ্যর জেল হেফাজত

Mar 05, 2017 02:53 PM IST | Updated on: Mar 05, 2017 02:53 PM IST

#ফলতা: ফলতা শিশুপাচারকাণ্ডে কলকাতা যোগ। ধৃত শ্যামল বৈদ্যের বক্তব্যে উঠে এলো ঠাকুরপুকুর পূর্বাশা হোমের নাম। ওই হোমে আগেই শিশুপাচারের অভিযোগ ওঠে। গতকালই শিশুপাচারে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় শ্যামেল বৈদ্য ও তার স্ত্রী সাবিত্রীকে। আজ শ্যামেলকে ১১ দিনের পুলিশ হেফাজত এবং সাবিত্রীকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত।

এ যেন কেঁচো খুড়তে কেউটের হদিশ। ফলতা শিশুপাচারকাণ্ডে ক্রমে স্পষ্ট হচ্ছে কলকাতা যোগ। শনিবার শিশুপাচারে জড়িতে অভিযোগে শ্যামেল বৈদ্য ও তার স্ত্রী সাবিত্রীকে গ্রেফতার করে ফলতা থানার পুলিশ। রাতভর দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। রবিবার সকালে আদালতে হাজিরার আগেই চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি ধৃত শ্যামলের। শিশু পাচারের কথা স্বীকার করে সে জানায় ঠাকুরপুকুরের বড়দির পূর্বাশা হোমের সঙ্গে যোগাযোগছিল তার।

ফলতা শিশুপাচারকাণ্ড, ধৃত সাবিত্রী বৈদ্য ও শ্যামল বৈদ্যর জেল হেফাজত

File Photo

- উত্তর ২৪ পরগনার বাদুরিয়ায় প্রথম শিশুপাচারচক্রের হদিশ

- ওই চক্রে জড়িত অভিযোগে ধৃত কলেজ স্ট্রিটের নার্সিংহোমের প্রশাসক পারমিতা চট্টোপাধ্যায়

- ধৃত বেহালার পূর্বাশা হোমের মালিক পুতুল বন্দ্যোপাধ্যায় ওরফে বড়দি

- গ্রেফতার করা হয় প্রভা প্রামাণিক ওরফে মেজদিকে - একই ঘটনায় সন্তোষ কুমার নামে এক চিকিৎসককে গ্রেফতার করে সিআইডি

রবিবার শ্যামেল এবং সাবিত্রী বৈদ্যকে ডায়মন্ড হারবার আদালতে পেশ করা হয়। শ্যামল বৈদ্যকে ১১ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়। সাবিত্রীকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। শ্যামলকে জেরা করে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। শিশুপাচারের আর কারা জড়িত, শ্যামলকে জেরার মাধ্যমে সেই তথ্যেরই সন্ধানে তদন্তকারীরা।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES