তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে গুলি-বোমাবাজি, নিহত ১

Jun 03, 2017 06:32 PM IST | Updated on: Jun 03, 2017 06:32 PM IST

#সন্দেশখালি: তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে মৃত ১। সন্দেশখালির জেলিয়াখালিতে গুলির লড়াই। সঙ্গে বোমাবাজি। সংঘর্ষ কবলিত গ্রামে পুলিসকে ঢুকতে বাধা দেয় শাসকদলেরই একটি গোষ্ঠী। একশো দিনের কাজ ও জব কার্ড দখলে রাখা নিয়েই গণ্ডগোলের সূত্রপাত। তৃণমূলের ব্লক সভাপতির সঙ্গে দলেরই এক নেতার এলাকা দখলের লড়াই চলছে। তারই জেরেই অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠল জেলিয়াখালি।

জমি নিয়ে বিবাদ ছিলই। একশো দিনের কাজে জব-কার্ড দখলে রাখা তাই চরমে উঠল। শাসকদলের দুই গোষ্ঠীর লড়াইয়ে যুদ্ধের পরিস্থিতি জেলিয়াখালির পাখিরালা ও পশ্চিমপাড়া গ্রামে। অন্তত ৫০ থেকে ৬০ রাউন্ড গুলি চলল। গুলির লড়াইয়েই মৃত্যু হল নিজামুদ্দিন ওরফে ময়না মোল্লা আরও ২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ৩২টি বাড়িতে আগুন লাগানো হল।

তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে গুলি-বোমাবাজি, নিহত ১

বেশ কিছুদিন ধরেই এলাকা দখলের লড়াই জেলিয়াখালিতে

শনিবার স্থানীয় বাসিন্দা সইফুদ্দিনের জমিতে চলে যায় জয়নুল মোল্লার গরু

এরই জেরে সইফুদ্দিনের ওপর চড়াও হয় জয়নুল ও তার দলবল

এরপরই পশ্চিমপাড়া ও পাখিরালা গ্রামে ছড়িয়ে পড়ে সংঘর্ষ

ঘটনার জেরে পুরুষশূন্য ২ গ্রামই। অভিযোগ সন্দেশখালি ২ ব্লক তৃণমূল সভাপতি শিবু হাজরার ঘনিষ্ঠ জয়নাল মোল্লার বিরুদ্ধে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এসে দীর্ঘদিন পশ্চিমপাড়ায় ঢুকতে পারেনি পুলিস। তৃণমূল সমর্থকদের বিক্ষোভে পাখিরালা গ্রামেই আটকে পড়ে পুলিশবাহিনী। প্রায় দেড় ঘণ্টা পর বিক্ষোভ ওঠে।

একশো দিনের কাজ প্রায় সাড়ে ৪ হাজার জবকার্ডের দখল নিয়ে গন্ডগোলে জড়ায় দুই গোষ্ঠী। অভিযোগ কমিশন না দিলে জবকার্ড হাতেই পাননা গ্রামবাসীরা। কয়েক কোটি টাকার এই কারবারের দখল নিয়েই রক্ত ঝরল জেলিয়াখালিতে।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES