এক নজরে দেখে নিন কোন কোন মামলায় রেহাই পেলেন সলমন

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Jan 18, 2017 12:23 PM IST
এক নজরে দেখে নিন কোন কোন মামলায় রেহাই পেলেন সলমন
File Photo
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Jan 18, 2017 12:23 PM IST

#মুম্বই: বলিউডের দাবাং খান ৷ প্রেমের গুঞ্জনের বাইরেও, সলমন তাঁর নানা কীর্তির জন্য ফেঁসেছেন নানা আইনি কাণ্ডে৷ যেমন হিট অ্যান্ড রান মামলা ও হাম হাম সাথ সাথ হ্যায় ছবির শ্যুটিং করতে গিয়ে কৃষ্ণসার হরিণ শিকার ৷ বহু বছর ধরে বলিউডের সুলতানকে এই মামলাই বার বার আদালতে টেনে নিয়ে এসেছে ৷ তবে শেষমেশ দুই মামলা থেকেই রেহাই পেয়ে গেলেন সলমন খান ৷ এক নজরে দেখে নিন ৷ কীভাবে এগোল সলমনের ‘হিট অ্যান্ড মামলা’ ও ‘কৃষ্ণসার হরিণ মামলা’ !

অক্টোবর ১৫, ১৯৯৮- সলমন খানের বিরুদ্ধে অস্ত্র রাখার দায়ে প্রথম মামলা দায়ের বন দফতরের। মেয়াদ উত্তীর্ণ লাইসেন্স ব্যবহার করা হয়েছিল ১৯৯৮ সালের অক্টোবর ১ ও ২ তারিখে।

ডিসেম্বর ১৮, ২০১৪- সলমন খানের আবেদন খারিজ কোর্টে

মার্চ ৩, ২০১৫-- যোধপুর আদালতে নতুন সাক্ষী

এপ্রিল ২৩, ২০১৫- সলমন খানের অসুস্থতার কারণে, আদালতে অনুপস্থিত। আবদেন মঞ্জুর

এপ্রিল ২৯, ২০১৫-- যোধপুর আদালতে সলমন খানের হাজিরা

জুলাই ২৫, ২০১৬-- রাজস্থান হাইকোর্টে যথেষ্ট প্রমাণের অভাবে বেকসুর খালাস সলমন খান

অক্টোবর ২০১৬-- সলমনকে দোষী সাব্যস্ত করে রাজস্থান সরকারের নতুন করে মামলা

নভেম্বর ১১, ২০১৬-- চিঙ্কারা হরিণ শিকার মামলায় সলমন খানকে রাজস্থান হাজির হওয়ার নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

ডিসেম্বর ৯, ২০১৬--মূল মামলার শুনানি শুরু

১৮ জানুয়ারি, ২০১৬-- ১৯ বছরের পুরনো অস্ত্র মামলায় বেকসুর খালাস সলমন খান

‘হিট অ্যান্ড রান’ মামলা থেকে পেলেন নিস্কৃতি ৷ বৃহস্পতিবার সলমনের বিরুদ্ধে আনা কোনও ‘অভিযোগই প্রমাণিত নয়’ রায় দিয়ে মুম্বই হাইকোর্ট বেকসুর খালাস করলেন বলিউডের ভাইজানকে ৷

২০০২ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর সলমনের গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে নিহত হয় মুম্বইয়ের এক ফুটপাথবাসী ৷ সেদিন সলমনের গাড়ির ধাক্কায় আহত হয়েছিলেন আরও ৪জন মানুষও ৷ সেই ঘটনার সূত্র ধরেই প্রত্যক্ষদর্শী রবীন্দ্র পাটিল মুম্বই হাইকোর্টকে জানিয়েছিল , সলমন মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালাচ্ছিলেন ৷ এমনকী, মুম্বইয়ে ‘রেন বার রেস্টুরেন্ট’ থেকে বেরিয়েই সলমন এই দুঘর্টনা ঘটিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন রবীন্দ্র ৷

বুধবার রবীন্দ্র পাটিলের এই বয়ানকেই ভ্রান্ত বলে বর্ণনা করেছিলেন মুম্বই নিম্নআদালত ৷ এমনকী, মুম্বই পুলিশের তদন্তকেও কড়া সমালোচনা করেছে মুম্বই হাইকোর্ট ৷ জানা গিয়েছে, পুলিশের দ্বারা আদালতে জমা দেওয়া সলমনের রক্তপরীক্ষার রিপোর্টেও ছিল ভুল তথ্য৷ আপাতত, সব জয় কাটিয়ে সলমন হলেন নিশ্চিন্ত ৷ ২০০২ সাল থেকে চলা ‘হিট অ্যান্ড রান’ মামলা থেকে বেকসুর খালাস হয়ে আপাতত খোশমেজাজে সলমন খান ও গোটা সল্লু পরিবার ৷

বৃহস্পতিবার ‘হিট অ্যান্ড রান’ মামলার চূড়ান্ত রায়ের সময় আদালতে হাজির থাকবে হবে সলমন খানকে এই নির্দেশ দিয়েছিল মুম্বই হাইকোর্ট৷ আদালতের নির্দেশ মেনে বেলা ১টা নাগাদ আদালত চত্বরে লাল গাড়িতে চড়ে সলমন ৷ সঙ্গে ছিলেন ভাই আরবাজ খান ও বোন অর্পিতা ৷ সলমনের আরেক বোন অলবিরা প্রথমেই পৌঁছেছিলেন আদালত চত্বরে ৷ আলবিরার মারফতই সলমনের কোর্টে উপস্থিত থাকার খবরটি পান সলমনের আইনজীবি৷

First published: 12:22:40 PM Jan 18, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर