যজ্ঞ ভঙ্গিমা থেকে সমস্ত উপাচারের ট্রেনিং চলছে শোভাবাজার রাজবাড়িতে

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Sep 26, 2017 03:47 PM IST
যজ্ঞ ভঙ্গিমা থেকে সমস্ত উপাচারের ট্রেনিং চলছে শোভাবাজার রাজবাড়িতে
নিজস্ব চিত্র
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Sep 26, 2017 03:47 PM IST

#কলকাতা: দোরগোড়ায় পুজো। শেষের মুখে প্রস্তুতি । পুরোহিতও রেডি। কিন্তু তিনি ঠিকঠাক তো? উচ্চারণের গণ্ডগোল নেই তো? উচ্চারণ দোষে বদলে যাবে না তো মন্ত্রের অর্থ ? তাহলে তো হিতে বিপরীত । প্রণাম বদলে যেতে পারে অভিশাপে। কোন ছোটবেলায় পড়া সংস্কৃত বিদ্যে দিয়ে কি আর পুজোর মন্ত্র আত্মস্থ হয়? তাই চলছে পুরোহিত ট্রেনিং।

মন্ত্রই ব্রহ্ম। কিন্তু সেই মন্ত্রেই যদি গণ্ডগোল থাকে? তাহলে কি হবে? উচ্চারণের দোষে ‘ ইহ তিষ্ঠ’ কখন যে ‘ ইহ ত্যাজ্য’ হয়ে যায়, ..বুঝবে কে? কিংবা কে ধরতে পারে তস্সোই কখন তস্ময়ী হয়ে গেছে ? আমাদের প্রায় সকলেরই সংস্কৃত বিদ্যের দৌড় ঐ ক্লাস সিক্স-সেভেন পর্যন্ত-ই। তাহলে কি হবে?

--

পুর জনের হিতের জন্য যিনি পুজোয় বসেছেন তার উচ্চারণে ভুল নেই তো? কিম্বা আচারে? পুজন মুদ্রায়? সেই তাড়নাতেই পুজো ট্রেনিং। পুরেহিতদের। চলছে ছাব্বিশ বছর ধরে। কথাটা প্রথম মাথায় আসে সর্বভারতীয় প্রাচ্য বিদ্যা একাডেমির। ১৯৯১ সাল থেকে শুরু হয় প্রশিক্ষণ। যদিও প্রথম বাধাটা এসেছিল পুরোহিত সমাজ থেকেই।

উচ্চারণ থেকে পুজা-বিধি। যজ্ঞ-ভঙ্গিমা থেকে পুজোর রীতি-রেওয়াজ, সময় থেকে উপাচার। সব কিছুর ট্রেনিং। একেবারে হাতে কলমে। পুজো পাঠ শিখতে আসছেন আগামী দিনের পুরোহিতরা। কেউ আসছেন নিজেদের ঝালিয়ে নিতে। কেউ এক্কেবারে ফ্রেশ। আনকোরা । তাঁরা কেউ ডাক্তার, ইনজিনিয়ার। কেউ আবার আইটি কর্মী। হাতে সার্টিফিকেট থাকলেই পুরো দস্তুর পুরোহিত।

শোভাবাজার রাজবাড়িতে পুরোহিত ট্রেনিং চলবে তের-ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এবছর আড়াইশোজন এই স্পেশাল ট্রেনিং নিচ্ছেন।

First published: 03:47:19 PM Sep 26, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर