মিতালি-ঝুলনের অভিজ্ঞতা, হরমনপ্রীত-স্মৃতি তারুণ্যের মিশেলে ‘চক দে’ লর্ডসের জন্য তৈরি ভারত

Jul 22, 2017 07:24 PM IST | Updated on: Jul 22, 2017 07:33 PM IST

#লন্ডন: স্বপ্নের লর্ডস। সামনে আবার ইংল্যান্ড। তারুণ্য আর অভিজ্ঞতার মিশেলে ফুটছে ভারত। রবিবারের ফাইনালে ১২ বছরের পুরনো জ্বালা মিটিয়ে প্রথম কাপ জয়ের হাতছানি।

টানা ৪টে জয়ের পর একটু হোঁচট। আবার শেষ ২টো ম্যাচে দাপটে জেতা। তারমধ্যে সেমিতে ৬ বারের চ্যাম্পিয়নের বিরুদ্ধে জয়। বিলেতের বুকে মহিলা বিশ্বকাপে ভারতের স্বপ্নের দৌড়। অভিজ্ঞতা, তারুণ্যে জমজমাট দল। ব্যাটে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব মিতালির। অজিদের বিরুদ্ধে হরমনপ্রীতের খুনে ব্যাটিং। দুরন্ত ফর্মে ব্যাটসওম্যানরা। তবে কোথাও টিম ম্যানেজমেন্টকে ভাবাচ্ছে স্মৃতি মন্দানার ফর্ম। প্রথম দু’ম্যাচের পর রান হারিয়ে গিয়েছে তাঁর ব্যাট থেকে। তবে সেটা নিয়ে চিন্তিত নয় টিম ম্যানেজমেন্ট। গোটা টুর্নামেন্টে আহামরি বল না করলেও সেমিতে অজিদের বিরুদ্ধে অভিজ্ঞতাতেই বাজিমাত করেছেন চাকদা এক্সপ্রেস ঝুলন গোস্বামী। ১২ বছরের অধরা স্বপ্ন ছুঁতে বড় ভরসা মহিলা একদিনের ক্রিকেটে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী। রাজেশ্বরী, একতাদের জন্য এবারের ভারতীয় স্পিনকে অনেকেই এগিয়ে রাখছেন।

মিতালি-ঝুলনের অভিজ্ঞতা, হরমনপ্রীত-স্মৃতি তারুণ্যের মিশেলে ‘চক দে’ লর্ডসের জন্য তৈরি ভারত

Photo: BCCI

মহিলা বিশ্বকাপে ভারত

- ১৯৭৮ সালে ঘরের মাঠে অভিষেক

- সেরা পারফরম্যান্স: রানার্স আপ, ২০০৫

- ১৯৯৭, ২০০০ সালে সেমিফাইনাল

- মোট ৫৪ ম্যাচে জয়- ২৮, হার-২৪

 বিশ্বকাপে মেয়েরা

সর্বোচ্চ রান - মিতালি রাজ (১০৮৬ রান)

সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর - হরমনপ্রীত কউর (১৭১ অপরাজিত)

সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী - ঝুলন গোস্বামী

সেরা বোলিং - রাজেশ্বরী গায়কোয়াড় ৫/১৫

বিশ্বকাপ ২০১৭

সর্বোচ্চ রান - মিতালি রাজ - ৮ ম্যাচে ৩৯২ রান, গড়- ৪৯.০০

সর্বোচ্চ উইকেট - দীপ্তি শর্মা - ৮ ম্যাচে ১২ উইকেট

প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছেই হার। তারপর আবার দুরন্তভাবে ফিরে আসা। সেমিফাইনালে টানটান থ্রিলারে প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে জয়। ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের ফাইনালে ওঠা নিয়ে কম নাটকীয় নয়। গোটা টুর্নামেন্টে অধিনায়ক হিথার নাইটকে ভরসা দিয়েছেন উইকেটকিপার সারা টেলর ও নাতালি শিভার। তাঁদের উপরেই ভরসা ৩ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের।

ভারতের জার্সিতে সম্ভবত শেষ বিশ্বকাপ। ২০০৫-এ খালি হাতে ফিরতে হয়েছিল। আর সেটা চান না মিতালি-ঝুলন। ফিরিয়ে আনতে চান ১৯৮৩-র ২৫ জুনের নস্টালজিয়া।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES