ভোট নয়, ভোটের মূল্যের উপরই নির্ভর করছে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন

Jul 16, 2017 04:29 PM IST | Updated on: Jul 16, 2017 04:36 PM IST

 #নয়াদিল্লি: রাত পোহালেই শুরু রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ৷ রাইসিনা হিলসে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের পর কে পা রাখবেন, সেই প্রশ্নের এবার উত্তর মেলার পালা ৷ শাসক ও বিরোধী তৈরি দু’পক্ষই ৷ রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে দৌড়ের শেষ ল্যাপে দুই দলিত প্রার্থী, NDA পদপ্রার্থী রামনাথ কোবিন্দ এবং বিরোধীদের প্রার্থী প্রাক্তন লোকসভা স্পিকার মীরা কুমার ৷

অন্যান্য নির্বাচনের থেকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন একদম আলাদা ৷ বেশি সংখ্যক ভোটের উপর নয়, বেশি মূল্যের ভোটের উপর নির্ভর করে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ৷ পাটিগণিতের একটি অঙ্কতেই লুকিয়ে আছে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ধাঁধাঁ ৷

ভোট নয়, ভোটের মূল্যের উপরই নির্ভর করছে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন

দেশের নাগরিকদের প্রতিনিধি হিসেবে নিজের ভোট দিয়ে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করবেন সাংসদ ও বিধায়কেরা ৷ কজন সাংসদ বা বিধায়কের ভোট রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী পেলেন তার উপরে নয় ফলাফল নির্ভর করবে কে কত মূল্যের ভোট পেলেন ৷ কিন্তু ভোটের মূল্য নির্ধারিত হয় কিভাবে?

এই প্রশ্নের উত্তরের আগে আসুন জেনে নিন, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা কত? ভারতের ২৯টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত বিধানসভার নির্বাচিত সদস্যরাই কে রাষ্ট্রপতি পদে বসবেন সেই নির্ধারক ভোট প্রদান করে ৷ এই হিসেবে ভারতে মোট ভোটার সংখ্যা ৪১২০ ৷ এরমধ্যে লোকসভার সদস্য মানে সাংসদ ৫৪৩ জন আর রাজ্যসভার নির্বাচিত সদস্য ২৩৩ জন ৷ এছাড়াও বিধায়ক সংখ্যা মিলিয়ে এবারে নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা ৪৮৯৬ জন ৷

এবার আসা যাক ভোটের মূল্যে ৷ কোন রাজ্যের বিধায়কের ভোটমূল্য নির্ভর করে সেই রাজ্যের জনসংখ্যার উপর ৷ সেই রাজ্যের জনসংখ্যাকে বিধায়ক সংখ্যা দিয়ে ভাগ করলে যে ভাগফল পাওয়া যাবে, সেটাই ওই রাজ্যের বিধায়কের ভোটের মূল্য ৷ তবে এক্ষেত্রে একটি পূর্বনির্ধারিত নিয়ম রয়েছে ৷

১৯৭১ সালের জনগণনা অনুযায়ী প্রতিটি রাজ্যের জনসংখ্যা যা ছিল, সেই সংখ্যাকেই এখনও রাজ্যের জনসংখ্যা হিসেবে ধরে নির্বাচিত বিধায়ক সংখ্যা দিয়ে ভাগ করা হয় ৷ শুধু এ বছরই নয় ২০২৬ সাল পর্যন্ত এই পন্থায় চলবে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ৷

এই হিসেব অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গের জনসংখ্যা ৪ কোটি ৪৩ লক্ষ ১২ হাজার ১১ জন ৷ তাই নির্বাচিত ২৯৪ জন বিধায়কের সংখ্যা দিয়ে জনসংখ্যাকে ভাগ করলে পশ্চিমবঙ্গের প্রতি বিধায়কের ভোটমূল্য ১৫১ ৷

ramnath kovind vs meira kumar

এবার আসা যায়, সাংসদদের ভোটমূল্যে ৷ বিধায়কদের মোট ভোটের মূল্যের সমান হতে হবে সাংসদদের মোট ভোটমূল্য ৷ সাংসদদের মোট ভোটমূল্যকে দেশের মোট সাংসদ সংখ্যা দিয়ে ভাগ করলেই পাওয়া যাবে প্রতি সাংসদের ভোটের মূল্য ৷

দেশের সমস্ত বিধায়কদের মোট ভোটমূল্য হল ৫ লক্ষ ৪৯ হাজার ৪৭৪ ৷ সাংসদদের মোট ভোটের মূল্যও এটি ধরে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় ভোট অঙ্ক ৷ দেশে লোকসভা ও রাজ্যসভা মিলিয়ে মোট সাংসদ সংখ্যা ৭৭৬ ৷ কিন্তু ৫, ৪৯,৪৭৪ কে ৭৭৬ দিয়ে ভাগ করলে ভাগফল পূর্ণ সংখ্যায় আসে না ৷ তাই সবচেয়ে কাছের পূর্ণসংখ্যা হিসেবে একটি সাংসদের মোট ভোটমূল্য ধরে নেওয়া হয় ৭০৮ ৷

রাজ্যের জনসংখ্যার ভিত্তিতে বিধায়কদের ভোটমূল্যে যেমন ওঠাপড়া রয়েছে, সাংসদের ক্ষেত্রে তেমন কোনও ব্যাপার নেই ৷ তাই বিধায়কদের থেকে সাংসদদের ভোট একটু বেশি গুরুত্বপূর্ণ ৷ রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে যে প্রার্থী যত বেশি সাংসদদের সমর্থন পাবেন তাঁর জয়ী হওয়ার সুযোগ তত বেশি ৷

রাইসিনা হিলসের দখল নিতে দরকার ৫০ শতাংশের বেশি ভোট ৷ সাংসদ ও বিধায়কদের ভোট মেলালে মোট ভোটমূল্য দাঁড়ায় ১০ লক্ষ ৯৮ হাজার ৭৮২ ৷ অর্থাৎ জিততে হলে রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থীর দরকার ৫লক্ষ ৪৯ হাজার ৪৪২ মূল্যের ভোট ৷ রামনাথ কোবিন্দ এবং মীরা কুমার দু’জনেরই মধ্যে যে এই লক্ষ্যমাত্রা ছোঁবেন, আগামী পাঁচ বছর রাইসিনা হিলসে চলবে তাঁরই রাজত্ব ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES