‘গোপনীয়তা মৌলিক অধিকার’, এই ঐতিহাসিক রায়ে আধার নয় উঠে এল অন্য আরও প্রশ্ন

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Aug 24, 2017 06:48 PM IST
‘গোপনীয়তা মৌলিক অধিকার’,  এই ঐতিহাসিক রায়ে আধার নয় উঠে এল অন্য আরও প্রশ্ন
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Aug 24, 2017 06:48 PM IST

#নয়াদিল্লি: একই রায়ে গোপনীয়তা, রাষ্ট্রের নজরদারি, সমকামিতা, গর্ভপাত ও খাদ্যভ্যাসের অধিকার নিয়ে চর্চা। বৃহস্পতিবারের রায়ে যেন প্যান্ডোরার বাক্স খুলে দিলেন সর্বোচ্চ আদালতের নয় বিচারপতি। সংবিধান বিশেষজ্ঞদের মতে, শুধু আধার কার্ড নয় আরও অনেক বিষয়কেই আলোচনার বৃত্তে টেনে আনল সুপ্রিম কোর্ট। উসকে দিল আইন সংশোধনের প্রশ্ন। গোপনীয়তার অধিকারের আওতায় বহু বিষয়, মোট ৫৪৭ পাতার রায়ে জানাল সুপ্রিম কোর্ট ৷

আধার কার্ডে তথ্যের সুরক্ষাকে ঘিরে সংশয়। কেন্দ্র যেভাবে আধারকে প্রতিিট ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক করে তুলছে মামলা তার বিরুদ্ধেও। সেই মামলার রায়ই এবার বহু বিষয়ে আলোচনার পথ খুলে দিল। দেশের বর্তমান আইনকানুনের ক্ষেত্রে যার ফল হতে পারে সুদূরপ্রসারী।

কী বলছে সুপ্রিম কোর্ট?

নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্যে রাষ্ট্র দ্বারা টেলিফোনে আড়িপাতা বা ইন্টারনেট হ্যাক করার প্রবণতা এমন একটা বিষয় যা গোপনীয়তার মধ্যে পড়ে। কেন্দ্রীয় সরকার যেভাবে সমস্ত নাগরিকের বায়োমেট্রিক তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করছে সেই সুবাদেই একথা উল্লেখ করা হল’ ৷

অর্থাৎ, দেশের বিভিন্ন বাহিনী যেভাবে মোবাইল সংস্থাগুলির কাছ থেকে কথোপকথন বা অবস্থানের জন্য তথ্য সংগ্রহ করে তা আর সহজ রইল না। আরও কঠিন হবে আড়িপাতা। কারণ নির্দিষ্ট যুক্তি ও অনুমতির ভিত্তিতেই তা করতে হবে।

সুপ্রিম কোর্ট বলছে -

‘গ্রাহকের আধার কার্ড ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড, প্যান কার্ড-সহ কোনও তথ্যই ফাঁস করা যাবে না ৷’

ব্যাঙ্ক ও বিমান গ্রাহকদের তথ্য ফাঁস নিয়ে নিষেধাজ্ঞা ছিলই। তা আরও নির্দিষ্ট করে দিয়েছে শীর্ষ আদালত। এদিন বলা হয়,

‘কে কী খাবেন বা পরবেন, ব্যক্তিগত,সামাজিক ও রাজনৈতিক পরিসরে কার সঙ্গে মিশবেন, রাষ্ট্র সেটা নিয়ন্ত্রণ করুক কেউই সেটা চান না ৷’

এই নির্দেশে বড়সড় ধাক্কা খেল গেরুয়া বাহিনী। গো রক্ষার নামে যেভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হচ্ছিল তা এবার অপরাধ বলে গণ্য হবে। লভ জেহাদের নামে অত্যাচার অসাংবিধানিক আখ্যা পাবে। মহিলাদের পোশাক নিয়ে নীতি পুলিশগিরি বন্ধ হবে।

সুপ্রিম কোর্ট এদিন স্পষ্ট করে,

‘দীর্ঘমেয়াদী শারীরিক অসুস্থতার জেরে চিকিৎসা করাতে অস্বীকার করা বা নিজের জীবন শেষ করে দেওয়ার ইচ্ছাও এমন এক স্বাধীনতা যা ব্যক্তিগত গোপনীয়তার মধ্যে পড়ে।’

এর ফলে স্বেচ্ছামৃত্যু নিয়ে নতুন করে আইনি বিতর্কের জমি তৈরি করে দিল সুপ্রিম কোর্টের এই রায়।

সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুসারে,

‘নারীর সন্তানের জন্মদান বা গর্ভপাতের অধিকারও এমন একটা বিষয় যা গোপনীয়তার মধ্যে পড়ে ৷  অন্যদিকে, ৩৭৭ ধারা আইনগত ভাবে খারাপ। নাগরিকদের যৌনাচার ব্যক্তিগত বিষয়। যৌন অভ্যাসের জন্য যদি দেশের কোনও নাগরিকের সামাজিক পরিচিতি বা সুরক্ষা বিঘ্নিত হয়, তা হাড়হিম করার মতো ঘটনা।’

সমকামিতা এখনও এদেশে দণ্ডনীয় অপরাধ। সুপ্রিম কোর্টের রায় এ নিয়েও নতুন করে ভাবনা-চিন্তা বা আইন তৈরির পথকে প্রশ্বস্ত করল।

মূলত আধার কার্ড নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের অতি-সক্রিয়তার বিরোধিতা করে ২০১২ সালে সুপ্রিম কোর্টে যান কর্নাটক হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি কে কে পুত্তুস্বামী। তাঁর পাঁচ বছরের নিরলস লড়াই-ই খুলে দিল আরও অনেক আলোচনা, তর্ক-বিতর্কের পথ ।

First published: 06:48:26 PM Aug 24, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर