গ্রুপ ডি পরীক্ষার্থীদের বিক্ষোভে সক্রিয় রেল, ব্যবস্থা বিশেষ ট্রেনের

May 21, 2017 10:23 AM IST | Updated on: May 21, 2017 12:58 PM IST

#জলপাইগুড়ি: গ্রুপ ডি পরীক্ষার্থীদের বিক্ষোভে রণক্ষেত্র নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন ৷ ট্রেনে আসন না পাওয়ায় স্টেশনে বিক্ষোভ দেখান ভিনরাজ্য থেকে আসা এক দল পরীক্ষার্থী ৷ ভাঙচুর চালানো হয় স্টেশনে ৷ এসি ট্রেনের কামরায় তাণ্ডব-ভাঙচুর চালিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন গ্রুপ ডি পরীক্ষার্থীরা ৷ তাতেও ক্ষান্ত না হয়ে রেললাইনে টায়ার পুড়িয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় ৷ এর ফলে বন্ধ হয়ে যায় ট্রেন চলাচল ৷

পরীক্ষার্থীদের এই আচরণে প্রবল ক্ষুব্ধ রেল ৷ সব মিলিয়ে এই বিক্ষোভ ও ভাঙচুরে এক কোটি টাকারও বেশি ক্ষতি হয়েছে রেলের ৷ তবে সাধারণ মানুষ ও পরীক্ষার্থীদের ভোগান্তির কথা মাথায় রেখে গ্রুপ ডি পরীক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থার কথা ঘোষণা করল উত্তর পূর্ব সীমান্ত রেল ৷ ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই রওনা হবে ট্রেন ৷

গ্রুপ ডি পরীক্ষার্থীদের বিক্ষোভে সক্রিয় রেল, ব্যবস্থা বিশেষ ট্রেনের

বিক্ষোভে আপ ও ডাউন লাইনে একাধিক ট্রেন আটকে পড়েছে ৷ (পড়ুন কোথায় কোন ট্রেন আটকে) আটকে অবধ অসম এক্সপ্রেস ৷ পরিস্থিতি সামলাতে পুলিশ নামানো হলে তাদের লক্ষ করে ঢিল ছুঁড়তে থাকেন পরীক্ষার্থীরা ৷ বিক্ষোভকারীদের পাল্টা অভিযোগ, পুলিশ তাদের উপর লাঠি চালিয়েছে ৷ তাতে জখম হয়েছেন বহু পরীক্ষার্থী ৷

শনিবারই রাজ্য জুড়ে সম্পন্ন হয়েছে রাজ্য সরকারের গ্রুপ ডি পদের মহা-পরীক্ষা। ছ হাজার অনুমোদিত পদের জন্য প্রায় পঁচিশ লক্ষ পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়েছেন। ভিন রাজ্য থেকে প্রায় পাঁচ লাখ পরীক্ষার্থী এসেছেন। সেই নাজেহাল পরিস্থিতি দেখা গেল এদিনও ৷

রাজ্য সরকারের গ্রুপ ডি পরীক্ষা ঘিরে শনিবার দিনভর রাজ্য জুড়ে হইহই অবস্থা। বাসে বাদুড়ঝোলা ভিড়। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাসে, ট্রেনে, অটোয়, নৌকায় চেপে পরীক্ষা দিতে যান পরীক্ষার্থীরা। রাজ্য সরকারের গ্রুপ ডি পরীক্ষা দিতে গতরাত থেকেই হাওড়া,শিয়ালদহ স্টেশনে উপচে পড়া ভিড়। হবে না-ই বা কেন? সরকারি চাকরি বলে কথা। কেই-বা হাতছাড়া করতে চায়? এক সঙ্গে পঁচিশ লক্ষ পরীক্ষার্থী ও তাঁদের অভিভাবকদের ভিড় সামলাতে তৎপর ছিল প্রশাসন।

২০১৩ সালে টেট পরীক্ষায় প্রায় ১২ লক্ষ পরীক্ষার্থীর জন্য রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার মত অবস্থা হয়। কেউ বাসের মাথায়, কেউ আবার গাড়ি ভাড়া করে দূর দূরান্তে পরীক্ষা দিতে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়েন অনেকে। পরীক্ষার জন্য শনিবার তাই বিশেষ বাস ও ট্রেনের ব্যবস্থা রেখেছিল প্রশাসন। ফেরিঘাট গুলিতেও বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। পূর্ব রেলওয়েতে চালু ৬টি বাড়তি ট্রেন ৷ বর্ধমান লাইনে ৪টি বাড়তি ডাউন ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয় ৷ পরীক্ষার জন্য চালু ছিল ৩০০টি মেট্রো ৷ গ্যালোপিং লোকাল ট্রেন ও শনিবার প্রতিটি স্টেশনে থামবে বলে পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব রেলের পক্ষ থেকে জানানো হয় ৷

শুধু পরীক্ষার দিনই শুধু নয়, ভিনরাজ্য থেকে আসা পরীক্ষার্থীদের বিক্ষোভে রবিবারও উত্তপ্ত পরিস্থিতি ৷ স্টেশনে স্টেশনে বিক্ষোভ উত্তেজনা সামলাতে নাজেহাল রেল ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES