পাহাড়ে রাজনীতির সমীকরণে বদল, কোণঠাসা মোর্চা

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 30, 2017 11:53 AM IST
পাহাড়ে রাজনীতির সমীকরণে বদল, কোণঠাসা মোর্চা
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 30, 2017 11:53 AM IST

#দার্জিলিং: প্রথমে বৈঠকের ডেরা পরিবর্তন হয়েছিল। এবার আন্দোলনের রাশই চলে গেল মোর্চার হাত থেকে। গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আন্দোলনে নামা সবকটি দলকে নিয়ে তৈরি হচ্ছে গোর্খাল্যান্ড মুভমেন্ট কো-অর্ডিনেশন কমিটি। বৃহস্পতিবার পাহাড় নিয়ে সর্বদল বৈঠকে বনধ প্রত্যাহার নিয়েও চাপের মুখে পড়তে হল মোর্চা নেতৃত্বকে। দীর্ঘ সময় ধরে চলল আলোচনার পর বনধ চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত ১৫টি রাজনৈতিক দল ও গণ-সংগঠনের।

পাহাড়েই যে এই দৃশ্য দেখতে হবে, তা সম্ভবত ভাবেননি বিমল গুরুংরা। এক তো দার্জিলিং ছেড়ে সর্বদল বৈঠক করতে কালিম্পংয়ে নামতে হল। তার ওপর মোর্চার আন্দোলন নিয়ে একের পর এক প্রশ্ন তুলল পাহাড়ের অন্য দল ও সংগঠনগুলো। পাহাড়েই এভাবে প্রশ্নের মুখে পড়া সম্ভবত এই প্রথম।

বনধ আংশিক প্রত্যাহারের সওয়াল জ্যাপ, এবিজিএলের মতো দলের

সিপিআরএম - জিএনএলএফও বনধ চালানোর পক্ষে মত দেয়নি

আংশিক বনধ প্রত্যাহারের আরজি জানায় কয়েকটি গণ-সংগঠনও

চাপের মুখে পালটা যুক্তি দেয় মোর্চা।

-গোর্খাল্যান্ড আবেগকে সম্মান দিতে বনধ চালানো উচিত

-মিছিল-আন্দোলনে উপচে পড়াকে ভিড়েই তা স্পষ্ট

-গোর্খাল্যান্ড নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে আলোচনার অর্থ নেই

-দিল্লিতে প্রতিনিধি পাঠালেও কেন্দ্র এখনও আলোচনায় সম্মতি দেয়নি

-বনধ চালিয়ে গেলেই কেন্দ্র আলোচনায় ডাকতে বাধ্য হবে

-এখনও বনধ প্রত্যাহার করলে তা হারাকিরি হবে

আন্দোলনের রাশ যাতে আলগা না হয়, তা নিশ্চিত করতেই বনধ চালানোর পক্ষে সওয়াল করেন মোর্চার প্রতিনিধি। বাকিরা তা মেনেও নেয়।

তবে পাহাড়বাসীর হয়ে আন্দোলনের নামে মোর্চার একতরফা মনোভাব আর চলবে না। বৃহস্পতিবার এটাও নিশ্চিত করেছেন বাকি দল ও সংগঠনের প্রতিনিধিরা। স্থির হয়েছে, মোর্চা নয়, এখন থেকে আন্দোলনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে কো-অর্ডিনেশন কমিটি।

-কিভাবে আন্দোলন, তা স্থির করবে কমিটি

-একই ফ্ল্যাগের তলায় আন্দোলনের সম্ভাবনাও খতিয়ে দেখা হবে

-আগামী ৬ জুলাই কমিটির বৈঠকে তা চূড়ান্ত হতে পারে

বনধ চালানোর সিদ্ধান্তে মুখরক্ষা হয়তো হয়েছে। কিন্তু আন্দোলনে রাশ হাতছাড়া হওয়ায় একরাশ আশঙ্কা থাকছে মোর্চার সামনে।

First published: 11:53:23 AM Jun 30, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर