গোর্খাল্যান্ড নিয়ে আলোচনা নয়, বনধ চালানোর ঘোষণা মোর্চার

Jul 04, 2017 07:08 PM IST | Updated on: Jul 04, 2017 07:11 PM IST

#দার্জিলিং: পাহাড় নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর প্রস্তাবও মানছে না গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। গোর্খাল্যান্ড ছাড়া অন্য সব বিষয়ে আলোচনায় তৈরি কেন্দ্র। দার্জিলিংয়ের সাংসদের মাধ্যমে মোর্চা নেতৃত্বকে বার্তা দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেই প্রস্তাব খারিজ করল মোর্চা প্রধান। বিমল গুরুংয়ের একগুঁয়েতি ধৈর্য্য হারাচ্ছে পাহাড়ের অন্য দলও। মোর্চার সঙ্গ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জিএনএফ। আন্দোলন নিয়েও মোর্চা যাতে একা সিদ্ধান্ত নিতে না পারে, তা নিশ্চিত করতেও উদ্যোগী বাকিরা।

প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব ফেরালেন গুরুং

গোর্খাল্যান্ড নিয়ে আলোচনা নয়, বনধ চালানোর ঘোষণা মোর্চার

গোর্খাল্যান্ড নিয়ে আলোচনা নয়

অন্য ইস্যুতে আলোচনার প্রস্তাব মোর্চাকে

প্রস্তাব ফিরিয়ে বন্্ধ চালানোর ঘোষণা

গোর্খাল্যান্ড সম্ভব নয়। অন্য যে কোনও বিষয়ে মোর্চার সঙ্গে আলোচনায় তৈরি কেন্দ্র। হতে পারে ত্রিপাক্ষিক বৈঠকও। দার্জিলিংয়ের সাংসদ এসএস আলুওয়ালিয়াকে কেন্দ্রের অবস্থান স্পষ্ট করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই বার্তা পৌঁছতেই আরও চাপে মোর্চা। অনড় থেকেই মুখরক্ষার চেষ্টা।

এতদিন কেন্দ্রের ডাক আসার অপেক্ষায় বনধ চালাচ্ছিলেন। এবার কি করবেন বিমল গুরুংরা?

আপাতত বনধ চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত

গোর্খাল্যান্ড আবেগেই আন্দোলনকে আরও ছড়িয়ে দেওয়ার কৌশল?

এছাড়া আর কিইবা করার ছিল? আন্দোলনের রূপরেখা নিয়ে পাহাড়েই মোর্চার ওপর চাপ বাড়াচ্ছে বাকি দলগুলো। বিমল গুরুংয়ের মৌরসাপাট্টা আর চলতে দিতে নারাজ তাঁরা।

মোর্চার ওপর বিরক্ত হয়ে একা চলার সিদ্ধান্ত জিএনএলএফের

বাকি দলগুলির চাপে এবার কো-অর্ডিনেশন কমিটির বৈঠকও কালিম্পংয়ে করার সিদ্ধান্ত

বৈঠকে মোর্চার কৌশল নিয়ে ঝড় ওঠার সম্ভাবনা

কেন্দ্রের অবস্থান স্পষ্ট হওয়ায় মোর্চার চাপ আরও বাড়বে

সরে যাচ্ছে জোটসঙ্গীরা। পাহাড়ে ক্রমেই বিশ্বাসযোগ্যতা হারাচ্ছে মোর্চা। নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে আর কতদিন পাহাড়ে বন্্ধ চালিয়ে যেতে পারবেন বিমল গুরুংরা?

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES