বনধ-এর প্রথমদিন ব্যর্থ মোর্চার কৌশল

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Jun 12, 2017 06:48 PM IST
বনধ-এর প্রথমদিন ব্যর্থ মোর্চার কৌশল
File Photo
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Jun 12, 2017 06:48 PM IST

#দার্জিলিং: পাহাড়ে অনির্দিষ্টকালের সরকারি অফিস বন্্ধের ডাক মোর্চার। বনধের নামে পাহাড়কে নতুন করে অশান্ত করে তোলাই ছিল মোর্চা নেতৃত্বের মূল উদ্দেশ্য। কিন্তু প্রথম থেকেই সাবধানী ছিল পুলিশ প্রশাসন। বেশ কয়েকটি জায়গায় অশান্তি তৈরির চেষ্টা করলেও সময়মত পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

বনধ-এর ডাক আসলে মোর্চার নয়া কৌশল। প্রশাসন কড়া হাতে মোকাবিলা করতে গেলে তাতে আখেরে লাভ মোর্চারই। খোদ মোর্চা সুপ্রিমো বিমল গুরুং-এর বক্তব্যেও তার ইঙ্গিত মিলেছিল।

পরিকল্পনা অনুসারে বেশ কয়েকটি জায়গায় হিংসা ছড়ানোরও চেষ্টা হয়।

দার্জিলিং

PWD অফিসে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে মোর্চা সমর্থকদের বিরুদ্ধে। আগুনে নষ্ট হয় যায় কম্পিউটার এবং নথিপত্র।

বিজনবাড়ি

বিজনবাড়ির বিডিও অফিসেও আগুন লাগানোর চেষ্টা করা হয়। হামলার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় কয়েকজন মোর্চা কর্মীকে।

সুকনা

সুকনায় মোর্চার বিরুদ্ধে জোর করে গ্রাম পঞ্চায়েত অফিস বন্ধের চেষ্টা করার অভিযোগ ওঠে।

সোনাদা

সোনাদায় জল বিদ্যুৎ প্রকল্পের অফিসে ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে মোর্চা সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

যদিও প্রত্যেকটি ক্ষেত্রেই মোর্চার কৌশল ব্যর্থ করে দেয় পুলিশ।

চোরাগোপ্তা এই কয়েকটি হামলা ছাড়া কোথাও কোনও অশান্তির ঘটনা ঘটেনি। প্রথমদিন নিজেদের কৌশলে সফল হননি মোর্চা সুপ্রিমো বিমল গুরুং। তবে বড়সড় ঝামেলার আশঙ্কা এখনই উড়িয়ে দিচ্ছে না প্রশাসন।

First published: 06:48:12 PM Jun 12, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर