বনধের দ্বিতীয় দিন, দার্জিলিঙে মোর্চার মিছিলে উত্তেজনা-লাঠিচার্জ

Jun 13, 2017 11:19 AM IST | Updated on: Jun 13, 2017 03:05 PM IST

#দার্জিলিং: মোর্চা বনধের দ্বিতীয় দিনেও অব্যাহত উত্তেজনা ৷ গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে দার্জিলিঙে মোর্চার মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ ৷

এদিন সকালে চকবাজার থেকে শুরু হয় মোর্চার মিছিল ৷ পুলিশের নির্দেশ অমান্য করে মিছিল-জমায়েতে বাড়ে উত্তেজনা ৷ ডিএম অফিসের দিকে এগোতে যায় মিছিল ৷ হিলকার্ট রোডে পুলিশ মিছিল আটকালে রাস্তায় বসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন মোর্চা সমর্থকেরা ৷ শুরু হয় পুলিশকে লক্ষ করে পাথরবৃষ্টি ৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মোর্চা সমর্থকদের উপর লাঠিচার্জ করে পুলিশ ৷

বনধের দ্বিতীয় দিন, দার্জিলিঙে মোর্চার মিছিলে উত্তেজনা-লাঠিচার্জ

বনধ সর্বাত্মক করার প্রচেষ্টায় মোর্চা সমর্থন জানিয়েছে চা শ্রমিক জয়েন্ট ফোরামের ডাকা ধর্মঘটে ৷ স্কুল ও পরিবহণকে মোর্চা বনধের আওতার বাইরে রাখলেও, এদিনের চা শ্রমিকদের বনধকে হাতিয়ার করে ধর্মঘট সর্বাত্মক করার প্রচেষ্টায় মোর্চা সমর্থকেরা কয়েকটি জায়গায় জোর করে স্কুল বন্ধ করে দিয়েছে বলে অভিযোগ ৷

ছাত্রছাত্রীদের স্কুলে নিয়ে গিয়েও, ফেরত নিয়ে আসেন অভিভাবকরা । কবে পরীক্ষা হবে জানাতে পারেনি স্কুল কর্তৃপক্ষ। স্থানীয়রা ছাড়াও বহু বিদেশী ছাত্রছাত্রী পড়ে দার্জিলিঙের বিভিন্ন স্কুলে। স্কুল বন্ধ থাকায় বিপাকে পাহাড়ে শিক্ষা ব্যবস্থা। বনধের দ্দ্বিতীয় দিনে পহাড়ে অশান্তির চেষ্টা মোর্চার। সকালে কালিম্পঙের জেলাশাসকের দফতরের সামনে পিকেটিং ।ডাম্বার চকেও জমায়েত হয়ে গণ্ডগোলের চেষ্টা করে মোর্চার সমর্থকরা। কিছুক্ষণের মধ্যেই তাদের সরিয়ে দেয় পুলিশ।

মোর্চার 'দাদাগিরি'তে স্তব্ধ দার্জিলিং। বন্্ধে মোর্চা প্রভাবিত গাড়িচালক ইউনিয়নও । ফলে কোনও গাড়ি না পেয়ে সকাল থেকে চূড়ান্ত হয়রানির শিকার হন পর্যটকরা। যদিও পরিস্থিতি মোকাবিলায় সচেষ্ট রাজ্য সরকার। রাস্তায় নামানো হয়েছে NBSTC-এর অতিরিক্ত ১২টি বাস। পুলিশ এসকর্ট করে বাসগুলিকে নামানো হচ্ছে সমতলে। দার্জিলিং এবং কালিম্পং থেকে পর্যটকদের ফেরানো হচ্ছে বাগডোগরা ও শিলিগুড়িতে

মোর্চার 'দাদাগিরি'তে স্তব্ধ দার্জিলিং। বনধে মোর্চা প্রভাবিত গাড়িচালক ইউনিয়নও । ফলে কোনও গাড়ি না পেয়ে সকাল থেকে চূড়ান্ত হয়রানির শিকার হন পর্যটকরা। যদিও পরিস্থিতি মোকাবিলায় সচেষ্ট রাজ্য সরকার। রাস্তায় নামানো হয়েছে NBSTC-এর অতিরিক্ত ১২টি বাস। পুলিশ এসকর্ট করে বাসগুলিকে নামানো হচ্ছে সমতলে। দার্জিলিং এবং কালিম্পং থেকে পর্যটকদের ফেরানো হচ্ছে বাগডোগরা ও শিলিগুড়িতে ৷

দার্জিলিঙে তথ্য সম্প্রচার দফতরে তালা ঝুলিয়ে দেয় মোর্চা সমর্থকেরা ৷ কার্শিয়ঙে মোর্চা সমর্থকদের বিরুদ্ধে পর্যটকদের হেনস্থা করার অভিযোগ উঠেছে ৷ সরকারি বাস থেকে জোর করে পর্যটকদের নামিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ ৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন পুলিশ ও আধা সেনা ৷

বনধের জোড়া ফলায় স্তব্ধ পাহাড় ৷ স্কুলে বাংলা পড়ানোর সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে পাহাড়ে মোর্চার অনির্দিষ্টকালের জন্য বনধের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের চার জেলায় বনধ ডেকেছেন চা শ্রমিকরাও ৷ প্রশাসনের স্ট্র্যাটেজিতে ঘরের মাটিতে মুখ বাঁচাতে কৌশল বদলে সেই বনধকে পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছে মোর্চা ৷

চা শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি চালুর দাবিতে চার জেলা ও দুই মহকুমায় বনধ ডেকেছে চা শ্রমিকদের মিলিত ফোরাম ৷ ১৩ জুন অর্থাৎ আজ দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারের মেখলিগঞ্জ ও উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে সকাল ৬ থেকে সন্ধ্যা ৬ পর্যন্ত চলবে বনধ ৷ তার জেরে ফের নতুন করে উত্তেজনার আশঙ্কা পাহাড়ে ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES