শিশুপাচার রুখতে সীমান্তে চোখ, নজরে রাজ্যের একাধিক হোম এবং নার্সিংহোম

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Mar 28, 2017 07:31 PM IST
শিশুপাচার রুখতে সীমান্তে চোখ, নজরে রাজ্যের একাধিক হোম এবং নার্সিংহোম
Photo : AFP
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Mar 28, 2017 07:31 PM IST

#জলপাইগুড়ি: শিশুপাচার রুখতে উত্তরবঙ্গের সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে নজরদারি বাড়াতে বলেছেন সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি হোমগুলোয়। মাসখানেক আগে জলপাইগুড়ির ‘আশ্রয়’ হোম শিশুপাচারের ঘটনায় খবরের শিরোনামে উঠে আসে। যে পাচারচক্রের সঙ্গে জড়িয়ে যায় রাজ্য বিজেপি-র শীর্ষনেতৃত্বের নামও। শিশুপাচার নিয়ে তদন্ত শেষ করে দ্রুত রিপোর্ট জমা দিতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

জলপাইগুড়ির আশ্রয় হোম। শিশুপাচার চক্রের আঁতুরঘর। কেন্দ্রের চাইল্ড অ্যাডপটেশন রেগুলেটরি অথারিটির কাছ থেকে নির্দিষ্ট অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করতেই বেরিয়ে পড়ে এখানকার একের পর এক বেনিয়ম। শুধু আশ্রয় নয় নজরে রাজ্যের একাধিক হোম এবং নার্সিংহোম। বোঝা যায় শুধু জলপাইগুড়ি নয় উত্তরবঙ্গ জুড়েই পাচারচক্রে জাল ছড়িয়ে।

উত্তরবঙ্গ সফরে মুখ্যমন্ত্রীর অন্যতম প্রধান অ্যাজেন্ডা ছিল শিশুপাচার এবং নারীপাচার। এর মোকামিলায় সুনির্দিষ্ট রোডম্যাপ তৈরি করা।

- নজর রাখতে হবে প্রতিটি সরকারি এবং বেসরকারি হোমে

- দ্রুত সরকারকে জানাতে হবে হোমের সংখ‍্যা

- কোন হোমে কত শিশু তার রিপোর্ট দিতে হবে

- শিশুপাচার নিয়ে সিআইডি তদন্তের দ্রুত রিপোর্ট পেশ

- বিডিও এবং এআইসিদের মধ‍্যে সমন্বয়

- বাংলাদেশ ও অসম সীমান্তে কড়া নজরদারি

মাসখানেক আগে এই জলপাইগুড়ি থেকেই প্রকাশ্যে আসে রাজ‍্যে শিশুপাচারের ঘটনা। পাচারকাণ্ডে নাম জড়ায় বিজেপি নেত্রী জুহি চৌধুরীর। নেপাল সীমান্ত থেকে পুলিশ গ্রেফতার করে তাঁকে। উঠে আসে বিজেপি-র একাধিক শীর্ষ নেতৃত্বের নাম।

- হোম থেকে শিশুপাচারের মূল কাণ্ডারি ছিলেন বিজেপি নেত্রী জুহি

- আশ্রয় হোম পরিচালনায় আর্থিক সাহায‍্য করেন বলেও অভিযোগ

- বেশ কিছুদিন নিখোঁজ থাকার পর জুহিকে গ্রেফতার

- জুহি নির্দোষ বলে দাবি করেন বিজেপি সাংসদ রূপা গঙ্গোপাধ‍্যায়

শিশুপাচার কাণ্ডের তদন্তে উঠে আসে বাংলাদেশের যোগও।

First published: 07:17:26 PM Mar 28, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर